scorecardresearch

বড় খবর

‘আর্থিক ঘাটতি যেন আর না বাড়ে’, বাজেট প্রসঙ্গে বললেন নোবেলজয়ী অভিজিৎ

২০১৯-২০ আর্থিক বর্ষের জন্য আর্থিক ঘাটতির লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৭.০৩ লক্ষ কোটি টাকা, দেশের মোট উৎপাদনের ৩.৩ শতাংশ। কিন্তু আদতে তা ৮.০৭ লক্ষ কোটি টাকা ছাপিয়ে গিয়েছে। 

‘আর্থিক ঘাটতি যেন আর না বাড়ে’, বাজেট প্রসঙ্গে বললেন নোবেলজয়ী অভিজিৎ
অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়।

আগামী ১ ফেব্রুয়ারির কেন্দ্রীয় বাজেট নিয়ে এই মুহূর্তে দেশ জুড়ে আলোচনা শুরু হয়ে গিয়েছে। এরই মধ্যে শনিবার বাজেট নিয়ে নিজের মত প্রকাশ করলেন ২০১৯ এর নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়। অধ্যাপক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, দেশের আর্থিক ঘাটতি ইতিমধ্যে নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়েছে অনেক আগেই। সেই ঘাটতি আরও বাড়তে বিশেষ বেগ পেতে হবে না। এই মুহূর্তে দেশের সরকারকে বুঝে শুনে চলার বার্তা দিলেন নোবেলজয়ী।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এমআইটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক অভিজিৎ সংবাদসংস্থা এএনআইকে বলেন, “দেশের আর্থিক ঘাটতি লক্ষ্যমাত্রা ছাপিয়ে গিয়েছে আগেই। নতুন করে ঘাটতি আরও বাড়াটাও খুব সময়সাপেক্ষ নয়। এই অবস্থায় সরকার যেন লাভজনক সরকারের মতো নতুন কোনও রকম পদক্ষেপ না করে।

আরও পড়ুন, পরিকাঠামো খাতে ১০২ লক্ষ কোটি বিনিয়োগের ঘোষণা কেন্দ্রের

২০১৯-২০ আর্থিক বর্ষের জন্য আর্থিক ঘাটতির লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৭.০৩ লক্ষ কোটি টাকা, দেশের মোট উৎপাদনের ৩.৩ শতাংশ। কিন্তু আদতে তা ৮.০৭ লক্ষ কোটি টাকা ছাপিয়ে গিয়েছে।

সংবাদ সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী কেন্দ্র শিক্ষা খাতে ৩০০০ কোটি টাকা খরচ কমাতে চেয়েছে। সেই প্রসঙ্গে অধ্যাপক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোতে কেন্দ্র শিক্ষা খাতে বেশি ব্যয় করে না, শিক্ষা সবসময়ই রাজ্যতালিকার অন্তর্গত। কেন্দ্রের শিক্ষা খাতে ৩০০০ কোটি বাজেট কমানো সমুদ্রে বিন্দুর শামিল”।

গত বছরের বাজেটে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামণ শিক্ষা ক্ষেত্রে ৯৪ হাজার ৮৫৪ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছিল। এর মধ্যে ৪০০ কোটি বরাদ্দ ছিল বিশ্বমানের উচ্চশিক্ষার প্রতিষ্ঠান তইৈির জন্য। ২০১৭ সালে শিক্ষাক্ষেত্রে বরাদ্দ ছিল ৮৩,৬২৬ কোটি টাকা।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Business news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Abhijit banerjee fiscal deficit budget