scorecardresearch

বড় খবর
এক ফ্রেমে কেন্দ্রীয় কয়লামন্ত্রী ও কয়লা মাফিয়া, বিজেপিকে বিঁধলেন অভিষেক

ব্রিগেড ভরাবেন ইন্দিরার নাতনি, আশায় বুক বাঁধছে বঙ্গ কংগ্রেস

প্রিয়াঙ্কার কংগ্রেসে যোগ দেওয়া নিয়ে উচ্ছ্বসিত পশ্চিমবঙ্গ কংগ্রেসও। অনেকেই বলছেন প্রিয়াঙ্কার মধ্যে ইন্দিরা গান্ধীর প্রচ্ছন্ন ছাপ রয়েছে। নেতা-কর্মীদের আশা, এরাজ্যে প্রচারে আসবেন প্রিয়াঙ্কা।

ব্রিগেড ভরাবেন ইন্দিরার নাতনি, আশায় বুক বাঁধছে বঙ্গ কংগ্রেস
প্রিয়াঙ্কা গান্ধী আনুষ্ঠানিকভাবে কংগ্রেসে যোগ দেওয়ায় উচ্ছ্বসিত রাজ্য় কংগ্রেস নেতৃত্ব। এক্সপ্রেস ফাইল ছবি

লোকসভা নির্বাচনের আগে তুরুপের তাস বা ‘ট্রাম্প কার্ড’ খেলে ফেলল সর্বভারতীয় কংগ্রেস। একদিকে মোদী ব্রিগেডের বিরুদ্ধে লড়াই। অন্য দিকে জোটবদ্ধ আঞ্চলিক দলগুলোকে আটকানোর দায়। প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে ময়দানে নামানো ছাড়া সম্ভবত আর কোনও পথ খোলা ছিল না সোনিয়া-রাহুলের কাছে। আনুষ্ঠানিকভাবে প্রিয়াঙ্কার কংগ্রেসে যোগদান নিয়ে দেশের বাকি প্রদেশ কংগ্রেস সংগঠনের মতোই উচ্ছ্বসিত পশ্চিমবঙ্গ কংগ্রেসও। অনেকেই বলছেন, প্রিয়াঙ্কার মধ্যে তাঁর পিতামহী ইন্দিরা গান্ধীর প্রচ্ছন্ন ছাপ রয়েছে। আদপে পূর্ব উত্তর প্রদেশের দায়িত্ব বর্তালেও কংগ্রেস নেতা-কর্মীদের আশা, প্রিয়াঙ্কা দেশব্যাপী প্রচার করলে নির্বাচনে ভাল ফল করবেই কংগ্রেস।

দলের রাজ্য সভাপতি সোমেন মিত্রর বক্তব্য, “দলে সাধারন সম্পাদক পদে প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভাদরার এই নিযুক্তির ফলে সারা দেশের কংগ্রেস কর্মীরা আরও উজ্জীবিত হয়ে উঠবেন বলে আমাদের বিশ্বাস।” সর্বভারতীয় কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন সোমেনবাবু। দলের রাজ্যসভার সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য মনে করেন, “অনেকেই প্রিয়াঙ্কার মধ্যে ইন্দিরার ছাপ দেখতে পান। স্বভাবতই তাঁকে দেখতে, তাঁর বক্তব্য শুনতে চান। বহুদিন ধরেই কংগ্রেস কর্মীরা চাইছিলেন, প্রিয়াঙ্কা দলে যোগ দিন।” মালদার সাংসদ মৌসম বেনজির নুরও স্বাগত জানিয়েছেন প্রিয়াঙ্কার সক্রিয় রাজনীতিতে প্রবেশকে।

আরো পড়ুন: উনিশে ভোটযুদ্ধের মুখে রাজনীতিতে হাতেখড়ি প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর!

উত্তর প্রদেশের আমেথি ও রায় বেরিলি থেকে সাংসদ রয়েছেন যথাক্রমে সোনিয়া ও রাহুল গান্ধী। ১০ জানুয়ারি বহুজন সমাজ পার্টির নেত্রী মায়াবতী ও সমাজবাদী পার্টির নেতা অখিলেশ যাদবের মধ্যে উত্তর প্রদেশের লোকসভার আসন নিয়ে সমঝোতা হয়। সেখানে তাঁরা ঠিক করেন, ৩৬টি করে আসনে প্রার্থী দেবেন। গান্ধী পরিবারের সম্মানার্থে আমেথি ও রায় বেরিলিতে প্রার্থী না দেওয়ার কথা ঘোষণা করে ওই দুই দল। গত লোকসভা নির্বাচনে উত্তর প্রদেশ থেকেই বিজেপি সর্বাধিক ৭১টি আসনে জয় পেয়েছিল। কাজেই কংগ্রেসকে গুরুত্ব না দিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে একজোট হয়েছেন মায়াবতী ও অখিলেশ।

রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্যা, মায়াবতী ও অখিলেশের জোট ঘোষণা, একইসঙ্গে আমেথি ও রায় বেরিলি আসন ছেড়়ে দেওয়ার মত ঘোষণায় গান্ধী পরিবারের “সম্মানে আঘাত” লাগে। আবার কলকাতার ব্রিগেডে বিজেপি বিরোধী জোটের বাধ্যবাধকতায় এক মঞ্চে কংগ্রেসের দুই শীর্ষ নেতা মল্লিকার্জুন খাড়গে ও অভিষেক মনু সিংভিকে হাজির থাকতে হয় মায়াবতীর প্রতিনিধি এবং খোদ অখিলেশ যাদবের সঙ্গে। প্রিয়াঙ্কাকে নির্দিষ্ট ভাবে উত্তর প্রদেশের দায়িত্ব দিয়ে লোকসভার ভোটে শুধু মোদী নয়, কংগ্রেস চ্যালেঞ্জ জানাল মায়াবতী-অখিলেশের জোটকেও।

প্রদীপবাবু বলেন, “দেশের প্রতিটি কংগ্রেস কর্মী চেয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী প্রত্যক্ষভাবে ভারতের রাজনীতিতে অংশীদার হোন। প্রিয়াঙ্কা কংগ্রেসে এলে কংগ্রেস নিঃসন্দেহে শক্তিশালী হবে। অনেকে একথাও স্পষ্ট করে বলেছেন, প্রিয়াঙ্কার চেহারায় ইন্দিরা গান্ধীর একটা প্রচ্ছন্ন ছাপ রয়েছে। তাঁরা মনে করেন, সাধারণ মানুষ ইন্দিরাজীকে এখনও ভোলেন নি। মনের গভীরে ইন্দিরা গান্ধীকে শ্রদ্ধার আসনে বসিয়ে রেখেছেন। প্রিয়াঙ্কাজিকে সামনে দেখলে তাঁদের স্মৃতিতে ভেসে উঠবে সেই ইন্দিরা। এবং ভবিষ্যতে কংগ্রেসকে শক্তিশালী করতে সাহায্য করবে। ইন্দিরা গান্ধীর প্রতিচ্ছবি দেখে তাঁদের শ্রদ্ধার ভাব, স্নেহের ভাব, ভালবাসার ভাব জাগ্রত হবে। তার ফলে কংগ্রেস নতুন করে উজ্জীবিত হবে।”

আরো পড়ুন: প্রিয়াঙ্কার রাজনৈতিক অভিষেক আসলে রাহুলের ব্যর্থতা, কটাক্ষ বিজেপির

তিন রাজ্যের বিধানসভা জয়ের পরের দিন রানী রাসমণি রোডে রাজ্য কংগ্রেসের এক জনসভায় ব্রিগেডে সমাবেশ করার কথা উঠেছিল। তৃণমূল কংগ্রেস ১৯ জানুয়ারি ব্রিগেডে সভা করেছে। ৩ ফেব্রুয়ারি সিপিএমের সভা রয়েছে। বিজেপি আপাতত ব্রিগেডের পরিবর্তে রাজ্যব্যাপী সভা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ব্রিগেডে সভা করা নিয়ে কংগ্রেস এখনও সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি।

রাজনৈতিক মহলের অনুমান, এবার ব্রিগেডের কথা ভাবতে পারে কংগ্রেস। প্রদীপবাবুও মনে করেন, “প্রিয়াঙ্কা ব্রিগেডে এলে ব্রিগেড এমনিতেই ভর্তি হয়ে যাবে। তাঁকে দেখতে, তাঁর কথা শুনতেই আসবেন সাধারণ মানুষ। ভবিষ্যতে প্রিয়াঙ্কা ও রাহুল এবং অন্যান্য নেতৃত্ব প্রচারে নামলে কংগ্রেস একক শক্তিতে ক্ষমতায় আসতে পারবে।”

কিংবদন্তী কংগ্রেস নেতা গনি খান চৌধুরীর ভাগ্নী তথা উত্তর মালদার সাংসদ মৌসম বেনজির নুর প্রিয়াঙ্কার কংগ্রেসে যোগদানকে স্বাগত জানিয়েছেন। তাঁর বক্তব্য, “সারা দেশের কংগ্রেস কর্মীরা অনেক দিন থেকেই চাইছিলেন তিনি কংগ্রেসে সরাসরি যোগ দিন। উনি এরাজ্যে প্রচারে এলে খুবই খুশি হব। যদিও তিনি মূলত উত্তর প্রদেশের দায়িত্বে রয়েছেন।” মহিলাদের ক্ষমতায়ন নিয়েও উচ্ছ্বাসিত মৌসম। তাঁর মতে, “রাহুল তো আছেনই, তাঁর সঙ্গে প্রিয়াঙ্কা ব্রিগেডে এলেও একটা ভাল বার্তা যাবে।”

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Election news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Prianka gandhi join politics68078