বড় খবর

‘আমিই মমতাকে হারাবো’, পিংলার সভায় শপথ শুভেন্দুর

কর্মী, সমর্থকদের সামনে সংযুক্ত মেদিনীপুরে (পূর্ব-পশ্চিম মেদিনীপুর মিলিয়ে) বিজেপির পক্ষে ৩৫-০ করার শপথ নিয়েছেন প্রাক্তন পরিবহণ মন্ত্রী।

দলীয় ভাবে চূড়ান্ত নন্দীগ্রামে তৃণমূল প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু সরকারি ঘোষণার অপেক্ষা। কিন্তু বিজেপির তরফে তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী কে? শুভেন্দু অধিকারী না অন্য কেউ? এখনও স্থির করতে পারেনি বঙ্গ বিজেপি। যদিও পূর্ব মেদিনীপুরের হেভিওয়েট এই কেন্দ্রে অধিকারী পরিবারের মেজ ছেলের নামই ভেসে উঠছে বারংবার। তবে চূড়ান্ত কিছু না হলেও উত্তেজনা জিইয়ে রাখতে পিছুপা হচ্ছেন না শুভেন্দু অধিকারী। বুধবার পিংলার জনসভায় তাঁর হুঙ্কার, ‘তিনিই নন্দীগ্রামে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে হারাবেন।‘ যদিও পুরনো দলের সুপ্রিমোর বিরুদ্ধে নিজের পুরনো কেন্দ্রে তিনিই সম্মুখসমরে কি না, তা স্পষ্ট করেননি শুভেন্দু। কর্মী, সমর্থকদের সামনে সংযুক্ত মেদিনীপুরে (পূর্ব-পশ্চিম মেদিনীপুর মিলিয়ে) বিজেপির পক্ষে ৩৫-০ করার শপথ নিয়েছেন প্রাক্তন পরিবহণ মন্ত্রী। তারপরে এদিন পিংলার জনসভা থেকে ফের এক বার মমতাকে হারানোর শপথ নিয়েছেন শুভেন্দু। গলায় প্রত্যয়ের সুরে বলেছেন, ‘আমি নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে হারাব। নিশ্চিত থাকবেন, হারাব আমি। দল প্রার্থী করলে, সরাসরি হারাব। অন্য কাউকে প্রার্থী করলেও হারাব। পদ্ম ফোটাব। দায়িত্বটা আমার।’

রাজ্যে ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণার অনেক আগেই, গত ১৮ জানুয়ারি তেখালির জনসভা থেকে নন্দীগ্রামে নিজে প্রার্থী হওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ করেছিলেন তৃণমূল নেত্রী। তাঁর মাস্টারস্ট্রোক ছিল, এখান থেকে আমি প্রার্থী হলে কেমন হয়? রাজনৈতিক মহলের  মত, নন্দীগ্রামে নিজেকে প্রার্থী হিসাবে তুলে ধরে বিজেপিকে সরাসরি চ্যালেঞ্জ ছুড়েছেন মমতা। সেই সঙ্গে কর্মীদের কাছেও বার্তা পৌঁছে দিতে চেয়েছেন, রাজ্যের ২৯৪টি কেন্দ্রে তিনিই প্রার্থী।

ইতিমধ্যেই তার প্রস্তুতিও শুরু করেছে জোড়াফুল শিবির। নন্দীগ্রামে মমতা প্রার্থী হচ্ছেন শুনে তাঁকে ‘হাফ লাখ’ (৫০ হাজার) ভোটে হারানোর পাল্টা হুঙ্কার দিয়েছেন শুভেন্দু। নইলে রাজনীতি ছেড়ে দেওয়ার ‘পণ’ করেছেন শান্তিকুঞ্জের মেজ কর্তা।  তার পরই জল্পনা তৈরি হয়েছে, নন্দীগ্রামে নিজের গড়ে মমতার বিরুদ্ধে প্রার্থী হতে পারেন শুভেন্দু। যদিও হুগলির কোনও আসন থেকে নিজের ভাগ্য যাচাই করতে পারেন শুভেন্দু অধিকারী। এমন জল্পনাও দানা বেঁধেছে।

তবে নির্বাচনী নির্ঘণ্ট প্রকাশের পরেও সেই জল্পনার অবসান ঘটল না। এদিকে, বঙ্গে ভোটের দামামা বাজতেই প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করতে তৎপর শাসক-বিরোধী সব পক্ষই। তবে বরাবরের মতো সবার প্রথম প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করে ভোটযুদ্ধ এগিয়ে থাকতে চাইছে  তৃণমূল কংগ্রেস। চলতি সপ্তাহেই প্রথম ও দ্বিতীয় দফার জন্য প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করতে পারে ঘাসফুল শিবির। সেই তালিকায় একদম উপরে  নাম থাকতে পারে দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। জানা গিয়েছে প্রার্থী তালিকার ঘোষণার পর আগামী ১১ মার্চ, শিবরাত্রির দিন নন্দীগ্রাম আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিতে পারেন মমতা।

অপরদিকে, দিনে জুট কর্পোরেশনের চেয়ারম্যানের পদ থেকে ইস্তফা। রাতে প্রার্থী হিসাবে তাঁর নাম নিয়ে আলোচনার কথা জানিয়ে দিল রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। নন্দীগ্রামে বিজেপির কে প্রার্থী হচ্ছেন তা এখনও ঘোষণা হয়নি। তবে বিজেপির প্রার্থী হিসাবে নন্দীগ্রামের প্রাক্তন বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারীর নামই ঘোরাফেরা করছে। প্রার্থী নিয়ে পর্যালোচনার পর বঙ্গ বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়ে দিলেন, “নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারীর নাম আলোচনায় আছে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Get the latest Bengali news and Election news here. You can also read all the Election news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Suvendu adhikari dares tmc and said he will beat mamata in nadigram state

Next Story
নজরে আদিবাসী ভোট, তৃণমূলে যোগ আরও এক নায়িকার
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com