বড় খবর

শুভেন্দুকে ‘হলুদ কার্ড’ কমিশনের, কী বলছে BJP

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও রাহুল সিনহার প্রচারে নিষেধাজ্ঞা, দিলীপ ঘোষকে শোকজর পর শুভেন্দু অধিকারীকে সতর্ক করল নির্বাচন কমিশন।

suvendu adhikari's security beefed up
তাম্রলিপ্ত জনকল্যাণ সমিতির সভাপতি পদ থেকে অপসারিত শুভেন্দু

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও রাহুল সিনহার প্রচারে নিষেধাজ্ঞা, দিলীপ ঘোষকে শোকজর পর শুভেন্দু অধিকারীকে সতর্ক করল নির্বাচন কমিশন। আপত্তিকর মন্তব্যের জন্য শুভেন্দু অধিকারীকে নোটিস পাঠায় নির্বাচন কমিশন। সেই চিঠির জবাবও দিয়েছেন শুভেন্দু। কিন্তু তাতে সন্তুষ্ট নয় কমিশন। তার জেরেই সতর্কীকরণ বলে কমিশন সূত্রে জানা গিয়েছে।

সিদ্ধান্ত মাথা পেতে নেওয়ার কথা জানিয়েছে বিজেপি। গেরুয়া দলের নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার বলেছেন, ‘আমরা কমিশনের সিদ্ধান্তকে সম্মান করি। তাই কমিশনের আদেশ মেনে নিচ্ছি। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ধর্নায় বসে নাটক করলেন। জানতে চাই ওনার প্রতিবাদ কমিশনের বিরুদ্ধে, নাকি দেশের সংবিধানের বিরুদ্ধে?’

আরও পড়ুন- দিলীপ ঘোষকে শোকজ কমিশনের, শীতলকুচি ‘হুমকি’র জের

‘একদিকে আমাদের বেগম প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। অন্যদিকে রয়েছে আপনাদের পরিবারের ছেলে। এখন বলুন, আপনারা কাকে ভোট দেবেন? বেগমকে নাকি আপনাদের ছেলেকে? বেগমকে ভোট দিল এখানে মিনি পাকিস্তান হবে।’ গত ২৯ মার্চ নন্দীগ্রামের এক সভায় শুভেন্দুর এই মন্তব্যের জেরেই বিতর্ক চৈরি হয়। নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে গত ৮ এপ্রিল তাঁকে কারণ দর্শানোর নোটিস পাঠায় নির্বাচন কমিশন। পরদিনই ওই নোটিসের জবাব দেন শুভেন্দু। কমিশনের দাবি, শুভেন্দু বক্তব্যে বিদ্বেষমূলক।

এদিকে, শীতলকুচির ঘটনায় উস্কানিমূলক মন্তব্যের জন্য এদিন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে শোকজ নোটিস দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। বুধবার সকাল ১০টার মধ্যে তাঁকে নোটিসের জবাব দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন- গান্ধী মূর্তির সামনে একা ধর্নায় মমতা, নেই কোনও দলীয় পতাকা, নেতা-কর্মী

প্ররোচনামূলক বক্তব্য রাখার জন্য রাহুল সিনহার প্রচারেও নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে নির্বাচন কমিশন। জানানো হয়েছে এই নিষেধাজ্ঞা জারি থাকবে আগামী ৪৮ ঘণ্টা।

উল্লেখ্য, চতুর্থ দফায় কোচবিহারের শীতলকুচির একটি বুধে গোলমালের জেরে গুলি চালিয়ে দেয় কেন্দ্রীয় বাহিনী। তাতে মৃত্যু হয় ৪ জনের। এরপর রবিবার বরাহনগরে পার্নো মিত্রের প্রচারে গিয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘বাংলায় দুষ্টু ছেলে আর থাকবে না। কেউ যদি বাধা দেয় শুনবেন না। কেউ বাড়াবাড়ি করলে জায়গায় জায়গায় শীতলকুচি হবে।’ রাহুল বলেছিলেন, ‘৪ জন নয়, ৮ জনকে গুলি করা উচিত ছিল কেন্দ্রীয় বাহিনীর। কেন তা করা হল না? তা সিআরপিএফ-এর থেকে কৈফিয়ত তলব করে জানা হোক।’ উভয় ক্ষেত্রেই কমিশনের কাছে নালিশ জানিয়েছিলো তৃণমূল।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Get the latest Bengali news and Election news here. You can also read all the Election news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Suvendu adhikari warned by ec for inflamatory remark west bengal election

Next Story
রাজপথে হুইলচেয়ারে বসে ধরণা মমতার, ‘গণতন্ত্রের কালো দিন’! কমিশনকে ‘কটাক্ষ’ রাজেরraj
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com