scorecardresearch

বড় খবর
এক ফ্রেমে কেন্দ্রীয় কয়লামন্ত্রী ও কয়লা মাফিয়া, বিজেপিকে বিঁধলেন অভিষেক

জাতীয় মঞ্চে বিরাট সম্মান ‘অভিযাত্রিক’-এর ঝুলিতে, লাফাচ্ছেন শ্রীলেখা মিত্র

বলিউড-দক্ষিণের ভিড়ে বাজিমাত ‘অভিযাত্রিক’-এর।

জাতীয় মঞ্চে বিরাট সম্মান ‘অভিযাত্রিক’-এর ঝুলিতে, লাফাচ্ছেন শ্রীলেখা মিত্র
সেরা সিনেম্যাটোগ্রাফির জন্য জাতীয় পুরস্কার পেল অভিযাত্রিক, উচ্ছ্বসিত শ্রীলেখা মিত্র

৬৮তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার (68th National Film Awards) অনুষ্ঠানে বাজিমাত বাংলা সিনেমা ‘অভিযাত্রিক’-এর। বাংলার সেরা সিনেমার জন্য জাতীয় পুরস্কার জুটেছে এই সিনেমার ঝুলিতে। সেরা সিনেম্যাটোগ্রাফির পুরস্কারও জিতে নিল এই ছবি। বাজিমাতটা করলেন বাংলার পরিচালক শুভ্রজিৎ মিত্র এবং সিনেম্যাটোগ্রাফার সুপ্রতীম ভোল। উচ্ছ্বসিত অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র (Sreelekha Mitra)।

শ্রীলেখা নিজেও ‘অভিযাত্রিক’-এ (Avijatrik) অভিনয় করেছেন। প্রথম প্রতিক্রিয়া দিলেন ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলাকে। নায়িকার কথায়, “আমি খুব খুশি সুপ্রতীম ও শুভ্রজিতের জন্য। এত খেটে কাজ করেছে ওঁরা। তাঁর স্বীকৃত পেল জাতীয় স্তরে।” বলাইবাহুল্য, বলিউড-দক্ষিণের ভিড়ে বাজিমাত করে ফেলেছে ‘অভিযাত্রিক’।

প্রসঙ্গত, ২০২১ সালে ভাল কন্টেন্ট হওয়া সত্ত্বেও অতিমারীর প্রভাবে বক্স অফিসে ‘মার’ খেয়েছিল ‘অভিযাত্রিক’ (Avijatrik)। কিন্তু জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অনুষ্ঠানের মঞ্চে সেরা উত্তরটা দিয়ে দিলেন পরিচালক শুভ্রজিৎ মিত্র (Avijatrik wins big at 68th National Film Awards)। মনোক্রম মুডে তৈরি এই বাংলা ছবি জাতীয় স্তরে সেরা বাংলা চলচ্চিত্রের পুরস্কার জিতেছে। এই সিনেমার গল্পকে দর্শকদের জন্য নিজের মতো করে কাটা-ছেঁড়া করেছেন শুভ্রজিৎ। যা নিঃসন্দেহে চ্যালেঞ্জিং। পরিচালকের কথায়, “অপরাজিত উপন্যাসের শেষ ৪০ শতাংশ নিয়ে তৈরি হয়েছে তাঁর ছবি।”

[আরও পড়ুন: জাতীয় পুরস্কার ‘অভিযাত্রিক’-এর, ‘গায়ে কাঁটা দিচ্ছে’ দিতিপ্রিয়ার, উচ্ছ্বসিত অর্জুনও]

ঠিক যেখানে সত্যজিৎ রায়ের ‘অপুর সংসার’ শেষ হয়েছিল, তার পরের গল্পটাই সিনেপর্দায় তুলে ধরেছেন পরিচালক শুভ্রজিৎ মিত্র। বলা ভাল, অপুকে আরও বছর খানেক এগিয়ে নিয়ে গিয়েছেন তিনি। ১৯৩০-৪০ সালের প্রেক্ষাপটে সাজানো ছবির গল্প। অপুর ভূমিকায় অর্জুন চক্রবর্তী (Arjun Chakraborty)। লীলার চরিত্রে অর্পিতা চট্টোপাধ্যায়। দিতিপ্রিয়া রায়কে (Ditipriya Roy) দেখা গিয়েছে অপুর স্ত্রী অপর্ণার চরিত্রে।

অপুর ভূমিকায় অর্জুন চক্রবর্তী, স্ত্রী অপর্ণার চরিত্রে দিতিপ্রিয়া রায়

অপুর চাকরিজীবনে ছেদ পড়ার পর নিজের সন্তানকে নিয়ে সে বেরিয়ে পড়েছে বারাণসীর উদ্দেশে। ট্রেনে দেখা হয় তাঁর শৈশবের বন্ধু লীলার সঙ্গে। সত্যজিৎ তাঁর সিনেমা থেকে লীলা-প্রসঙ্গ বাদ দিলেও শুভ্রজিৎ বিভূতিভূষণের রচনার প্রতি বিশ্বস্ত থেকেই অপু-লীলার হারিয়ে যাওয়া প্রেমকে পুনরুদ্ধারের সাহস দেখিয়েছেন। সাদা-কালো ফ্রেমে এই সিনেমার হাত ধরেই দিব্যি ডুব দেওয়া যায় নস্ট্যালজিয়ায়। অপুর নিঃসঙ্গতা, একাকীত্ব, ছেলে কাজলের সঙ্গে সম্পর্ক পারদর্শীতার সঙ্গে ফুটিয়ে তুলেছেন পরিচালক। আর শুক্রবার ৬৮তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অনুষ্ঠানে বাজিমাত করল বাংলা সিনেমা ‘অভিযাত্রিক’।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Entertainment news download Indian Express Bengali App.

Web Title: 68th national film awards avijatrik wins big for best cinematograph