scorecardresearch

বাংলাদেশের ঘটনায় রাজ্যের বুদ্ধিজীবীদের মুখে কুলুপ! ফেসবুকে খোঁচা রুদ্রনীলের

Bangladesh Violence: ‘অনেকের মনে প্রশ্ন জাগছে, এনারা কি ইসলামের নামে করা এই ঘৃণ্য মৌলবাদকে সমর্থন করছেন?’

Rudranil Ghosh on Bangladesh Violence
বাংলাদেশে হিন্দুদের উপর হামলার ঘটনায় বিদ্বজ্জনদের একহাত নিলেন অভিনেতা ও বিজেপি নেতা।

Bangladesh Incident: বাংলাদেশের ঘটনা নিয়ে ইতিমধ্যে সরব টলিউডের একটা অংশ। সেই তালিকায় নাম রয়েছে পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। ওপার বাংলার অভিনেত্রী গর্জে উঠেছেন জয়া এহসান এবং মিথিলা। এবার সরব হলেন অভিনেতা-রাজনীতিবিদ রুদ্রনীল ঘোষ। পাশাপাশি বাংলার বুদ্ধিজীবীদের নীরবতা নিয়ে এদিন ফেসবুকে কটাক্ষ করেছেন এই অভিনেতা।

লক্ষ্মীপুজোর শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি লেখেন, ‘দুর্গাপুজোর সময় থেকে হিন্দু ধর্মের মানুষদের উপর যে ধারাবাহিক মানসিক এবং শারীরিক নিপীড়ন নেমে এসেছিল, তাতে বাংলাদেশের হিন্দুরা আজ লক্ষ্মীপুজো কতটা পালন করতে পারছেন জানি না। যদিও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং সে দেশের পুলিশকর্তারা দেশজুড়ে ঘটা এই ঘটনাকে উগ্র মৌলবাদী হামলা বলেছেন এবং তাঁরা কড়া ব্যবস্থা নিচ্ছেন বলেও জানতে পেরেছি। শুধুমাত্র বাংলাদেশের শুভবুদ্ধিসম্পন্ন মানুষ নয়, বিশ্বজুড়ে বাঙালিরা এই ঘৃণ্য, পরিকল্পিত ঘটনার প্রতিবাদ করেছেন, পথে নেমছেন, কথা বলছেন।‘

তাঁর খোঁচা, ‘কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় হল, আমাদের এপার বাংলার অধিকাংশ শিল্পী লেখক বুদ্ধিজীবী এ ব্যাপারে মুখে কুলুপ এঁটেছেন। যারা যেকোনও একটা ছোট্ট বিষয়ে পান থেকে চুন খসলেই হুলস্থুল করে দেন, সেই তাঁরাই এই বড় ব্যাপারটা এড়িয়ে যাচ্ছেন, নয় চুপ যাচ্ছেন কিংবা এসব ছোট্ট বিচ্ছিন্ন ঘটনা, ওদেশের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার। এসব বলছেন! কেন? অনেকের মনে প্রশ্ন জাগছে, এনারা কি ইসলামের নামে করা এই ঘৃণ্য মৌলবাদকে সমর্থন করছেন? নাকি এপার বাংলার বুদ্ধিজীবীরা-বিশিষ্টজনরা যারা অধিকাংশই হিন্দু, তাঁরা নিজের ধর্মের মানুষদের মানুষ মনে করেন না? নাকি অন্য কোনও বড় রাজনৈতিক সমীকরণের কাছে মাথা নুইয়ে দিয়েছেন এপার বাংলায়, তাই অনিচ্ছাতেও চুপ? এ প্রশ্নের উত্তর সাড়া বাংলার মানুষ খুঁজছেন।‘

এদিকে, “বাংলাদেশে যা কিছু ঘটছে, তা অত্যন্ত লজ্জার। শেখ হাসিনা যিনি কিনা একজন সেক্যুলার মহিলা বলেই পরিচিত, তাঁর শাসনতন্ত্রে কীভাবে এমন ঘটনা ঘটে?” দুর্গাপুজোকে কেন্দ্র করে পদ্মাপারে যে অশান্তির পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে, এবার সেই প্রেক্ষিতেই গর্জে উঠলেন জাভেদ আখতার (Javed Akhtar)।

উৎসবের মরসুমে উত্তপ্ত বাংলাদেশ। দুর্গাপুজোকে (Durga Puja 2021) কেন্দ্র করেই আশান্তির সূত্রপাত। কুমিল্লা থেকে হাজিগঞ্জ, চট্টগ্রাম, বাঁশখালি, কক্সবাজারের একাধিক মন্দিরে দুর্গামূর্তি ভাঙচুর করার ঘটনা ঘটে। সাম্প্রদায়িক এই হানাহানিতে নিহতের সংখ্যা একাধিক। এদিকে শেখ হাসিনা (Sheikh Hasina) সরকার কঠোর পদক্ষেপ করার প্রতিশ্রুতি দিলেও থামতে নারাজ এদেশের হিন্দুত্ববাদীরা। বাংলাদেশেও একই চিত্র। কোরান অবমাননার অভিযোগ এনে ইসকন মন্দিরে ভাঙচুর চালানো হয়, সংখ্যালঘু হিন্দুদের বাড়ি-ঘর পুড়িয়ে ফেলার খবরও প্রকাশ্যে এসেছে। সাম্প্রদায়িক অসহিষ্ণুতার রং ছড়িয়ে একপ্রকার বাংলাদেশকে অশান্ত করে তুলেছে ধর্মীয় ধ্বজ্জাধারীরা। এবার সেই প্রেক্ষিতেই গর্জে উঠলেন বলিউডের খ্যাতনামা গীতিকার জাভেদ আখতার।

সোমবার টুইটে জাভেদের মন্তব্য, “বাংলাদেশে যা কিছু ঘটছে, তা অত্যন্ত লজ্জার বিষয়। সংখ্যালঘুদের উপর যাঁরা নির্হিচারে আক্রমণ চালাচ্ছে, তারা কাপুরুষ এবং মানসিক বিকারযুক্ত কমিউনালিস্ট। শেখ হাসিনার মতো একজন ধর্মনিরপেক্ষ ব্যক্তিত্বের শাসনতন্ত্রে কীভাবে এমনটা ঘটতে পারে?”

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Entertainment news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Actor politician rudranil ghosh snubs intellectual for their silence over bangladesh incident entertainment