scorecardresearch

বড় খবর

‘করোনা রুখতে ওয়ার্ডভিত্তিক পরিকাঠামো গঠন করব, পালাব না’, জিতেই অর্জুন-গড়ে ‘রাজ’-পাট শুরু

অর্জুন-গড়ে উড়ল সবুজ আবির। “এই জয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কঠোর পরিশ্রমের জয়। বাংলার নারীশক্তির জয়”, প্রতিশ্রুতি রাজ চক্রবর্তীর।

raj chakraborty

অর্জুন-গড়ে উড়ল সবুজ আবির। রাজ-পাট সামলানোর দায়িত্বে অবিচল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) একনিষ্ঠ সৈনিক রাজ চক্রবর্তী (Raj Chakraborty)। প্রার্থী হয়েই হুঁশিয়ারি ছুড়েছিলেন, ব্যারাকপুরকে অর্জুন সিংয়ের (Arjun Singh) দখলদারিত্ব থেকে মুক্ত করবেন। বিজেপির শক্তঘাঁটিতে আসন জিতে দিদিকে উপহার দেবেন। কথা রেখেছেন মমতার ভরসার পাত্র। অর্জুনকে দেওয়া চ্যালেঞ্জও বিফলে যায়নি। বলেছিলেন, “অর্জুন সিং আমাকে গুরুত্ব দেবেন না বলছেন, কিন্তু কথা দিচ্ছি সবথেকে বেশি গুরুত্ব আমাকেই দিতে হবে।” ২মে ব্যারাকপুরবাসী বুঝিয়ে দিয়েছেন যে, তাঁরা ক্ষমতায় মমতার প্রার্থীকেই চান। সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের আসন জিতে কোনওরকম উৎসব-উল্লাস নয়, করোনা মোকাবিলায় সোজা নেমে গিয়েছেন ময়দানে। অতিমারীর আবহে ব্যারাকপুরবাসীকে যাতে কোনওরকম পরিষেবা থেকে বঞ্চিত না হতে হয়, সেদিকে কড়া নজর সদ্য বিধায়ক রাজ চক্রবর্তীর। তৃণমূলের তুমুল সাফল্যের পরদিনই ওয়ার্ডভিত্তিক স্বাস্থ্য পরিকাঠামো গঠনের প্রতিশ্রুতি দিলেন রাজ।

সোমবার বিকেলেই রাজ্যের করোনা (Covid-19) পরিস্থিতি রুখতে জয়ী প্রার্থীদের সঙ্গে বিশেষ বৈঠক করবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই প্রেক্ষিতেই নিজস্ব কেন্দ্রে ওয়ার্ড ভিত্তিক পরিকাঠামো গড়ার কথা বলেন রাজ চক্রবর্তী। পাশাপাশি বিজেপির বিরুদ্ধে তৃণমূলের এই বিধ্বংসী জয়কে ব্যারাকপুরের হবু বিধায়ক উৎসর্গ করলেন দলনেত্রীকে। তাঁর মন্তব্য, “এই জয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কঠোর পরিশ্রমের জয়। তাঁর সততার জয়। এই জয় তৃণমূল (TMC) কর্মীদের মাটি আঁকড়ে লড়াই করবার জয়। বাংলার মা- মাটি-মানুষের জয়। এই জয় বাংলার নারীশক্তির জয়। বাংলার সংস্কৃতি- মনিষীদের জয়।”

ব্যারাকপুর (Barrackpore) বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপিপ্রার্থী চন্দ্রমণি শুক্লাকে প্রায় ৯২২২ ভোটে হারিয়েছেন। এই সাফল্যের কৃতিত্ব ভাগ করে নিয়েছেন ব্যারাকপুরবাসীর সঙ্গে। হবু বিধায়কের মন্তব্য, “আমরা কৃতজ্ঞ। কথা দিয়েছিলাম, আপনারা যদি আমায় ১০৮ ব্যারাকপুর বিধানসভা থেকে বিধায়ক হিসেবে নির্বাচিত করেন, আপনাদের সেবায় আমি নিজেকে নিয়োজিত করব। নিজেদের মূল্যবান ভোট দিয়ে আপনারা কথা রেখেছেন। এবার পালা আমার। কথা দিলাম, আগামী ৫ বছর আপনাদের পাশে থাকব। যে কোনও পরিষেবা পৌচ্ছে দিতে আমি প্রস্তুত। পালিয়ে যাব না। এই মূহুর্তে করোনা মহামারী আমাদের জন্যে সব থেকে ভয়াবহ হয়ে দাঁড়িয়েছে। মহামারীর বিরুদ্ধে আমরা লড়ব একসঙ্গে। ব্যারাকপুর ও টিটাগড়ে আমরা ওয়ার্ড ভিত্তিক একটি পরিকাঠামো গঠন করব। মানুষের যে কোনও সমস্যায় আমাদের পরিষেবা পৌছে যাবে আপনাদের দোরগোড়ায়৷”

রাজের জয়ে খুশি স্ত্রী শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায়ও (Subhashree Ganguly)। জানালেন, ছেলে ইউভানকে নিয়ে তিনিও অপেক্ষায় রয়েছেন কতক্ষণে রাজ বাড়ি ফিরবেন। পরিচালক স্বামীক এমন সাফল্য আবেগঘন পোস্টও শেয়ার করেছেন অভিনেত্রীর দিদি দেবশ্রী। এমন খুশির মুহূর্তে স্মরণ করলেন রাজের স্বর্গীয় পিতাকে, যিনি কিনা গতবছরই ইহলোকের মায়া ত্যাগ করেছেন। পারিবারিক ছবি শেয়ার করে দেবশ্রী লিখেছেন, “জেঠু দেখো , আজ তোমার শিবু জিতে গেছে । এই লড়াই টা খুব সহজ ছিল না। এই জেতাটাও খুব সহজ ছিল না।দিনের পর দিন দেখেছি মানুষের পাশে থেকে ,মানুষের জন্য লড়াই করতে। অজস্র মানুষের ভালোবাসা আর আশীর্বাদ আজ ওঁকে জিতিয়েছে।”

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Entertainment news download Indian Express Bengali App.

Web Title: After tmcs landslide victory raj chakrabortys reaction