scorecardresearch

বড় খবর

‘রাজনীতির চাকরি ছেড়ে সিনেমায় ফিরুন’, দেব-মিঠুনকে নিয়ে সপাট কথা অরিত্রর

‘প্রজাপতি’ বিতর্কে শোরগোল রাজনৈতিক মহলে।

‘রাজনীতির চাকরি ছেড়ে সিনেমায় ফিরুন’, দেব-মিঠুনকে নিয়ে সপাট কথা অরিত্রর
প্রজাপতি বিতর্কে মুখ খুললেন অরিত্র দত্ত বণিক

নন্দনে শো পায়নি ‘প্রজাপতি’। যা নিয়ে জোর বিতর্ক। মিঠুন চক্রবর্তীর অভিনয় নিয়ে যেখানে জোর তরজা দিলীপ ঘোষ ও কুণাল ঘোষের মধ্য়ে, সেখানে বাম শিবিরের শতরূপ ঘোষ বিঁধতে ছাড়েননি। যা নিয়ে মুখ খুলেছিলেন সাংসদ-অভিনেতা দেব। এবার সেই ‘প্রজাপতি’ বিতর্কে দেব-মিঠুনের উদ্দেশে সপাট বার্তা দিলেন অরিত্র দত্ত বণিক। তাঁর কথায়, রাজনীতির চাকরি ছেড়ে সিনেমায় ফিরুন।

অরিত্র সম্প্রতি ফেসবুকে এক পোস্ট করেন। যদিও সেখানে দেব কিংবা মিঠুনের নামোল্লেখ করেননি। এমনকী সিনেমার নামও লেখেননি। তবে ‘প্রজাপতি’ নিয়ে এই চলতি বিতর্কে অভিনেতার পোস্ট দেখেই স্পষ্ট বোঝা যায় যে তিনি এপ্রসঙ্গেই বিঁধেছেন।

কোনওরকম ভনিতা না করেই স্পষ্টভাবে অরিত্র লেখেন, “কুনাল ঘোষ বা মমতা বন্দোপাধ্যায় কেন কোনও রাজনীতিবিদের বুকের পাটা হত না সিনেমা বা অভিনেতাদের নিয়ে ফালতু কথা বলার, যদি না বাংলা সিনেমার অভিনেতা অভিনেত্রীরা নিজেদের ‘অল্টারনেট জব সিকুরিটি’ খুঁজতে বোকার মতো রাজনীতির মতো পেশায় এসে নিজের ভক্তদের কাছে শ্রদ্ধার জায়গাটা নষ্ট না করতেন।”

এখানেই অবশ্য থামেননি অরিত্র। অভিনেতা এও যোগ করেন যে, “আমরা শিল্পীরা নিজেদের দোষেই এই অপমানের সুযোগ করে দিয়েছি। তাই রাজনৈতিক দলগুলি নিজেদের ভোটের আবেগ বিক্রি করতে গিয়ে সিনেমার ইমোশনকে বিক্রি করছে। এখনও সময় আছে যদি নিজের শিল্পের ওপর আর দর্শকদের ওপর বিশ্বাস থাকে, এই মুহূর্তে সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলিকে নিজেদের মেরুদণ্ড বুঝিয়ে দিয়ে রাজনীতির চাকরি ছেড়ে দিয়ে আবার সিনেমার পর্দায় ফিরুন। প্রত্যেক পেশার নিজস্ব মডেল আছে রাজনীতির মার্কেটের সঙ্গে সিনেমা বা মিডিয়ার মার্কেট কোনও দিন মিলবে না। যতবার জোর করে মেলাবেন ততবার এই দুর্দিন আসবে। সবাই যে যাঁর বিশেষ পেশায় ফিরে যান।”

[আরও পড়ুন; ‘মেয়েরা এদেশে সুরক্ষিত নয়’, তুনিশা শর্মার মৃত্যুতে গর্জে উঠলেন কঙ্গনা, দাবি করলেন…]

সম্প্রতি মিঠুনকে নিয়ে যেরকম কথা উঠেছে তৃণমূলের অন্দরেই, তার কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছেন সাংসদ-অভিনেতা দেব। তাঁর স্পষ্ট কথা, “ভবিষ্যতে দরকার পড়লে আবারও মিঠুন চত্রবর্তীর সঙ্গে কাজ করব। আর আমার দলের কারোরই ওঁর অভিনয় নিয়ে কোনও কথা বলা উচিত নয়।”

উল্লেখ্য, ‘প্রজাপতি’ ছবিতে দেবের পাশাপাশি গেরুয়া শিবিরের তারকা সদস্য মিঠুন চক্রবর্তী থাকায়, অনেকেই অভিযোগ করেছেন যে সেই জন্যই এই সিনেমা হল পায়নি। নেটপাড়ার একাংশের মত, মিঠুন বিজেপি করেন বলেই কি নন্দনে ব্রাত্য এই ছবি? সেই উত্তর যদিও মেলেনি। তবে সিনেমার সেটে কিন্তু রাজনৈতিক রং ভুলেই দেব-মিঠুন একসঙ্গে কাজ করেছেন। এমনকী, দেবের বাড়িতে গিয়ে তাঁর মা-বাবার সঙ্গে দেখাও করে এসেছেন মিঠুন।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Entertainment news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Aritra dutta banik on dev mithun chakraborty starrer prajapoti controversy