বড় খবর

বঙ্গভোটেও চায়ের মাহাত্ম্য়! প্রচারে বেরিয়ে ‘চা বানালেন’ শ্যামপুরের বিজেপি প্রার্থী তনুশ্রী

শুনতে হল ‘খোঁটাও’! প্রতিপক্ষ শিবিরের সমালোচকরা বলছেন, “এই তো পদ্মবনে গিয়েও সেই ‘দিদি’র দেখানো পথেই হাঁটলেন!”

tanushree

এক কাপ চায়ে কিই না হয়! চায়ের দোকানে বসেই বাঙালি ‘আফ্রিকা টু আন্টার্কটিকা’ ভ্রমণের স্বপ্ন দেখে, দিল্লির রাজপাট থেকে ভায়া দুবাই হয়ে আমেরিকার হোয়াইট হাউসের রাজনীতির চর্চায় মশগুল হয়ে ওঠে। আবার চায়ের ঠেকের আড্ডা থেকেই বদলে যায় কোনও মানুষের ‘বাপ-ঠাকুরদা’র দেওয়া নামও! লকডাউনের সময় ভাইরাল চা-কাকুই ওরফে মৃদুলবাবুই তার প্রকৃষ্ট উদাহরণ। অতঃপর বাঙালির চা-প্রীতি আর আলাদা করে বলিবার নহে! বঙ্গভোটেও চায়ের মাহাত্ম্য় স্পেশ্যাল! মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও (Mamata Banerjee) নন্দীগ্রামে গিয়ে চা বানিয়েছিলেন। তাঁকে অনুসরণ করেছিলেন তৃণমূলের তারকা প্রার্থী অদিতি মুন্সী। বঙ্গসন্তানরা আসলে যেখানেই যাক চায়ে চুমুক মাস্ট! আর সেই ‘পালস’ ভালই নিরীক্ষণ করতে পেরেছেন বিজেপি প্রার্থী তনুশ্রী চক্রবর্তী (Tanusree Chakraborty)। তাই সম্ভবত ভোটপ্রচারে বেরিয়ে জনসংযোগের জন্য সেই চা-কেই হাতিয়ার করে তুললেন। প্রচারের ফাঁকে দলীয় কর্মী-সমর্থক তথা উপস্থিত জনতাদের নিজে হাতে চা বানিয়ে খাওয়ালেন। কিন্তু তাতেও ক্ষান্ত থাকেননি প্রতিপক্ষ শিবিরের সমালোচকরা। বলছেন, “এই তো পদ্মবনে গিয়েও সেই ‘দিদি’র দেখানো পথেই হাঁটলেন!”

হাওড়ার শ্যামপুর (Shyampur) বিধানসভা কেন্দ্র থেকে ভোটে লড়ছেন অভিনেত্রী। গত ৮ মার্চ, নারী দিবসে গেরুয়া মন্ত্রে রাজনীতির ময়দানে অভিষিক্ত হয়েই বিজেপির (BJP) তরফে নির্বাচনী টিকিট পেয়েছেন। অতঃপর গেরুয়া শিবিরের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই নিজের কেন্দ্রে গিয়ে আদা-জল খেয়ে কোমর বেঁধে নেমে পড়েছিলেন রাজনীতির ময়দানে নবাগতা তনুশ্রী। গণদেবতার আশীর্বাদ নিতে কিংবা তাঁদের সঙ্গে সখ্যতা গড়তে কোনওরকম কসরতই বাকি রাখছেন না পদ্ম শিবিরের তারকা প্রার্থী। ঘরের মেয়ের মতোই রোজ স্থানীয় বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে ভোট প্রচার করতে বেরচ্ছেন। দামি এসি গাড়িতে করে নয়, একেবারে টোটোয় ঘুরে শ্যামপুর বিধানসভা কেন্দ্রে ভোটপ্রচার করছেন তিনি।

বুধবারও বেরিয়েছিলেন। সেখানেই প্রচারের ফাঁকে গণদেবতার সেবা করার সুযোগ পেলেন তনুশ্রী। হঠাৎই কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে টিনের চাল দেওয়া একটি চায়ের দোকানে ঢুকে পড়তে দেখা যায় তাঁকে। এরপর একেবারেই ঘরের মেয়ের মতো শাড়ির আচল কোমরে গুঁজে নেমে পড়লেন ময়দানে। ওদিকে তারকা-প্রার্থীকে চা বানাতে দেখে দোকান চত্বরে তখন ভীড় উপচে পড়ার জোগাড়। তাতে কিঞ্চিৎ বিতলিত নন তনুশ্রী। বরং চোখমুখে আনন্দ। নিজে হাতে যে শুধু চা বানিয়েই ক্ষান্ত থাকেননি, আবার পরিবেশনও করলেন। তারকা প্রার্থীর এমন আচরণে নেটজনতা যেমন একদিকে মুগ্ধ, কেউ কেউ আবার সমালোচনা করতেও পিছপা হননি। নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়ের চা বানানোর প্রসঙ্গ উত্থাপন করে খোঁচা দিয়েছেন পদ্ম-প্রার্থী তনুশ্রী চক্রবর্তীকে। বলছেন, “মমতার দেখানো পথেই হাঁটলেন তো!” কেউ বা আবার বলছেন, “দিদি ভোট যাওয়ার পরও সাধারণ মানুষ আপনার হাতে চা খেতে পারবে তো?”

হাওড়ার শ্যামপুর বিধানসভা কেন্দ্রের পদ্ম শিবিরের তারকাপ্রার্থী আগেভাগেই বলে দিয়েছেন যে, তিনি কথায় নন, কাজে বিশ্বাসী। আর তাই এবার হাতে-কলমে চা বানিয়ে জনসংযোগের কাজে নামলেন। ওদিকে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রে তৃণমূলের ‘তুরুপের তাস’ কালীপদ মণ্ডল। বিগত চারটি বিধানসভা ভোটেই তিনি তৃণমূলের (TMC) হয়ে টিকিটও পেয়েছেন এবং জয়ীও হয়েছেন এই কেন্দ্রে। ‘পুরনো চাল ভাতে বাড়ে’ কৌশলী অনুসরণ করে এবারও তৃণমূল আস্থা রেখেছে কালীপদর উপরই। এক্ষেত্রে প্রতিপক্ষ হেভিওয়েট প্রার্থীর সঙ্গে তারকা প্রার্থী তনুশ্রী চক্রবর্তীর এঁটে ওঠাটা যথেষ্ট চ্যালেঞ্জিং বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক মহলের একাংশ। হাড্ডাহাড্ডি লড়াই অবশ্যম্ভাবী। তা ঘাসফুল শিবিরের হেভিওয়েট প্রতিদ্বন্দ্বীর বিপরীতে ভোটবাক্সে তাঁর ‘স্টার তকমা’ কতটা প্রভাব ফেলবে? তা ২মের নির্বাচনী (West Bengal Assembly Election 2021) মার্কশিটেই প্রকাশ পাবে।

Get the latest Bengali news and Entertainment news here. You can also read all the Entertainment news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Bjp candidate tanusree chakraborty makes tea during campaign

Next Story
‘সায়ন্তিকা আমার প্রিয় প্রার্থী’, বাঁকুড়ায় তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের মাঝেই ‘দরাজ সার্টিফিকেট’ মমতার
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com