বড় খবর

‘আপনাকে আর সময় দেওয়া যাবে না’, অবৈধ নির্মাণ মামলায় সোনুর আবেদন খারিজ আদালতের

অবৈধ নির্মাণ মামলায় সোনুর আবেদন খারিজ বম্বে হাইকোর্টের, রায় দান BMC’র পক্ষে।

sonu

বেজায় বিপাকে পড়েছেন সোনু সুদ (Sonu Sood)। গোটা দেশের দুস্থ মানুষদের কাছে যিনি কিনা বর্তমানে ঈশ্বরের দূত-সম। মানুষের বিপদে-আপদে ঝাঁপিয়ে পড়ে সাহায্য করেন। দিন-দরিদ্রদের সেই ‘মসিহা’কেই কিনা শেষমেশ আইনি বিপাকে পড়ে জেরবার হতে হচ্ছে! অভিনেতাকে ‘স্বভাবসিদ্ধ অপরাধী’ বলে তোপ দেগেছিল বৃহন্মুম্বই পুরসভা। যার জেরে অবৈধ নির্মাণ মামলায় বিএমসির নোটিসকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে বম্বে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন সোনু সুদ। কিন্তু সেই অভিনেতার সেই আবেদন খারিজ করে দিল উচ্চ আদালত।

সোনুর বিরুদ্ধে BMC’র অভিযোগ, জুহুতে নিজের ৬ তলার শক্তি সাগর আবাসনকে পুরনিগমের অনুমতি ছাড়াই হোটেলে পরিণত করে ফেলেছেন অভিনেতা। পুরসভার এই নোটিসকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সোনুর আইনজীবী ডি পি সিং জানিয়েছেন, জুহুতে তাঁর মক্কেলের শক্তি সাগর বহুতল বিল্ডিং মোটেও বেআইনি নয়। যথাযথ নিয়ম মেনেই তা তৈরি করা হয়েছে। যার জেরে বৃহন্মুম্বইয়ের নোটিসকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সম্প্রতি বম্বে হাই কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন অভিনেতা। কিন্তু বৃহস্পতিবার আদালতে বিচারক পৃথ্বীরাজ কে চৌবনের তরফে সেই আবেদন খারিজ করে দেওয়া হয়। অতঃপর, সোনু যে এবার বড়সড় আইনি বিপাকে পড়তে চলেছেন, তা আন্দাজ করা যায়।

বিচারক চৌবনের কথায়, “এই মুহূর্তে গোটা বিষয়টাই বৃহন্মুম্বই পুরসভার হাতে।” সুদের আইনজীবী বিএমসির কাছ থেকে ১০ সপ্তাহের সময় চেয়েছিলেন, যাতে অবৈধ নির্মাণের অভিযোগ তুলে অভিনেতার বাংলো না ভাঙা হয়। তবে আদালতের তরফে অভিনেতার এই আবেদন নাকচ করে দেওয়া হয়েছে। পরিবর্তে সোনু সুদকে বলা হয়েছে, “আপনাদের যথেষ্ট সময় ও সুযোগ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু বড্ড দেরি করে ফেলেছেন আপনারা। আর আদালত তাঁদের পাশেই থাকে, যাঁরা নিজস্ব কাজে গরিমসি করেন না!”

প্রসঙ্গত, বিএমসির সঙ্গে এই আইনি যুযুধানের মাঝেই সোনু সুদ দেখা করে এসেছেন শরদ পাওয়ারের সঙ্গে। উল্লেখ্য, অভিনেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ, এর আগে বিএমসির তরফে সোনু সুদকে একাধিকবার আইনি নোটিস পাঠানো হলেও অভিনেতা এর প্রেক্ষিতে কোনওরকম উত্তর দেননি। আর তাই একপ্রকার বাধ্য হয়েই কয়েকদিন আগে বৃহন্মুম্বই পুরনিগমের তরফে সোনু সুদের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে পুলিশকে। সোনু জুহুর শক্তি সাগর এলাকার ৬ তলার একটি বিল্ডিংয়ে থাকেন। যেটা কিনা বাসভবন। আর সেই বাংলোতেই হোটেলের ব্যবসা ফেঁদে বসেছেন তাঁরা, এমনটাই অভিযোগ বিএমসির। শুধু তাই নয়, ওই বাংলোতে বেআইনিভাবে অন্য কনস্ট্রাকশন গড়ে তোলার অভিযোগও রয়েছে অভিনেতার বিরুদ্ধে। দু’বার বৃহন্মুম্বই পুরসভার তরফে পরিদর্শন করা হলেও কোনওরকম উচ্চবাচ্য করেননি সোনু। তার জেরেই সম্ভবত অভিনেতাকে এমন আইনি গেরোয় ফেলেছে বৃহন্মুম্বই পুরসভা।

Web Title: Bombay hc dismissed sonu soods plea against bmc notice for illegal construction

Next Story
‘পেত্নি’, ‘কুৎসিত’! কদর্য আক্রমণ শ্রুতি দাসকে, বর্ণ বিদ্বেষের শিকার টেলি অভিনেত্রীShruti Das
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com