বড় খবর

অভিযোগ পাল্টা অভিযোগে বিপর্যস্ত টলিপাড়া, বন্ধ শুটিং

বিশ বাঁও জলে শুটিং। দর্শকদের পুরোনো পর্বই দেখতে হতে পারে কিছুদিন। চ্যানেল জানিয়েছে, এই সমস্যার সমাধান না মিললে শোয়ের সংখ্যা অর্ধেক করে দেওয়া হবে। প্রযোজকদের সঙ্গে শিল্পীদের এই সরাসরি সংঘাত প্রকাশ্যে এল অনেকদিন পর।

আপাতত অধরা সমাধান সূত্র। বিশ বাঁও জলে শুটিং।

শনিবার থেকে চলা বাংলা মেগা সিরিয়ালের শুটিংয়ের অচলাবস্থা কাটাতে বারবার আলোচনায় বসেও সুরাহা হয়নি। চ্যানেল কর্তৃপক্ষ এবং প্রযোজকরা আলোচনা করে সোমবার থেকে রিপিট টেলিকাস্ট করার সিন্ধান্ত নিয়েছেন। শেষমেষ সোমবার সাংবাদিক সম্মেলন করল ফোডারেশন অফ সিনে টেকনিশিয়ানস এ্যান্ড ওয়ার্কার্স অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়া। তাদের অভিযোগ, প্রযোজক সংগঠন WATP মৌ-এ স্বাক্ষরিত কোন চুক্তিই মানছে না। একবার দেখে নেওয়া যাক আর্টিস্ট ফোরামের কী সেই পাঁচদফা দাবি:

আর্টিস্ট ফোরামের দাবীর তালিকা

তবে এই মৌ অর্থাৎ মেমোরানডাম অফ আন্ডারস্ট্যান্ডিং প্রথম মাস থেকেই মানা হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছে সিনে ফেডারেশন। ১৫ অগাস্ট ছুটি থাকায় টাকা পাননি তাঁরা, তবে ১৭ তারিখ হয়ে গেলেও সেই বকেয়া দেওয়া হয় নি। এরপরই কার্যত আন্দোলনের পথে। ফ্লোরে অভিনেতারা মেকআপ করে রেডি থাকলেও চেক না পেলে তাঁরা কাজ শুরু করবেন না, সাফ জানিয়ে দেন। এরপরেই বন্ধ হয়ে যায় শুটিং। দুপক্ষেরই দাবি, অপর পক্ষের জন্যই বন্ধ হয়েছে কাজ।

আরও পড়ুন, অধরা সমাধানসূত্র, কাজ বন্ধ মেগা সিরিয়ালের

আর্টিস্ট ফোরামের কার্যনির্বাহী সভাপতি ও অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ”শিল্পীরা তো তাঁদের শ্রমের মূল্য চাইছেন। সেটা না পেলে কাজ করবেন কী করে?” তিনি এও বলেন, “আমরা প্রযোজকদের সঙ্গে এক টেবিলে বসতে চাই। একটা সমাধান সূত্র বার করাটা জরুরী।” তবে আর্টিস্ট ফোরামের সাধারণ সম্পাদক ও অভিনেতা অরিন্দম গঙ্গোপাধ্যায় জানিয়েছেন, প্রযোজকরা যেটাকে ওভারটাইম বলছেন, সেটা আসলে প্রো-রেটা। যা শিল্পীরা পাচ্ছেন না।

এদিন সাংবাদিক বৈঠক চলাকালীনই প্রযোজক সংস্থার তরফে খবর এলো, তাঁরাও সাংবাদিকদের মুখোমুখি হবেন। সেখানে উপস্থিত ছিলেন টেলিভিশনের সমস্ত প্রযোজকরা। শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মসের কর্ণধার মহেন্দ্র সোনি বলেন, “টাকা দিতে কয়েকদিন দেরী হলে আর্টিস্ট ফোরামকে মেল করে জানাতে হচ্ছে যে টাকা নেই। প্রযোজকের কাছে সেটা অসম্মানের। তাহলে যখন ১০ ঘন্টার বদলে ২ ঘন্টা শুটিং হলেও পুরো দিনের প্রারিশ্রমিকটা দিয়ে দিই সেটা দেব না তো?”

আরও পড়ুন, বাংলা সিরিয়াল আপাতত বন্ধই থাকছে, স্পষ্ট বোঝা গেল প্রসেনজিতের বক্তব্যে

প্রযোজকদের তরফে আরও জানানো হয়, “কিছুদিন শুটিং করার পরই অনেকে টাকা ধার চান, তখন সাহায্য করব না তাহলে।” আর এই ১৪ ঘন্টা সময়টা ঠিক কখন শুরু হবে তা আর্টিস্ট ফোরাম বলে দেননি। কোনও মৌ স্বাক্ষরিত হয়নি বলেও দাবি করেন তারা। যেটা হয়েছিল তা ‘মিনিটস অফ দ্য মিটিং’। যেদিন থেকে শিল্পীরা শুটিং বয়কট করেছেন সেদিন থেকেই সেই মধ্যস্থতা বাতিল হয়ে যায়। WATP আর্টিস্ট ফোরামের সঙ্গে আলোচনাতেও বসতে রাজি। কিন্তু সমস্যা সমাধানের জন্য নিরপেক্ষ মতামত প্রয়োজন, যা পাওয়া যাচ্ছেনা।

তবে আপাতত অধরা সমাধান সূত্র। বিশ বাঁও জলে শুটিং। দর্শকদের পুরোনো এপিসোডই দেখতে হতে পারে কিছুদিন। চ্যানেলগুলি জানিয়েছে, এই সমস্যার সমাধান না মিললে শোয়ের সংখ্যা অর্ধেক করে দেওয়া হবে। মঙ্গলবার সকালে নজরুল মঞ্চে আর্টিস্ট ফোরামের মিটিংও চলবে। কিন্তু প্রযোজকদের সঙ্গে শিল্পীদের এই সরাসরি সংঘাত প্রকাশ্যে এল অনেকদিন পর।

Get the latest Bengali news and Entertainment news here. You can also read all the Entertainment news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Clash between producers and artists celebrities denied to shoot

Next Story
সৃজিতের ‘গুমনামি বাবা’ প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়prsenjit srijit
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com