scorecardresearch

বড় খবর

৮৩’র বিশ্বজয়ের আগেই জগদ্বিখ্যাত প্রকাশ পাড়ুকোন, বাবার বায়োপিক বানাচ্ছেন দীপিকা

বাবা প্রকাশ পাড়ুকোনের বায়োপিকের প্রযোজনা করছেন অভিনেত্রী নিজেই।

Deepika Padukone, Prakash Padukone, Prakash Padukone’s biopic, দীপিকা পাড়ুকোন, প্রকাশ পাড়ুকোন, bengali news today
দীপিকা পাড়ুকোন, প্রকাশ পাড়ুকোন

মেয়ে দীপিকা পাড়ুকোন (Deepika Padukone) এখন সুপারস্টার। দেশের গণ্ডী পেরিয়ে আন্তর্জাতিক ময়দানেও তাঁর জনপ্রিয়তার সংখ্যা নেহাত কম নয়। তবে বাবা প্রকাশ পাড়ুকোন কিন্তু ভারতকে দশক কয়েক আগেই আন্তর্জাতিক মানচিত্রে খ্যাতির শীর্ষে পৌঁছে দিয়েছিলেন তাঁর স্পোর্টসম্যান স্পিরিটের মাধ্যমে। ব্যাডমিন্টন চ্যাম্পিয়ন প্রকাশের উজ্জ্বল কেরিয়ারের নেপথ্যে স্ট্রাগলের গল্পও রয়েছে, যা কিনা হার মানাবে সিনেমার চিত্রনাট্যকেও। আর সেই প্রেক্ষিতেই বাবার স্পোর্টস কেরিয়ারের গল্প মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে আগ্রহী দীপিকা পাড়ুকোন। অতঃপর প্রকাশ পাড়ুকোনের বায়োপিক যে প্রযোজক-অভিনেত্রী কন্যার বাকেট লিস্টে রয়েছে, তা এবার প্রকাশ্যে জানিয়েই দিলেন তিনি।

সম্প্রতি সাইরাস ব্রোচার সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে বাবা প্রকাশ পাড়ুকোনকে (Prakash Padukone’s Biopic) নিয়ে মুখ খুলেছিলেন দীপিকা পাড়ুকোন। সেখানেই বাবার ব্যাডমিন্টন কেরিয়ারে স্ট্রাগল পিরিয়ড প্রসঙ্গে মুখ খোলেন তিনি। তরুণ বয়সে যখন প্রকাশ পাড়ুকোন প্রশিক্ষণ নিতেন, তখন কতটা চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হয়েছিল তাঁকে, আন্তর্জাতিক ময়দানে দেশকে কীভাবে গর্বিত করেছিলেন, সাক্ষাৎকারে সেই কথাও জানান।

দীপিকা জানান, বাবা প্রকাশ পাড়ুকোনের বায়োপিকের কথা অনেক দিন থেকেই তাঁর মাথায় ঘুরছে। অভিনেত্রীর কথা, “হ্যাঁ, ইতিমধ্যেই বায়োপিকের আমি কাজ শুরু করে দিয়েছি। ১৯৮৩ সালে যখন ভারতের ক্রিকেট টিম বিশ্বকাপ জিতেছিল, তারও বছর দুয়েক আগে ১৯৮১ সালে আন্তর্জাতিক ময়দানে ভারতের হয় বিশ্বসেরার খেতাব জিতেছিলেন বাবা প্রকাশ পাড়ুকোন। সেই দিক থেকে দেখতে গেলে, বাবা বিশ্বকাপ জেতার আগেই গ্লোবাল স্টার হয়ে উঠেছিলেন।”

প্রসঙ্গত, ভারতীয় অ্যাথলিটদের মধ্যে সর্বপ্রথম প্রথম প্রকাশ পাড়ুকোনও ক্রীড়া ময়দানে বিশ্বজয়ের খেতাব এনে দিয়েছিল দেশকে। কথা প্রসঙ্গে দীপিকা এও জানান যে, “তরুণ বয়সে বাবা যখন প্রশিক্ষণ নিতেন তখনও অনেক প্রতিকূলতার সম্মুখীন হতে হয়েছে তাঁকে। দেশের তখন খেলাধূলা নিয়ে বিশেষ কেউ মাথা ঘামাতেন না। তাই উন্নত পরিকাঠামোও ছিল না। বিয়ের ভবনগুলোতে প্র্যাকটিস করতে যেতে হত বাবাকে। ওটাই তাঁর কাছে ব্যাডমিন্টন কোর্ট ছিল। আসলে প্রতিকূলতাকে জয় করেই সমস্ত অসুবিধেগুলোকে নিজের হাতিয়ার বানিয়ে নিয়েছিলেন। আজকে দেশে ক্রীড়াব্যক্তিত্বরা যেমন সুবিধে পান, বাবা যদি সেই সময়ে পেতেন, তাহলে আজকে আরও অনেক উন্নত জায়গায় থাকতেন।” প্রকাশ পাড়ুকোনের সোনায় মোড়া কেরিয়ারের নেপথ্যে এমন স্টাগলের কথা তুলে ধরতেই বাবার বায়োপিক বানাতে চান দীপিকা। প্রযোজনা করবেন নিজেই।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Entertainment news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Deepika padukone working on dad prakash padukones biopic