বড় খবর

রাত পোহালেই ‘চুপিসারে’ বিয়ে, দ্বিতীয়বার সাত পাকে বাঁধা পড়তে চলেছেন দিয়া মির্জা

পাত্রটি কে জানেন?

dia

সাহিল সঙ্ঘীর সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের অধ্যায় অতীত। ফের একবার বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন দিয়া মির্জা (Dia Mirza)। সূত্রের খবর, ১৫ ফেব্রুয়ারি অর্থাৎ, সোমবারই বলিউড অভিনেত্রী জীবনে দ্বিতীয়বারের জন্য সাত পাকে বাঁধা পড়তে চলেছেন। পাত্রকে অবশ্য এযাবৎকার পাপারাজ্জিদের লেন্সের আড়ালেই রেখেছিলেন দিয়া। তবে এবার আর কোনওরকম লুকোচুপি নয়! নতুন জীবন শুরু করার আগে হবু বর ও তাঁর পরিবারের সঙ্গে খোলাখুলিই আনন্দের জোয়ারে ভেসেছেন ‘রেহনা হ্যায় তেরে দিল মে’ খ্যাত নায়িকা।

৩৯ ভছর বয়সি নায়িকার ফের একবার বিয়ের খবর ছড়িয়ে পড়তেই বলিউড ইন্ডাস্ট্রির অন্দরে শোরগোন পড়ে গিয়েছে। সাহিলের সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের পরই মুম্বইয়ের খ্যাতনামা ব্যবসায়ী বৈভব রেখির সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক গড়ে ওঠে। কিন্তু কোনওদিনই এই দ্বিতীয় সম্পর্ককে প্রকাশ্যে নিয়ে আসেননি দিয়া মির্জা। তবে অনুরাগীদের অবাক করে দিয়ে একেবারে বিয়ের আগের দিনই পাত্রের সঙ্গে আলাপ করালেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘটা করে বৈভবের সঙ্গে ছবিও শেয়ার করেছেন।

ঘনিষ্ঠ সূত্রের খবর, কোনওরকম আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠান নয়। একেবারে ছিমছামভাবেই ঘরোয়া অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বিয়ে সারবেন দিয়া এবং বৈভব। সাক্ষী থাকবেন দুই পক্ষের আত্মীয়-স্বজন এবং ঘনিষ্ঠ বন্ধুবান্ধবরা।

দিয়া এবং বৈভব অবশ্য একে-অপরের সম্পর্ক নিয়ে প্রকাশ্যে মুখ খোলেননি। তবে নায়িকার বান্ধবী পূজা দাদলানির ইনস্টা অ্যালবাম দেখে নেটজনতার আর বুঝতে বাকি থাকেনি! দিয়া এবং বৈভবের ছবি শেয়ার করে তাঁদের উদ্দেশে পূজা লেখেন, “আমাদের পাগল পরিবারে তোমাকে স্বাগত, সকলে তোমাকে খুব ভালোবাসি।” এই পোস্টের কমেন্ট বক্সে লাভ ইমোজি দিয়ে পূজার প্রতি পালটা ভালোবাসা উজার করে দিতে দেখা গেল দিয়াকেও।

উপরন্তু পার্টির শেষেও হবু কনে দিয়া পাপারাজ্জিদের লেন্সবন্দি হয়েছেন। ক্যামেরার উল্টোদিক থেকে যখন শুভেচ্ছাবার্তা ভেসে আসছিল, তখন লজ্জায় লাল হতে দেখা যায় দিয়া মির্জাকে। প্রযোজক সাহিল সঙ্ঘীর সঙ্গে বিচ্ছেদের বছর দুয়েকের মাথাতেই ফের বিয়ের পিঁড়িতে বলিউড অভিনেত্রী দিয়া মির্জা।

Web Title: Dia mirza is all set to start her new life with beau

Next Story
বাস্তবের মিশেলে নারীর ক্ষমতায়নের গল্প বলবেন ঋতুপর্ণা, সঙ্গী শাশ্বত ও পরমব্রতrituparna
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com