সিনেমা রিভিউ: থ্রিলারে মোড়া মানবিকতার গল্পই গুডনাইট সিটি

এ ছবিতে সবাইকে ছাপিয়ে গিয়েছেন একজনই, তিনি ঋত্বিক চক্রবর্তী। এ ছবি আসলে তাঁরই। ছবির প্রথম থেকে শেষ, অভিমন্যুর থেকে চোখ সরাতে পারবেন না দর্শকরা।

By: Kolkata  Updated: May 26, 2018, 04:38:14 PM

ছবি: গুডনাইট সিটি
অভিনয়: ঋত্বিক চক্রবর্তী, ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়, পায়েল সরকার
পরিচালনা: কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায়
রেটিং: ২.৫/৫

শহর ঘুমোতে যায় গুডনাইট বলে। কিন্তু সব নাইট কি গুড হয়? রাতের আঁধারের মতো আপনার-আমার মনের গহ্বরে যে কত অন্ধকার লুকিযে রয়েছে, তার হদিশ রাখেন ক’জন? তেমনই এক ‘রাত’ কে লাইট-সাউন্ড-ক্যামেরা-অ্যাকশনে বেঁধেছেন কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায়। গুডনাইট সিটির হাত ধরে এ রাত যেমন থ্রিলারের স্বাদ দেবে, তেমনই দেখাবে এক মানবিক মুখ।

goodnight city শুক্রবার ছবির প্রিমিয়ারে ঋতুপর্ণা, শাশ্বত, অরুণিমারা। ছবি: আই ই বাংলা, সৌরদীপ সামন্ত।

সারাদিন খাটা-খাটনির পর বাড়ি ফিরেছেন মনস্তত্ত্ববিদ আভেরি চট্টোপাধ্যায় (ঋতুপর্ণা)। ডিনার সেরে আর চার-পাঁচজন দম্পতির মত সবে অন্তরঙ্গ হয়েছেন আভেরি ও ঋষি (শাশ্বত)। এবার তো ঘুমোনোর সময়? না, ঠিক তখনই বেজে উঠল টেলিফোন। পুলিশে কর্মরত স্বামীর বারণ না শুনেই পেশাদারিত্বের খাতিরে হ্যালো বলেই ফেললেন আভেরি। তারপর? অচেনা এক পুরুষ কণ্ঠের সঙ্গে শুরু হল তাঁর কথোপকথন। নিজের প্রেমিকা ও বাবাকে খুন করেছেন, ফোনের ওপার থেকে এল অভিমন্যু মিত্রের (ঋত্বিক) কন্ঠস্বর। যে কথা শুনে রাতের ঘুম উড়ে গেল আভেরির। খুনের গন্ধ নাকে আসতেই স্বভাবসিদ্ধ পুলিশি ভঙ্গিমায় ফিরলেন আভেরির স্বামী। ঋষি ভাবছেন, অভিমন্যু খুনী, তাই তাঁকে পাকড়াও করার তোড়জোড় শুরু করে দিলেন। আর আভেরি বুঝলেন, এক মানসিক রোগী বিপাকে পড়ে তাঁর দ্বারস্থ হয়েছেন। কিন্তু আদপে অভিমন্যু কে? সে কি সত্যিই খুনী নাকি স্কিৎজোফ্রেনিক রোগী? সেই সাসপেন্সই জিইয়ে রাখবে গুডনাইট সিটি।

আরও পড়ুন, কবীর রিভিউ: দুরন্ত এক্সপ্রেসের মু‌ম্বই-হাওড়া ট্রেনসফরে জোরালো চিত্রনাট্য

goodnight city শুক্রবার প্রিমিয়ারে ঋত্বিক চক্রবর্তী। ছবি: আই ই বাংলা, সৌরদীপ সামন্ত। rituparna sengupta আই ই বাংলার জন্য পোজ দিলেন ঋতুপর্ণা। ছবি: সৌরদীপ সামন্ত।

তবে এ ছবি টানটান হতে হতেও যেন হল না। থ্রিলারের বুননটা কোথাও কোথাও বড্ড আলগা লেগেছে। ফোনে আভেরির সঙ্গে অভিমন্যুর কথোপকথন ইন্টারেস্টিং লেগেছে ঠিকই, কিন্তু ফোনালাপের সময় অভিমন্যুর অতীত যেভাবে দেখানো হয়েছে, তা বড্ড বেশি দীর্ঘায়ত লেগেছে। অভিমন্যুর অতীত খুঁটিয়ে দেখাতে গিয়ে বর্তমানকে যেন খাটো করে দেওয়া হয়েছে। অতীত আর বর্তমানের মেলবন্ধন আরও জমাটি হতে পারত। ছবির দ্বিতীয়ার্ধ্বও কিছুটা সংক্ষিপ্ত কি করা যেত না?

এ ছবিতে সবাইকে ছাপিয়ে গিয়েছেন একজনই, তিনি ঋত্বিক চক্রবর্তী। এ ছবি আসলে তাঁরই। ছবির প্রথম থেকে শেষ, অভিমন্যুর থেকে চোখ সরাতে পারবেন না দর্শকরা। মনস্তত্ত্ববিদের চরিত্রে ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত যথাযথ। ঋষির চরিত্রে শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়ও ভাল। ঋত্বিকের পাশাপাশি আলাদা করে নজর কাড়বেন সৌরভ দাস। দেবজ্যোতি মিশ্রের সুর অন্য মাত্রা এনে দিয়েছে এ ছবিতে।

রোমহর্ষক ছবি দেখার ঝোঁক থাকলে, গুডনাইট সিটি না মিস করাই ভাল। আর ঋত্বিকের ফ্যানদের জন্য এ ছবি তো একেবারে আইডিয়াল।

Kamaleshwar Mukherjee, goodnight city এক রাতকে লাইট-সাউন্ড-ক্যামেরা-অ্যাকশনে বেঁধে ফেলেছেন পরিচালক কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায়। ছবি: সৌরদীপ সামন্ত। Saswata Chatterjee পুলিশ অফিসারের চরিত্রে শাশ্বতও অসাধারণ। ছবি: সৌরদীপ সামন্ত, আই ই বাংলা।

 

Get all the Latest Bengali News and West Bengal News at Indian Express Bangla. You can also catch all the Entertainment News in Bangla by following us on Twitter and Facebook

Web Title:

Goodnight city movie review rituparna sengupta bengali movie

The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com.
Advertisement

ট্রেন্ডিং