scorecardresearch

বড় খবর

‘হ্যাপি বার্থডে মানিকদা’! শিল্পীর কল্পনায় অজানালোকে মধ্যরাতের সেলফি

সত্যজিৎ রায় যেমন নেই, তেমনই তাঁর প্রিয় অভিনেতাদের বেশিরভাগই চলে গিয়েছেন অজানালোকে। শিল্পী অনিকেত মিত্র সেই অজানালোকের একটি ছবি আঁকলেন মহারাজার জন্মদিনে।

‘হ্যাপি বার্থডে মানিকদা’! শিল্পীর কল্পনায় অজানালোকে মধ্যরাতের সেলফি
বাঁদিকে শিল্পী অনিকেত মিত্রের কল্পনায় কোনও এক অজানালোকে সতজ্যিতের পৃথিবীর প্রয়াত কিংবদন্তিদের বার্থডে সেলফি।

আসলে তিনি তো শুধু পরিচালক নন, তিনি বাঙালির একটা সেন্টিমেন্ট। সাহিত্য, সিনেমায় তাঁর অবদানের কথা নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না। সে সব বাদ দিলেও সত্যজিৎ রায়ের ছবি, তাঁর লেখা অসংখ্য মানুষের রুচি-পছন্দ, জীবনযাপনের ধরনকেও একটি নির্দিষ্ট ছন্দে বেঁধে দিয়েছে। তাই তাঁর জন্মদিন নিয়ে মানুষ যে আবেগপ্রবণ হবেন তা বলাই বাহুল্য। সেই আবেগ থেকেই শিল্পী অনিকেত মিত্র এঁকেছেন একটি ছবি যা একটি অসাধারণ কল্পনাকে প্রাণ দিয়েছে।

ধরা যাক কোনও এক অজানালোক রয়েছে যা পৃথিবীর বাইরে। এই অজানালোকে কোনও ধর্ম নেই, কাঁটাতার নেই। এটা হল সেই স্রষ্টা এবং শিল্পীদের অবাধ বিচরণক্ষেত্র যাঁরা মানবসভ্যতাকে তাঁদের কাজ দিয়ে কোনও না কোনওভাবে সমৃদ্ধ করেছেন। সেই অজানালোকে গিয়েছেন উত্তমকুমার, উৎপল দত্ত, ছবি বিশ্বাস, রবি ঘোষ থেকে শুরু করে বাঙালির যত প্রিয় অভিনেতা। আর সেখানেই রয়েছেন মর্ত্যলোক ও অজানালোকের সকলের প্রিয় মানিকদা।

আরও পড়ুন: ‘শঙ্কুর অভিনয় করার সময় আমাকে সাহায্য করেছে সত্যজিতের ব্যক্তিসত্তা’

শিল্পী অনিকেত মিত্র এঁকেছেন এমন একটি ছবি যা হল সেই অজানালোকে সত্যজিতের জন্মদিনের সেলিব্রেশন সেলফি। মর্ত্যলোকের সব আপডেটই তো পৌঁছয় সেখানে, কল্পনায় এভাবে ভাবতে ক্ষতি কী? তাই ২০২০-তে জন্মদিন পালন মানে একটি সমবেত সেলফি তো অবশ্যই নিতে হবে। আর সেই সেলফিটি তুলছেন ভারতীয় সিনেমা ও সঙ্গীতজগতের বিস্ময়প্রতিভা কিশোরকুমার।

সত্যজিৎ রায়ের ছবিতে তাঁর গান একাধিকবার ব্যবহৃত হয়েছে। আর সেলফিতে যাঁরা পোজ দিয়েছেন তাঁদের মধ্যে বার্থডে বয় ছাড়াও রয়েছেন সন্তোষ দত্ত, হারীণ চট্টোপাধ্যায়, উত্তমকুমার, উৎপল দত্ত, ছবি বিশ্বাস, তুলসী চক্রবর্তী, রবি ঘোষ… সত্যতিজের পৃথিবীর সেই সব অভিনেতারা যাঁরা আর আমাদের মধ্যে নেই। এমনকী একটু পিছন দিকে রয়েছেন আমজাদ খান ও সঞ্জীব কুমারও। তাঁরা যেন সবাই মিলে ২ মে মধ্যরাতেই উদযাপন করেছেন সত্যজিতের জন্মদিন– এভাবেই ছবিটি এঁকেছেন অনিকেত।

ভিস্যুয়াল আর্টিস্ট অনিকেত মিত্র বলিউডে কাজ করছেন বিগত কয়েক বছর ধরে। বর্তমানে রয়েছেন অক্ষয়কুমার-অভিনীত ‘পৃথ্বীরাজ’ ছবির ইউনিটে। তাঁর আঁকাতেই চিত্রনাট্যের ভিস্যুয়াল রিপ্রেজন্টেশন হয়েছে। সেই ছবিগুলিকে রেফারেন্স করেই তৈরি হবে সিনেমাটি। মামুটি-র ছবি ‘মামঙ্গম’-এর অ্যাকশন দৃশ্যের প্রি-প্রোডাকশন আর্টওয়ার্ক তাঁর করা। পেশাগত কাজের পাশাপাশি সামাজিক বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে ছবি আঁকেন অনিকেত। ইরফান খান ও ঋষি কাপুরকে শ্রদ্ধা জানিয়েও সম্প্রতি এঁকেছেন দুটি ছবি। বিশেষ করে ইরফানের ছবিটি বুঝিয়ে দেয় শিল্পীর গভীর মননকে, সেখানে তিনি বাংলার আর এক সর্বজনশ্রদ্ধেয় পরিচালককে এনেছেন।

Aniket Mitra's tribute to late Irrfan Khan and Rishi Kapoor
প্রয়াত ইরফান খান ও ঋষি কাপুরকে অনিকেত মিত্রের শ্রদ্ধার্ঘ।

সত্যজিৎ রায়ের জন্মশতবর্ষের সূচনায় অনিকেত মিত্রের আঁকা এই বার্থডে সেলফি ছবিটিকে অন্য মাত্রা দিয়েছে সুকুমার রায়ের উপস্থিতি। ছেলের বিশ্বজয় তাঁর দেখা হয়নি মর্ত্যলোকে কিন্তু অজানালোকে বসে তিনি সবই দেখেছেন নিশ্চয়ই। তাই অন্য কিংবদন্তিরা যখন জন্মদিন আয়োজন করছেন সেই অজানালোকে, তখন তাঁকে তো আসতেই হবে সমবেত অনুরোধে। আর সব অতিথির আপ্যায়নে ঠিক যেভাবে কোনও ত্রুটি রাখতেন না বিজয়া রায়, এখানেও নিশ্চয়ই কোনও ত্রুটি রাখেননি। ছবির বাঁদিকে নেপথ্যনায়িকার মতো তিনি রয়েছেন, যেমন করে সারা জীবন থেকেছেন।

আরও পড়ুন: মে দিবসের উইকএন্ডে দেখতে পারেন এই ৫টি ওয়েব সিরিজ

নিশ্চয়ই এই পার্টির আয়োজনে তার আগে কামু মুখোপাধ্যায় বউদিকে সাহায্য করেছেন আর খুশি হয়ে প্রিয় দেওরকে আরও একবার ‘সাইলেন্সার দেওয়া বিস্কুট’ খাইয়েছেন বিজয়া রায়। আর অপেক্ষাকৃত কম বয়সী যাঁরা, তাঁরাই যেহেতু আয়োজন করেছেন জন্মদিনের এই ইভেন্ট, তাই জন্মদিনের ডেকরেশনে লেখা হয়েছে ‘হ্যাপি বার্থডে মানিকদা’!

কালোত্তীর্ণ স্রষ্টা এবং শিল্পীরা এভাবেই অমর হয়ে থাকেন নতুন প্রজন্মের শিল্পীদের উদ্বুদ্ধ করে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Entertainment news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Rays birthday selfie late legends of satyajit rays world celebrating his birthday artwork tribute by aniket mitra