গুজরাটের ফলের পর 'জাতীয় দল'-এর মর্যাদা পেতে চলেছে আপ, কীভাবে?: AAP set to become a national party | Indian Express Bangla

Explained: গুজরাটের ফলের পর ‘জাতীয় দল’-এর মর্যাদা পেতে চলেছে আপ, কীভাবে?

আপ হতে চলেছে নবম জাতীয় দল।

Explained: গুজরাটের ফলের পর ‘জাতীয় দল’-এর মর্যাদা পেতে চলেছে আপ, কীভাবে?

গুজরাটের ফলের পর ‘জাতীয় দল’-এর মর্যাদা পেতে চলেছে আম আদমি পার্টি। গুজরাটে সাত ঘণ্টা গণনার পর আপ এগিয়ে ছিল মাত্র পাঁচ আসনে। কিন্তু, তাদের ভোটপ্রাপ্তির পরিমাণ ছিল ১৩%। যার অর্থ, আপ এখন সর্বভারতীয় দলের মর্যাদা পেতে চলেছে। ভোটের পর এজন্য গুজরাটবাসীকে ধন্যবাদ দিয়েছেন আপ সুপ্রিম অরবিন্দ কেজরিওয়াল। শুধু তাই নয়, তাঁর আগামী লক্ষ্য গোটা দেশ। একথা বুঝিয়ে দিয়ে কেজরিওয়াল অভিনন্দন জানিয়েছেন সমগ্র দেশবাসীকেও।

জাতীয় দল কী?
কংগ্রেস এবং বিজেপির মত দেশের বড় দলগুলো জাতীয় দল হিসেবে গণ্য হয়। কমিউনিস্ট পার্টির মত কিছু ছোট দলও জাতীয় দলের মর্যাদা পেয়ে থাকে। আসলে জাতীয় দল হওয়ার সঙ্গে একটা মর্যাদার ব্যাপার জড়িত। কারণ, জাতীয় দলের অর্থই হল গোটা ভারতজুড়ে যার প্রভাব রয়েছে। আঞ্চলিক দলের মত একটি নির্দিষ্ট রাজ্যে সেই প্রভাব সীমাবদ্ধ নয়। নির্দিষ্ট রাজ্যে আঞ্চলিক দলের যতই প্রভাব থাকুক না-কেন, সেই দল সর্বভারতীয়স্তরে মর্যাদা পায় না।

কখন জাতীয় দলের তকমা মেলে?
নির্বাচন কমিশন একটি দলকে জাতীয় দলের স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য মানদণ্ড নির্ধারণ করেছে। একটি দল সেই মানদণ্ডের বিচারে জাতীয় দলের মর্যাদা লাভ করতে পারে। অথবা হারাতেও পারে। মানদণ্ডের শর্ত পূরণের ওপর তা নির্ভর করে।

জাতীয় দলের তকমা পাওয়ার শর্ত–
নির্বাচন কমিশনের রাজনৈতিক দল এবং নির্বাচনী প্রতীক, ২০১৯-এর বিধি অনুযায়ী একটি রাজনৈতিক দল জাতীয় দল হিসেবে বিবেচিত হবে যদি-
১) এটি চার বা তার বেশি রাজ্যে ‘স্বীকৃত’ হয়।

২) যদি দলটির প্রার্থীরা গত লোকসভা বা বিধানসভা নির্বাচনে যে কোনও চার বা ততোধিক রাজ্যে মোট বৈধ ভোটের কমপক্ষে ৬% ভোট পেতে পারেন। গত লোকসভা নির্বাচনে দলটির যদি কমপক্ষে চারজন সাংসদ থাকেন।

৩) যদি দলটি তিনটি রাজ্যের লোকসভা আসনের ২% জিততে পারে।

রাজ্যভিত্তিক দলের তকমা পাওয়ার শর্তের মধ্যে রয়েছে-

১) গত বিধানসভা নির্বাচনে কমপক্ষে ২ জন বিধায়ক থাকতে হবে। গত বিধানসভা নির্বাচনে কমপক্ষে ৬% শতাংশ ভোট পেতে হবে। অথবা কোনও নির্দিষ্ট রাজ্য থেকে গত লোকসভা নির্বাচনে ৬% ভোট পেতে হবে। অথবা ওই রাজ্য থেকে থেকে অন্তত একজন সাংসদ থাকতে হবে।

২) গত বিধানসভা নির্বাচনে মোট আসনের ৩% পেতে হবে। অথবা তিনটি আসন পেতে হবে।

৩) অন্ততপক্ষে একজন সাংসদ থাকতে হবে।

৪) গত বিধানসভা অথবা লোকসভা নির্বাচনে কোনও রাজ্যের মোট বৈধ ভোটের অন্তত ৮% পেতে হবে।

আপ কেন এই মর্যাদা পাবে?
দিল্লি এবং পাঞ্জাবে আপ ইতিমধ্যেই বিরাট সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায়। গত মার্চে অনুষ্ঠিত গোয়া বিধানসভা নির্বাচনে আপ ৬.৭৭% ভোট পেয়েছে। গুজরাট, হিমাচল প্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার আগেই আপ ইতিমধ্যেই তিনটি রাজ্যের রাজ্যদল হিসেবে স্বীকৃতির মানদণ্ড পূরণ করেছে। এখন চতুর্থ রাজ্যে স্বীকৃতি পেতে হিমাচল বা গুজরাটের বিধানসভা নির্বাচনে ৬% ভোট প্রয়োজন। যা আপকে জাতীয় দল হিসেবে স্বীকৃতি দেবে। আপ হিমাচলে মাত্র ১% ভোট পেয়েছে। কিন্তু, গুজরাটে তারা প্রায় ১৩% ভোট পেয়েছে। পাঁচ জন বিধায়ক পেয়েছে। যা রাজ্য দল হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ার জন্য আপের যা প্রয়োজন ছিল, তার দ্বিগুণেরও বেশি। এর ফলে আপ চারটি রাজ্যের রাজ্যদলে পরিণত হয়েছে। আর, তার জেরেই পেতে চলেছে জাতীয় দলের তকমা।

আরও পড়ুন- ভোটের প্রায় আগেই এতবড় দুর্ঘটনা, তবুও মোরবি সায় দিল বিজেপিতেই

অন্য জাতীয় দল কোনগুলো?
এখনও পর্যন্ত নির্বাচন কমিশন আটটি দলকে জাতীয় দল হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। সেই দলগুলো হল- বিজেপি, কংগ্রেস, তৃণমূল কংগ্রেস, সিপিআই(এম), সিপিআই, জাতীয়তাবাদী কংগ্রেস পার্টি (এনসিপি), বহুজন সমাজ পার্টি (বিএসপি) এবং কনরাড সাংমার ন্যাশনাল পিপলস পার্টি ( NPP)। এই স্বীকৃত ২০১৯ সালে আপ দিয়েছিল। গুজরাট নির্বাচনের পর আপ নবম দল হিসেবে জাতীয় দলের স্বীকৃতি পাবে।

Read full story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Explained news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Aap set to become a national party

Next Story
Explained: কাজ দিল না মোদী ম্যাজিক, হাতের হাতছানিতে হিমাচলে তছনছ পদ্মবন, কিন্তু কেন?