বড় খবর

দেশে আক্রান্ত কমলেও কেন সর্বোচ্চ হারে বাড়ছে মৃত্যু?

দু’সপ্তাহের ব্যবধানে পরিসংখ্যান বলছে উল্টো। আক্রান্ত কমলেও বাড়ছে মৃত্যু। এ যেন ব্যস্তানুপাতিক গতি।

corona death, covid death
ফাইল চিত্র

India coronavirus numbers explained: সোমবার ফের রেকর্ড তৈরি দেশে। আবারও মৃত্যুতেই। দেশের নিরিখে নয় বিশ্বের নিরিখে রেকর্ড পার করছে অতিমারি সৃষ্টিকারী করোনাভাইরাস। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রক যে পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে সেখানে দেখা গিয়েছে একদিনে ভারতে করোনা কোপে প্রাণ গিয়েছে ৪ হাজার ৩৯৯ জনের।

কোভিড আক্রান্ত পৃথিবীর মৃত্যু রেকর্ডে এই সংখ্যা এখনও পর্যন্ত সর্বোচ্চ। ১১ মে অর্থাৎ ৭ দিন আগে মৃত্যু ছিল ৪ হাজার ২০৫। যা সেই সময় অনুযায়ী সর্বোচ্চ ছিল। কিন্তু প্রশ্ন জাগছে অন্য ক্ষেত্রে। গত কয়েকদিনে ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা বেশ কিছুটা কমেছে। সাধারণ হিসেব মতো মৃত্যু সংখ্যাও কমার কথা। কিন্তু দু’সপ্তাহের ব্যবধানে পরিসংখ্যান বলছে উল্টো। আক্রান্ত কমলেও বাড়ছে মৃত্যু। এ যেন ব্যস্তানুপাতিক গতি।

আরও পড়ুন, কোভিড রোগীদের অন্ধ করে দিচ্ছে ‘ব্ল্যাক ফাঙ্গাস’! কেন এই রোগ হচ্ছে?

ভয়ের কথা একটাই যে আগামী দিনে এই সংখ্যা হয়তো আরও কিছুটা বাড়বে। কারণ দেশের বেশ কিছু রাজ্যে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে মৃত্যুহার বৃদ্ধির খবর আসছে। মহারাষ্ট্রে সোমবার মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ১৯ জনের। শনিবার থেকে সোমবারের মধ্যে মারা গিয়েছেন ২৮৯ জন। এক সপ্তাহ আগে এই সংখ্যা ছিল ২২৭। এর আগের সপ্তাহে মৃত্যু হয়েছিল ৮৪৮ জনের। অথচ যে হারে বাড়ছে মৃত্যু তেমনটা হওয়ার কথা নয়। এটা জীবনের নয়, খাতা কলমের হিসেব!

অন্যান্য রাজ্যেও পরিস্থিতি এক। তবে হিসেবেও ভুল থাকছে। মার্চের মৃত্যু নথিভুক্ত হয়েছে এপ্রিলে এমনটা দেখা গিয়েছে কর্ণাটকে। মহারাষ্ট্রেও তেমন গড়মিল রয়েছে। এই মুহূর্তে, পাঁচটি রাজ্য – মহারাষ্ট্র, কর্ণাটক, দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ এবং তামিলনাড়ু – প্রতিদিন গড়ে কমপক্ষে ৩০০ জনের মৃত্যু হচ্ছে। উত্তরাখণ্ডের মতো অপেক্ষাকৃত ছোট একটি রাজ্যে ২২৩ জন মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে ৮০ জনের মৃত্যু হয়েছে নথিভুক্ত সময়ের আগে।

আরও পড়ুন, কেন Covid-19 টিকা নেওয়ার পরও সংক্রমণ হচ্ছে?

পরিসংখ্যানের দিক এপ্রিল কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউয়ের সবচেয়ে মারাত্মক জীবন কাড়ক মাস হিসেবে চিহ্নিত থাকবে। ৬৬ হাজার ৮৬৬টি মৃত্যু দেখেছে এই মাসটি। শুধু মৃত্যু নয় সংক্রমণের বাড়বাড়ন্তের দিক থেকেও। ৭০ লক্ষ করোনা আক্রান্ত হয়েছে এই মাসে। তাই কবি এলিয়েটের উক্তি নিয়ে বলা যায় ‘April is the cruellest month’।

প্রতিদিন শ্মশান উঠছে ভরে। কবরে মৃতের স্তুপ। শবদেহ ভেসে আসছে গঙ্গায়। কোথাও নদীর পাশেই স্তরে স্তরে জমে শবস্তুপ। পরিজন হারানোর বেদনায় ভারী বাতাস। মৃত্যু কেড়ে নিচ্ছে ভালবাসা, ভাললাগার প্রিয়জনদের। বিশ্ব কবির কথায়, “পাঁজর উঠিল কেঁপে/ বক্ষে হাত চেপে/ শুধালেম, “আরো কিছু আছে নাকি?/ আছে বাকি, শেষ বজ্রপাত?”

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Get the latest Bengali news and Explained news here. You can also read all the Explained news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Coronavirus india covid 19 caseload is going down why death are spiking

Next Story
একের পর এক রকেট ধ্বংস করছে অদৃশ্য বলয়! ইজরায়েলের Iron Dome নিয়ে কৌতূহল তুঙ্গেIron Dome, Israel
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com