দুর্গাপুজোয় আয়কর নোটিস: রাজ্যে তৃণমূল-বিজেপির নয়া দ্বন্দ্ব

এক উদ্যোক্তার মতে, ধর্মীয় উৎসব পালন করার ক্ষেত্রে কোনও পুজো কমিটি আয়কর দিতে বাধ্য নয় এবং যাদের কাছ থেকে টিডিএস কাটতে বলা হচ্ছে, তাঁদের অনেকেই অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিক, এবং প্যান কার্ডও নেই তাঁদের।

By: Santanu Chowdhury Kolkata  Published: August 15, 2019, 1:58:06 PM

অক্টোবর মাসে দুর্গা পুজো। তার আগে রাজ্যে তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে কয়েকটি পুজো কমিটিকে আয়কর নোটিস পাঠানো নিয়ে দ্বন্দ্ব তুঙ্গে উঠেছে।

এ রাজ্যে দুর্গা পুজো সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব। বিভিন্ন পুজো কমিটি লক্ষ লক্ষ টাকা খরচ করে চোখ ধাঁধিয়ে দেয়। প্রবীণ তৃণমূল নেতা এবং রাজ্যের মন্ত্রীরা বেশ কিছু পুজো কমিটির সঙ্গে যুক্ত। কলকাতার সেরা পুজো হওয়ার জন্য তাঁদের মধ্যে স্বাস্থ্যকর প্রতিযোগিতাও চলে।

আরও পড়ুন, ১৫ অগাস্ট দিনটিতেই কেন পালিত হয় ভারতের স্বাধীনতা দিবস?

এ বছর ২০টি পুজো কমিটিকে আয়কর বিভাগ নোটিস পাঠিয়ে বলে তাদের ঠিকাদার, শিল্পী, ইলেক্ট্রিশিয়ান এ ঢাকিদের কাছ থেকে টিডিএস কাটতে। পুজো কমিটিগুলির অভিযোগ ধর্মীয় উৎসবে নাক গলানোর চেষ্টা করছে তারা।

এক উদ্যোক্তার মতে, ধর্মীয় উৎসব পালন করার ক্ষেত্রে কোনও পুজো কমিটি আয়কর দিতে বাধ্য নয় এবং যাদের কাছ থেকে টিডিএস কাটতে বলা হচ্ছে, তাঁদের অনেকেই অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিক, এবং প্যান কার্ডও নেই তাঁদের। ফলে এসব ক্ষেত্রে টিডিএস কাটা সম্ভব নয়।

বড় পুজো উদ্যোক্তারা ৩০ থেকে ৪০ লক্ষ টাকা ব্যয় করেন একটি পুজো করতে। সে টাকা তাঁরা তোলেন চাঁদা ও বিজ্ঞাপন থেকে।

এই আয়কর নোটিস পাঠিয়ে ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করছে কেন্দ্র- এ অভিযোগ তুলে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তাঁর দল তৃণমূল কংগ্রেস পুজো উদ্যোক্তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন এবং দাবি তুলেছেন আয়কর চাপানো যাবে না। কেন্দ্রের পদক্ষেেপর বিরুদ্ধে তৃণমূল ধর্নারও আয়োজন করেছে।

আরও পড়ুন, রাসবিহারী বোস: ইতিহাসে উপেক্ষিত বাঙালি স্বাধীনতা সংগ্রামী

এ ধরনের পুজো কমিটিগুলি তৃণমূলের সমর্থক হওয়ায় খুব দ্রুত আসরে নেমে পড়ে বিজেপি। তাদের অভিযোগ, বিভিন্ন চিট ফান্ড কেলেঙ্কারির মাধ্যমে যারা জনগণের টাকা লুঠ করেছে তাদের সুরক্ষা দেওয়া হচ্ছে। বিজেপি এবার তাদের বাঙালি ভাবমূর্তি রক্ষার তাগিদে দুর্গাপুজো কমিটিগুলির দখল নিতে চাইছে।

অন্যদিকে অর্থমন্ত্রকের আওতায় থাকা সিবিডিটি স্পষ্ট করে দিয়েছে দুর্গাপূজা কমিটিগুলিকে আয়কর নোটিস পাঠানো হয়েছে বলে যে তথ্য দেওয়া হচ্ছে তা ঠিক নয়। তাদের তরফ থেকে স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছে কোনও দুর্গা পূজা কমিটি ফোরামকে এ বছর কোনও নোটিস পাঠানো হয়নি। তবে একই সঙ্গে তারা এও জানিয়েছে যে ২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাসে ৩০টি পূজা কমিটিকে নোটিস পাঠানো হয়েছিল। ওই নোটিসে ঠিকাদার ও ইভেন্ট ম্যানেজারদের টিডিএস কাটার বিষয়ে জানতেও চাওয়া হয়েছিল বলে জানিয়েছে সিবিডিটি।

Read the Full Story in English

Get all the Latest Bengali News and West Bengal News at Indian Express Bangla. You can also catch all the Explained News in Bangla by following us on Twitter and Facebook

Web Title:

Durga puja income tax notice tmc bjp

The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com.
Advertisement

ট্রেন্ডিং