scorecardresearch

বড় খবর

কে ছিলেন গাঙ্গুবাঈ কাঠিয়াওয়াড়ি, কেন তাঁর বায়োপিক নিয়ে আইনি জটিলতা?

জানুন গাঙ্গুবাঈ কাঠিয়াওয়াড়ি সম্পর্কে অজনা তথ্য।

Gangubai Kathiawadi, গাঙ্গুবাঈ কাঠিয়াওয়াড়ি, আলিয়া ভাট, সঞ্জয় লীলা বনশালি, bengali news today
গাঙ্গুবাঈ কাঠিয়াওয়াড়ি

বনশালির গাঙ্গুবাঈ কাঠিয়াওয়াড়ি ছবি নিয়ে বর্তমানে চর্চার অন্ত নেই। অতিমারীর কোপে শুটিং আটকে কোটি টাকার সেট নষ্ট হওয়া থেকে শুরু করে বারবার মুক্তি পিছনো, এমনকী এই সিনেমার জন্য আইনি জটিলতাতেও ভুগতে হয়েছে পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশালি ও আলিয়া ভাটকে। যিনি কিনা এখানে গাঙ্গুবাইয়ের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন। আদতে কে ছিলেন এই গাঙ্গুবাঈ কাঠিয়াওয়াড়ি? কারা এবং কেন আপত্তি তুলেছিলেন তাঁর জীবনকাহিনী অবলম্বনে তৈরি সিনেমা নিয়ে? জানুন বিশদে।

প্রথমেই আসা যাক, গাঙ্গুবাঈ কাঠিয়াওয়াড়িয়ের পরিচয়ে। গুজরাতের প্রত্যন্ত অঞ্চলের এক মহিলা। যাঁর আসল নাম গঙ্গা হরজীবনদাস কাঠিয়াওয়াড়ি। পাঁচ কি ষাটের দশক নাগাদ মাত্র ৫০০ টাকার বিনিময়ে নিজের স্বামীর হাতে মুম্বইয়ের কুখ্যাত যৌনপল্লী কামাথিপুরাতে বিক্রি হয়েছিলেন। সেই সময়ে কামাথিপুরার ডাকসাইটে মহিলা তিনি। অনেকের কাছেই ‘মুম্বই মাফিয়া কুইন’ নামে পরিচিত। যাঁর অনুমতি ছাড়া কামাথিপুরার অন্ধকার গলিতে যেমন সূর্যের আলো ঢোকা নিষিদ্ধ ছিল, ঠিক তেমনই গাঙ্গুবাইয়ের অঙ্গুলি হেলন ব্যতীত কোনও কাক-পক্ষীর প্রবেশের উপরও নিষেধাজ্ঞা জারি ছিল। কিন্তু একদিনে এই অসাধ্য সাধন হয়নি। সেই যৌনপল্লীর গণিকাদের অধিকারের জন্য তিনিই প্রথম মুখ খুলেছিলেন।

কেন গাঙ্গুবাঈ কাঠিয়াওয়াড়ি বিখ্যাত হয়েছিলেন?

গাঙ্গুবাঈ কাঠিয়াওয়াড়ির খ্যাতনামা হওয়ার নেপথ্যের বেশ কয়েকটা কারণ হুসেন জায়েদির ‘মুম্বই মাফিয়া ক্যুইন’ বইতে লেখা রয়েছে। সমাজে গণিকাদের অধিকারের জন্য লড়া থেকে শুরু করে তাঁদের সন্তানদের শিক্ষার জন্য স্কুল-কলেজে গিয়ে কথা বলা, সমাজে যেন মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারে, সেইজন্য গাঙ্গুবাঈ একাই লড়ে গিয়েছিলেন। শুধু তাই নয়, অধিকার আদায়ও করে নিয়েছিলেন। আর তাঁর অদম্য লড়াইয়ের জন্যই রাজনৈতিক দলেও ডাক পেয়েছিলেন।

কারা এবং কেন আপত্তি তুলেছিলেন গাঙ্গুবাঈয়ের জীবনকাহিনী অবলম্বনে তৈরি সিনেমা নিয়ে?

সাতের দশকের মাঝামাঝি গাঙ্গুবাঈ কাঠিয়াওয়াড়ি মারা যান। তাঁর নিজের কোনও সন্তান ছিল না। যদিও তাঁর মৃত্যুর বেশ কয়েকজন দাবি করেছিলেন যে, তাঁদের নাকি গাঙ্গুবাই নিজে দত্তক নিয়েছিলেন। যদিও সেই সম্পর্কিত কোনও তথ্য-প্রমাণ নেই। মুম্বইয়ের এই ডাকসাইটে গণিকার জীবনকাহিনি অবলম্বনে বনশালি সিনেমা ঘোষণা করার পর থেকেই তাঁদের মধ্যে জনা কয়েক আপত্তি তোলেন। এমনকী মুক্তি আটকে দেওয়ার দাবি তুলে আদালতেও মামলা করেন। কোর্টের তরফে সমন পাঠানো হয়েছিল পরিচালক সঞ্জয়লীলা বনশালি ও আলিয়া ভাটকে। মামলাকারী দাবি করেছিলেন যে তিনি গাঙ্গুবাইয়ের দত্তক সন্তান। যদিও আদালতে তথ্য-প্রমাণাদির অভাবে সেই মামলা ধোপে টেকেনি। এবার শেষমেশ ২৫ ফেব্রুয়ারি সমস্ত প্রতিকূলতা কাটিয়ে প্রেক্ষাগৃহে আসতে চলেছে ‘গাঙ্গুবাঈ কাঠিয়াওয়াড়ি’।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Explained news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Explained who was gangubai kathiawadi why the film on her facing legal troubles