scorecardresearch

বড় খবর

Explained: কেন ১৯ ডিসেম্বরকে মুক্তিদিবস হিসেবে পালন করে গোয়া?

ব্রিটিশরা চলে যাওয়ার অনেক পরে ১৯৬১ সাল পর্যন্ত গোয়া ছিল পর্তুগিজদের দখলে।

Explained: কেন ১৯ ডিসেম্বরকে মুক্তিদিবস হিসেবে পালন করে গোয়া?
ভারতীয় সেনার হামলায় জ্বলছে পর্তুগিজ নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজ এনআরপি আফনসো ডি আলবুকার্ক। (এক্সপ্রেস আর্কাইভ)

আজ ১৯ ডিসেম্বর, গোয়ার মুক্তি দিবস। দীর্ঘদিনই ব্রিটিশ কবল থেকে মুক্ত ভারতের বাইরে ছিল গোয়া। শেষ পর্যন্ত ১৯৬১ সালে গোয়া স্বাধীন হয়। তার আগে পর্তুগিজদের বিরুদ্ধে ‘অপারেশন বিজয়’-এ অংশ নিয়েছিল ভারতীয় সেনা। সেই বছর ১৮ ডিসেম্বর, পর্তুগিজ নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজ এনআরপি আফনসো ডি আলবুকার্ক (NRP Afonso de Albuquerque)-কে ভারতীয় সেনা ধ্বংস করে দিয়েছিল। এই যুদ্ধজাহাজের নামকরণ করা হয়েছিল ষোড়শ শতকের পর্তুগিজ নাবিক আফনসো ডি আলবুকার্ক (Afonso de Albuquerque)-এর নামে। পর্তুগিজদের ওই যুদ্ধজাহাজ ধ্বংসই ছিল গোয়ায় পর্তুগিজ শাসনের অবসানের প্রতীক।

এই উপলক্ষে ১৯ ডিসেম্বর, সোমবার রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মু টুইট করেছেন। তিনি গোয়ার মুক্তি দিবস উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এই দিনটি প্রতিবছরই পালন করা হয়। কারণ, এই দিনেই ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনীর হাতে পরাজিত হয়েছিল পর্তুগিজ ঔপনিবেশিক বাহিনী। স্বাধীন হয়েছিল গোয়া। এই উপলক্ষে সোমবার রাষ্ট্রপতি মুর্মু টুইট করেছেন, ‘গোয়ার স্বাধীনতা দিবসে আমি সব নাগরিকদেরকে শুভেচ্ছা জানাই। বিশেষ করে গোয়াবাসীকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। আমি সেই স্বাধীনতা সংগ্রামীদের প্রতি শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করছি, যাঁরা ঔপনিবেশিক শাসন থেকে গোয়ার মুক্তি বা স্বাধীনতার জন্য লড়াই করেছিলেন। আমি ভারতীয় সেনাকে তার বীরত্বের জন্য অভিবাদন জানাই। রাজ্যবাসীর প্রতি আমার শুভেচ্ছা রইল।’

গোয়ায় পর্তুগিজদের উপস্থিতি ঘটেছিল ১৫১০ খ্রিস্টাব্দে। সেই সময় গোয়া ছিল বিজাপুর সাম্রাজ্যের অধীনে। আফনসো ডি আলবুকার্ক বিজাপুরের শাসকদের পরাজিত করেন। সেই সময় পর্তুগিজদের সঙ্গ দিয়েছিল স্থানীয় বিদ্রোহী নেতা টিমাইয়া। এই পরাজয়ের পর ভেলহা গোয়া বা পুরাতন গোয়ার প্রতিষ্ঠান হয়। এরপর কয়েক শতাব্দী ধরে পর্তুগিজরা মারাঠা এবং দাক্ষিণাত্যের সুলতানদের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে গিয়েছিল। আর, গোয়াকে নিজেদের কবজায় রেখেছিল। নেপোলিয়নের জমানায় অল্প সময়ের জন্য ১৮১২ থেকে ১৮১৫ সাল পর্যন্ত গোয়া দখল করে নিয়েছিল ব্রিটিশরা। সেই সময় ভেলহা গোয়া থেকে রাজধানী স্থানান্তরিত হয়েছিল পানজিমে। ১৮৪৩ সালে ফের গোয়ার রাজধানী পানজিম থেকে ভেলহা গোয়ায় স্থানান্তরিত হয়।

আরও পড়ুন- গোল্ডেন বল আর সান্ত্বনা পুরস্কার নয়, খরা কাটালেন মেসি

গোয়া ছিল ভারতে পর্তুগালের সবচেয়ে মূল্যবান প্রাপ্তি। এককথায়, এস্তাদো দ্য ইন্ডিয়া পর্তুগিসা বা ভারতে পর্তুগিজ সাম্রাজ্যের বৃহত্তম অঞ্চল। পর্তুগিজ ঔপনিবেশিক শাসন গোয়াতে খ্রিস্টধর্মের সূচনা করেছিল এবং তার বৃদ্ধি ঘটিয়েছিল। সময়ের সঙ্গে, পর্তুগিজরা ভারতে তাদের বেশিরভাগ অঞ্চলই হারিয়েছিল। কিন্তু, গোয়াকে তারা নিজেদের কবজায় রেখেছিল। যতক্ষণ না ব্রিটিশ শাসন থেকে মুক্ত ভারত পর্তুগিজদের গোয়া থেকে বিতাড়িত করেছে, ততদিন গোয়ার দখল ছাড়তে চায়নি পর্তুগিজরা।

Read full story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Explained news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Goa celebrate liberation day