scorecardresearch

বড় খবর

পিছিয়ে গেল জেইই এবং নীট – শিক্ষাবর্ষের ওপর কতটা প্রভাব পড়বে?

যেহেতু অনেক পরীক্ষাকেন্দ্রই কন্টেনমেন্ট জোনের আওতায় পড়ছে, সেহেতু পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া একরকম অবধারিত বলেই মত দেয় কমিটি।

পিছিয়ে গেল জেইই এবং নীট – শিক্ষাবর্ষের ওপর কতটা প্রভাব পড়বে?

কোভিড-১৯ সংক্রমণের আকস্মিক ঊর্ধ্বগতি সরকারকে বাধ্য করেছে গুরুত্বপূর্ণ ইঞ্জিনিয়ারিং এবং ডাক্তারি এন্ট্রান্স পরীক্ষা আরও পিছিয়ে দিতে। শুক্রবার মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের তরফে ঘোষণা করা হয় যে JEE (Main) এখন অনুষ্ঠিত হবে ১ থেকে ৬ সেপ্টেম্বরের মধ্যে, NEET অনুষ্ঠিত হবে ১৩ সেপ্টেম্বর এবং JEE (Advanced) অনুষ্ঠিত হবে ২৭ সেপ্টেম্বর।

এবছর যেসব ছাত্রছাত্রী উচ্চশিক্ষার জগতে প্রবেশ করছে, তাদের ওপর কী প্রভাব পড়বে নতুন শিক্ষাসূচীর, তা এক নজরে দেখে নেওয়া যাক।

কবে অতিমারী বিদেয় হবে তার ঠিক নেই, তাহলে কীভাবে পরীক্ষার নির্ঘণ্ট ঘোষণা করল সরকার?

বৃহস্পতিবার চার-সদস্যের এক কমিটি বসায় মানবসম্পদ মন্ত্রক, যার কাজ ছিল JEE (Main) এবং NEET নির্ঘণ্টের পরিবর্তন করা। কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সির (NTA) ডিরেক্টর-জেনারেল বিনীত জোশী, এবং অন্যান্য সদস্যরা ছিলেন আইআইটি-দিল্লির ডিরেক্টর রামগোপাল রাও, আইআইটি-জেইই চেয়ারম্যান সিদ্ধার্থ পাণ্ডে এবং মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের অতিরিক্ত সচিব রাকেশ রঞ্জন। এই কমিটির পরামর্শের ভিত্তিতেই পরীক্ষা আরও পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার।

আরও পড়ুন: সত্যিই ১৫ অগাস্ট বাজারে আসবে কোভ্যাকসিন? কেন সন্দিহান বিশেষজ্ঞরা?

সূত্রের খবর, যেহেতু অনেক পরীক্ষাকেন্দ্রই কন্টেনমেন্ট জোনের আওতায় পড়ছে, সেহেতু পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া একরকম অবধারিত বলেই মত দেয় কমিটি। কমিটির প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ৬৫০টি JEE (Main) পরীক্ষাকেন্দ্রের মধ্যে আন্দাজ ৪০টি কন্টেনমেন্ট জোনে অবস্থিত। এই কেন্দ্রগুলি থেকে পরীক্ষায় বসার কথা প্রায় ১ লক্ষ পরীক্ষার্থীর। সুতরাং জুলাই মাসে JEE (Main) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলে ক্ষতিগ্রস্ত হতো তারা।

বিলম্বিত পরীক্ষা সম্পর্কে একমত হয়ে নতুন তারিখ ঠিক করার ভার নেয় কমিটি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সূত্রের কথায়, “সেপ্টেম্বর মাসের আগে পরীক্ষা নেওয়াটা নিরাপদ নয় বলেই বিবেচিত হয়।” এরপর JEE (Main) পরীক্ষা অনলাইনে পরিচালনা করে যে পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা, তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে NTA জানতে চায়, সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে পরীক্ষাকেন্দ্রগুলি পাওয়া যাবে কিনা। ওই সংস্থার কাছ থেকে ইতিবাচক সঙ্কেত পাওয়ার পরই সরকারের কাছে এই প্রস্তাব রাখে কমিটি।

NEET এবং JEE (Main) এর ফলাফল কবে ঘোষণা করা হবে?

সাধারণভাবে JEE (Main) এর ফলাফল এক সপ্তাহের মধ্যে, এবং NEET-এর ফলাফল একমাসের মধ্যে ঘোষণা করে দেয় NTA। তবে করোনা অতিমারীর কারণে পরীক্ষাসূচীতে বিঘ্ন ঘটায় এজেন্সি সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে JEE (Main)-এর ফলাফল ঘোষিত হবে পরীক্ষার পাঁচদিনের মধ্যে, অর্থাৎ ১১ সেপ্টেম্বর নাগাদ, এবং NEET-এর ফলাফল ঘোষিত হবে ২০ দিনের মধ্যে, অর্থাৎ অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে।

JEE (Advanced) ফলাফলের কী হবে?

পরীক্ষার আটদিনের মধ্যে, অর্থাৎ ৫ অক্টোবরের মধ্যে ফলাফল ঘোষণা করার চেষ্টা করবে আইআইটি-গুলি। সমস্ত আইআইটি এবং এনআইটি-র যৌথ কাউন্সেলিং সর্বশেষ ৭ অক্টোবর শুরু হয়ে একমাস চলবে।

বিলম্বিত পরীক্ষাসূচীর কী প্রভাব পড়বে নতুন শিক্ষাসূচীর ওপর?

বর্তমান পরিস্থিতিতে সরকার চাইছে, দেওয়ালি, অর্থাৎ সর্বশেষ ১৪ নভেম্বরের মধ্যে ইঞ্জিনিয়ারিং এবং ডাক্তারি পাঠক্রমের কাউন্সেলিং প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে। সুতরাং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রথম বর্ষের ক্লাস অন্তত নভেম্বরের শেষ বা ডিসেম্বরের শুরুর আগে চালু হবে না। আইআইটি-গুলি নতুন পড়ুয়াদের ডিসেম্বরের আগে ক্লাস শুরু করতে বলবেই না, এমনটাই মনে হচ্ছে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Explained news download Indian Express Bengali App.

Web Title: How delays in 2020 jee main neet will affect new academic session