scorecardresearch

বড় খবর

Explained: আইপিএস অফিসারদের কাছে গুজরাতের প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে নিয়োগের অর্থ ‘শাস্তি’

গিরনার অভয়ারণ্যের সীমান্তে এবং গুজরাতের রাজনৈতিক কেন্দ্রভূমি আহমেদাবাদ থেকে ৩০০ কিলোমিটার দূরে, জুনাগড় শহরের ২০ কিলোমিটার উত্তরে ১৯৭৭ সালে গড়ে উঠেছে এসআরপিটিসি।

SRPTC_GUJRAT_JUNAGARH NEW
তালিকার নবতম সংযোজন রাজকোটের প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার এডিজিপি মনোজ আগরওয়াল। তাঁকে জুনাগড় জেলার চোকি গ্রামে এসআরপি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের অধ্যক্ষ পদে নিয়োগ করা হয়েছে।

এখান থেকে হেঁটে গিরনার পাহাড়ের চূড়ায় যাওয়া যায়। গুজরাতের জুনাগড় জেলার চোকি ( সোরাথ) গ্রামের পুলিশ প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে গিরনার পাহাড়ের দূরত্ব ঠিক এতটাই। ১৯৭৭ সালে তৈরি হয়েছে এই প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। যেখানে আইপিএস অফিসারদের নিয়োগের অর্থই হল, ঘুরিয়ে শাস্তি দেওয়া।

এই তালিকায় নবতম সংযোজন রাজকোটের প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার এডিজিপি মনোজ আগরওয়াল। যাঁকে চোকির এই পুলিশ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের অধ্যক্ষ পদে নিয়োগ করা হয়েছে। শুক্রবারই নতুন পদে যোগ দিয়েছেন মনোজ। বিজেপি বিধায়ক গোবিন্দ প্যাটেল রাজকোটের প্রাক্তন পুলিশ কমিশনারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ এনেছেন।

শুধু মনোজই না। মনোজের সহকর্মীদের বিরুদ্ধেও আনা হয়েছে দুর্নীতির অভিযোগ। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তও হয়েছে। ইতিহাস বলছে, এই প্রশিক্ষণকেন্দ্রে সেই অফিসারদেরই নিয়োগ করা হয়েছে, যাঁরা পদে থাকাকালীন শাসক দলের বিরুদ্ধাচারণ করেছেন। ১৯৯১-এর ব্যাচের আইপিএস মনোজ আগরওয়ালকে এই গুজরাত সরকারই ২০১৮-য় রাজকোটের পুলিশ কমিশনার করেছিল। বলাই বাহুল্য যে সেই সময় মনোজ ছিলেন গুজরাতের শাসক দল বিজেপির নেতাদের নেকনজরে।

কিন্তু, চার বছরে সেই সম্পর্ক এতটাই তলানিতে ঠেকেছে যে তড়িঘড়ি তাঁকে জুনাগড়ের অভয়ারণ্য সীমান্তে এই পুলিশ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের প্রধান করে পাঠানো হল। প্রথম কোনও এডিজিপি পদমর্যাদার আধিকারিক চোকির পুলিশ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের প্রধান হলেন। এই পদে ডেপুটি ইনস্পেক্টর জেনারেল বা ডিআইজি পদমর্যাদার আধিকারিকদের নিয়োগ করা হয়। মনোজকেও অবশ্য তড়িঘড়ি ডিআইজি পদমর্যাদায় উন্নীত করেই চোকির পুলিশ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে।

অর্থাত্, যে অফিসারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ, তাঁর পদমর্যাদা বাড়াল গুজরাত সরকার। আবার, ঘুরিয়ে শাস্তিও দেওয়া হল মনোজ আগরওয়ালকে। এই জঙ্গলের কাছাকাছি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের প্রধান করে। তা-ও ঠিক কখন? মনোজ আগরওয়ালের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগের তদন্তে এডিজিপি (প্রশিক্ষণ) বিকাশ সহায়ের রিপোর্ট জমা পড়ার ১০ দিনের মধ্যে ঘটল এই পদন্নোতি।

গুজরাতের শাসক দলের বিরুদ্ধাচারণের এই সাজা অবশ্য বেশ খোলা মনেই গ্রহণ করেছেন দুঁদে আইপিএস অফিসার মনোজ। এখন তিনি, ব্যস্ত প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ৬০০ শিক্ষার্থীকে নিয়ে। তাঁদের মধ্যে বহু কনস্টেবলেরই ৯ মাসের এবং বেশ কয়েকজন সাব-ইনস্পেক্টরেরই একবছরের প্রশিক্ষণ শেষ হওয়ার পথে। বাকিদেরও গড়েপিঠে নেওয়াই এখন এই প্রশিক্ষণকেন্দ্রের সদ্যনিযুক্ত অধ্যক্ষের লক্ষ্য।

Read story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Explained news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Training centre gujarat punishment posting