scorecardresearch

বড় খবর

সন্ত্রাসবিরোধী আইন কী? কেন এই আইনে গ্রেফতার হলেন উমর খালিদ?

দাঙ্গার নেপথ্যে “বৃহত্তর ষড়যন্ত্র” রয়েছে এই অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তের জন্য পুলিশ ইউএপিএ আইন ব্যবহার করেছে।এই ইউএপিএ হল আসলে সন্ত্রাসবিরোধী আইন।

উত্তর-পূর্ব দিল্লির গোষ্ঠী সংঘর্ষে জড়িত থাকার অভিযোগে রবিবার জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন পড়ুয়া উমর খালিদকে গ্রেফতার করল দিল্লি পুলিশের বিশেষ সেল। ‘বেআইনি কার্যকলাপ প্রতিরোধ আইনে’ (ইউএপিএ) তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে এমনটাই জানা গিয়েছে। উমর খালিদ সেই সকল তরুণ কর্মীর মধ্যে অন্যতম, যাদের বিরুদ্ধে ফেব্রুয়ারিতে দিল্লিতে হিংসা ছড়ানো সম্পর্কিত মামলা করা হয়েছিল। দাঙ্গার নেপথ্যে “বৃহত্তর ষড়যন্ত্র” রয়েছে এই অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তের জন্য পুলিশ ইউএপিএ আইন ব্যবহার করেছে।

এই ‘বেআইনি কার্যকলাপ প্রতিরোধ আইন’ কী? কখন লাগু হয়?

এই ইউএপিএ হল আসলে সন্ত্রাসবিরোধী আইন। যার লক্ষ্য “ব্যক্তি কিংবা কোনও অ্যাসোসিয়েশনে কিছু বেআইনি কর্মকাণ্ড কিংবা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড পরিচালনা প্রতিরোধ করার জন্য এই আইন।” ১৯৬৭ সালে এই আইন প্রথম ব্যবহৃত হয়েছিল বিছিন্নতাবাদী সংগঠনগুলিকে লক্ষ্য করে। এটি বর্তমানে বাতিল করা সন্ত্রাসবাদ ও বিপর্যয়মূলক কর্মকাণ্ড (প্রতিরোধ) আইন (টিএডিএ) এবং সন্ত্রাসবাদ প্রতিরোধ আইন (পোটা)-এর মতো আইনগুলির পূর্বসূরী হিসাবে বিবেচিত হয়।

এছাড়াও যত সময় এগিয়েছে সংশোধনগুলি ইউএপিএকে আরও কঠোর করে তুলেছে। ২০১৯ সালে সর্বশেষ সংশোধনীর পরে, একজন ব্যক্তিকে সন্ত্রাসী হিসাবে চিহ্নিত করা যেতে পারে এই আইনের দ্বারা। আর এই ইউএপিএ মামলাগুলি বিশেষ আদালত দ্বারা বিচার করা হয়।

খালিদ ও অন্যদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলায় পুলিশ কী বলেছে?

শাহিনবাগে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বিরোধী আন্দোলন চলাকালীন উমর খালিদ উস্কানিমূলক ভাষণ দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ। সেই থেকেই দিল্লি পুলিশের নজরে উমর। গত ৩১ জুলাই উমরকে এক দফা জেরা করে পুলিশ। বর্তমানে তদন্তটি এফআইআর ৫৯-এর ভিত্তিতে করা হয়েছে, যেখানে ভারতীয় দন্ডবিধির ৩০২ ধারা (হত্যা), ১৫৩-এ (ধর্মের ভিত্তিতে বিভিন্ন গোষ্ঠীর মধ্যে শত্রুতা তৈরি ইত্যাদি), ১২৪-এ (রাষ্ট্রদ্রোহীকরণ)-এ মামলা রুজু হয়েছে।

পুলিশ মামলার মূল বিষয় হ’ল দিল্লিতে ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারির “সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার ঘটনাগুলি” খালিদ ও অন্যান্যরা “পূর্বপরিকল্পিত” করেছিলেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের (24-25 ফেব্রুয়ারি) সফরের সময় “ভারতে সংখ্যালঘুদের প্রচার চালানো হচ্ছে” তা নিশ্চিত করার জন্য খালিদের বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক বক্তব্য দেওয়ার এবং জনগণকে রাস্তায় নেমে আসার আহ্বান জানানোর অভিযোগ রয়েছে।

পুলিশ অভিযোগ করেছে যে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ষড়যন্ত্রের প্রমাণ রয়েছে, সাক্ষীদের বক্তব্য এবং ভারতের বাইরে থেকে অর্থ প্রাপ্তিও প্রমাণ হিসাবে ব্যবহার করা।

Read the full story in English

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Explained news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Umar khalid arrested under uapa in delhi riots case what is this anti terror