বড় খবর

চিনের প্রেসিডেন্টের সমালোচনা করতেই ১৮ বছরের কারাবাস এই ব্যক্তির?

মার্চ মাসের মাঝামাঝি থেকে করোনভাইরাস প্রাদুর্ভাব সম্পর্কে সরকারের প্রতিক্রিয়ার সমালোচনা করে একটি প্রবন্ধ লেখার পর থেকেই সরকারের চোখে চোখে ছিলেন।

রেন ঝিকিয়াং এবং শি জিনপিং

মঙ্গলবার চিনের একটি আদালত দুর্নীতির অভিযোগে প্রাক্তন রিয়েল এস্টেট টাইকুন রেন ঝিকিয়াংকে ১৮ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত করল। কিন্তু শুধু কি এটাই অভিযোগ? জানা গিয়েছে মার্চ মাসে তিনি চিনের রাষ্ট্রপতি এবং চিনা কমিউনিস্ট পার্টির (সিসিপি) নেতা শি জিনপিংয়ের সমালোচনা করার পরে মার্চ মাসেই তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছিল, রেন ঝিকিয়াং দেশে করোনভাইরাস প্রাদুর্ভাব পরিচালনা নিয়ে চিনা সরকারের সমালোচনা করেছিল।

রেন ঝিকিয়াং কে?

ঝিকিয়াং হ’ল রাষ্ট্রায়ত্ত বেইজিং হুয়ুয়ান গ্রুপ কো লিমিটেডের প্রাক্তন চেয়ারম্যান এবং সিসিপির সদস্য। তিনি সিসিপির অন্যতম প্রভাবশালী সমালোচক হিসাবে বিবেচিত এবং তিনি মার্চ মাসের মাঝামাঝি থেকে করোনভাইরাস প্রাদুর্ভাব সম্পর্কে সরকারের প্রতিক্রিয়ার সমালোচনা করে একটি প্রবন্ধ লেখার পর থেকেই সরকারের চোখে চোখে ছিলেন।

একটি চিঠিতে তিনি শি জিনপিংকে “ভাঁড়” হিসাবেও উল্লেখ করেছিলেন। প্রবন্ধটিতে নাম উল্লেখ না করা হলেও এটি ২৩ ফেব্রুয়ারি শি জিনপিংয়ের দেওয়া বক্তৃতার প্রতিক্রিয়াস্বরূপ বলেই জানা গিয়েছে। সংবাদসংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রতিবেদনটি ঝিকিয়াং তাঁর পরিচিত লোকদের সঙ্গে ভাগ করেছেন এবং এর কপিগুলি পরে অনলাইনে পোস্ট করা হয়েছিল। প্রবন্ধে তিনি লেখেন, “জিনপিংয়ের ভাষণের সময় আমি কোনও নতুন বস্ত্র পরিহিত সম্রাটকে দেখিনি, বরং একটি ভাঁড়কে দেখেছি যিনি আপ্রাণ চেষ্টা করছে সম্রাট হিসেবে নিজেকে দাঁড় করাতে।”

২০১৬ সালে রেন ঝিকিয়াংকে সরকারের নীতিমালার সমালোচনা করার জন্য দল থেকে তদন্তের মুখোমুখি বসানো হয়েছিল। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর সমালোচনামূলক পোস্টগুলির জন্য তাঁকে “ক্যানন রেন” (অর্থাৎ কামানের ন্যায়) নামেও ডাকা হত। তবে চিনা সরকার এখানেই থেমে থাকেনি এরপর সরকার চিনের সোশাল মিডিয়া সংস্থাগুলিকে রেন ঝিকিয়াংয়ের অ্যাকাউন্টগুলি বন্ধ করার নির্দেশ দেয় কারণ সরকারের দাবি ছিল তিনি ‘অবৈধ সত্য’ ছড়াচ্ছেন।

ঠিক কী অভিযোগে তাঁকে কারাগারে নিক্ষেপ করা হল?

মঙ্গলবার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম গ্লোবাল টাইমস জানিয়েছে যে ঝিকিয়াংকে ১৮ বছরের কারাদন্ডে দন্ডিত করা হয়েছে একটি রাষ্ট্রায়াত্ত সংস্থার কর্মী হিসাবে দুর্নীতি, ঘুষ, তহবিলের আত্মসাৎ ও ক্ষমতার অপব্যবহারের জন্য। রেন ঝিকিয়াংকে ৪২.২ মিলিয়ন ইউয়ান জরিমানাও দিতে হবে। বেইজিং নং ২ এর ইন্টারমিডিয়েট পিপলস কোর্টের প্রকাশিত বিবৃতি অনুসারে, ঝিকিয়াং তার ক্ষমতা ব্যবহার করে ৪৯.৭৪ মিলিয়ন ইউয়ানেরও বেশি সরকারী তহবিল এবং ১.২৫ মিলিয়নেরও বেশি ঘুষ গ্রহণ করেছেন। এমনকী ৬১.২০ মিলিয়ন ইউয়ানের পাবলিক ফান্ড আত্মসাৎ করেছেন।

Read the full story in English

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Get the latest Bengali news and Explained news here. You can also read all the Explained news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Who is ren zhiqiang the chinese critic jailed for 18 years china

Next Story
ভ্যাকসিন তৈরির জন্য মিলছে না প্রয়োজনীয় অর্থ, জানাল হু
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com
X