বড় খবর

“ওখানে ঢুকতে দেওয়া হত না কোনও মুসলিমকে, সব জমি আমাদের দিন”

পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ, এদিন সকালে অযোধ্যায় বিতর্কিত জমি মামলার শুনানি শুরু করে। গত সপ্তাহে মধ্যস্থতার চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে বলে জানিয়ে দিয়েছিল বেঞ্চ।

Ayodhya, Ram Janmabhoomi
বাবরি মসজিদে কেন প্রার্থনা করতেন না মুসলিমরা?

রাম জন্মভূমি-বাবরি মসজিদ জমি সংকট নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের শুনানির সময়ে নির্মোহী আখড়ার তরফ থেকে বলা হয়েছে যে ১৯৩৪ সাল থেকে মুসলিমদের অযোধ্যায় বিতর্কিত এলাকায় প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি। আখড়ার তরফ থেকে ২.৭৭ একর জমির পুরোটাই তাদের হাতে তুলে দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ, এদিন সকালে অযোধ্যায় বিতর্কিত জমি মামলার শুনানি শুরু করে। গত সপ্তাহে মধ্যস্থতার চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে বলে জানিয়ে দিয়েছিল বেঞ্চ। এই বেঞ্চের নেতৃত্বে রয়েছেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। বেঞ্চের অন্য সদস্যরা হলেন বিচারপতি এস এ বোবডে, ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়, অশোক ভূষণ এবং এসএ নাজির।

আরও পড়ুন, “এ ভারত আমি দেখিনি। এ ভারত আমি কখনও দেখিনি।”

প্রবীণ আইনজীবী সুশীল জৈন নির্মোহী আখড়ার হয়ে সওয়াল করতে গিয়ে বলেন, “আমি নথিবদ্ধ সংস্থা। এ মামলা আসলে আমার অধিকারের।” তিনি বলেন, “আমরা ভিতরের চত্বর এবং রাম জন্মস্থানের অধিকারী কয়েকশ বছর ধরে। বাইরের চত্বরে সীতা রসুই, চবুতরা, ভাণ্ডার গৃহ আমাদের মালিকানাধীন ছিল এবং এ নিয়ে কখনও কোনো বিতর্ক ছিল না।”

মধ্যস্থতায় জড়িত পক্ষদের সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনায় ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানতে পেরেছে বন্ধ খামে এক পক্ষের তরফ থেকে একটি প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল, যে প্রস্তাবে ছিল বিতর্কিত জমিতে পাশাপাশি একটি মন্দির ও একটি মসজিদ নির্মাণের কথা। কিন্তু সে প্রস্তাব নিয়ে কোনও আলোচনাই হয়নি, কারণ তাতে মন্দিরপন্থীদের কোনও সাড়াশব্দ পাওয়া যায়নি।

 

Web Title: Ayodhya ram janmabhoomi babri masjid land dispute supreme court

Next Story
“এ ভারত আমি দেখিনি। এ ভারত আমি কখনও দেখিনি।”Farooq Abdullah, ফারুক আবদু্ল্লা
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com