বড় খবর

কেন্দ্রই আইন ভঙ্গকারী! জিএসটি ক্ষতিপূরণের অর্থ অন্যত্র ব্যবহার হয়েছে, ক্যাগের বিস্ফোরক রিপোর্ট

গত সপ্তাহেই কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী সংসদে জানিয়েছিলেন যে, দেশের ‘সিএফআই'(কনসলিডেটেড ফান্ড অফ ইন্ডিয়া) ছাড়া জিএসটির ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কোনও আইন নেই।

জিএসটি ক্ষতিপূরণ নিয়ে ক্যাগের রিপোর্টে বিস্ফোরক তথ্য সামনে আসতে শুরু করেছে। গত সপ্তাহেই কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী সংসদে জানিয়েছিলেন যে, দেশের ‘সিএফআই'(কনসলিডেটেড ফান্ড অফ ইন্ডিয়া) ছাড়া জিএসটির ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কোনও আইন নেই। অ্যাটর্নি জেনারেলের কাছ থেকে পরামর্শ নিয়ে তিনি একথা জানান বলে দাবি করেন সীতারমণ। যদিও ক্যাগের রিপোর্ট ধরা পড়েছে, ক্ষতিপূরণ ঘিরে কেন্দ্র নিজেই সিএফআইয়ের আইন লংঘন করেছে।

ক্যাগের রিপোর্টে দেখা গিয়েছে, জিএসটির ৪৭,২৭২ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ ঘিরে কেন্দ্র নিজেই সিএফআইয়ের আইন ভেঙেছে। জিএসটি কম্পেনশেন সেস ফান্ডে টাকা না পাঠিয়ে, সিএফআইতে এই টাকা ফেরত দিয়েছে সরকার। ২০১৭-২০১৮ এবং ২০১৮-১৯ সালের ঘটনা- যেখানে কেন্দ্র, ওই আর্থিক মূল্য অন্য খাতে ব্যবহার করেছে বলে ক্যাগের রিপোর্টে ধরা পড়ছে। এইভাবেই ওই অর্থবর্ষে আর্থিক ঘাটতি কম দেখানো হয়েছে কেন্দ্রের তরফে। যা কার্যত নির্দিষ্ট আইন লংঘন।

অডিটের সময় দেখা গিয়েছে, স্টেটমেন্ট ৮, ৯, ১৩-তে যে শুল্ক সংগ্রহের তথ্য রয়েছে, আর যে অর্থমূল্য জিএসটি ক্ষতিপূরণ শুল্কের ফান্ডে যা গিয়েছে তাতে বড়সড় গরমিল রয়েছে। এর ফলে ফান্ডের অর্থে কমতি দেখা যায়, যা শর্ট ক্রেডিটিং এর নামান্তর। এই ঘটনার জেরে ২০১৭ সালে জিএসটি কমপেনসেশন অ্যাক্ট ২০১৭ সালের হিসাবে সরকার আইন ভেঙেছে বলে ক্যাগের রিপোর্টে উঠে আসছে।

কেন্দ্র জিএসটি কম্পেনসেশন ফান্ডে সংগৃহিত শুল্ক না রেখে ‘কনসলিডেটেড ফান্ড অফ ইন্ডিয়া’ বা সিএফআই-তে রাখে। যে ফান্ড থেকে অন্যত্র বহু ক্ষেত্রে সরকার টাকা খরচ করেছে বলে ক্যাগের রিপোর্টে উল্লেখ। জানা গিয়েছে, ক্যাগের রিপোর্ট পাওয়ার পর অর্থমন্ত্রক বিষয়টির যথোপোযোগ্য ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছে। পাশপাশি, যোগ্য জায়গায় আর্থিক ট্রান্সফারের বিষয়টিও নিশ্চিত করেছে কেন্দ্র।

জিএসটি কম্পেনসেশন সেস অ্য়াক্টের আইন অনুযায়ী, গোটা বছরে যে শুল্ক সংগৃহিত হবে তা রাখা হবে জিএসটি কম্পেনসেশন ফান্ডে। যে অ্যাকাউন্টটি পাবলিক অ্যাকাউন্ট হিসাবে গণ্য হয়। খুব নির্দিষ্টভাবে আইনে বলা রয়েছে যে, এই অ্যাকাউন্ট থেকে রাজ্যগুলিকে তখনই টাকা দেওয়া হবে যদি তাদের রাজস্বে ঘাটতি পড়ে।

উল্লেখ্য, কোভিড পরিস্থিতিতে সমস্ত রাজ্যই কেন্দ্রের কাছে এই রাজস্বের বিষয়টি জানিয়ে ক্ষতিপূরণ দাবি করে। এরপরই নির্মলা সীতারমন সংসদে ওই বার্তা রাখেন। তারপরই ক্যাগের রিপোর্টে গরমিলের ধরা পড়েছে।

Read in English

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Get the latest Bengali news and General news here. You can also read all the General news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Centre broke the law used funds for gst compensation elsewhere cag report

Next Story
১-এর নীচে নামল আর ভ্যালু, ভারতে মহামারীর শেষের শুরু?
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com