বড় খবর

উত্তপ্ত দিল্লি, কেন্দ্রের ঘাড়েই দায় ঠেললেন মমতা

টুইটবার্তায় আন্দোলনরত কৃষকদের সমর্থনেই সোচ্চার হয়ে তিন নয়া কেন্দ্রীয় কৃষি আইন বাতিলের দাবি জানিয়েছেন তিনি।

প্রজাতন্ত্র দিবসে কৃষক আন্দোলনের উত্তাপে কার্যত রণক্ষেত্র দিল্লি। এই পরিস্থিতির জন্য কেন্দ্রকেই দায়ী করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার সন্ধ্যার টুইটবার্তায় আন্দোলনরত কৃষকদের সমর্থনেই সোচ্চার হয়ে তিন নয়া কেন্দ্রীয় কৃষি আইন বাতিলের দাবি জানিয়েছেন তিনি।

টুইটবার্তায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন যে, ‘দিল্লির পথে উদ্বেগজনক ও বেদনাদায়ক ঘটনাগুলি দ্বারা গভীরভাবে বিরক্ত। কৃষক ভাই-বোনেদের প্রতি কেন্দ্রের অসংবেদশীল মনোভাব ও মত পার্থক্য এই পরিস্থিতির জন্য দায়ী।’

আইন তৈরির সময় কেন কৃষকদের মতামত নেওয়া হয়নি এদিন তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তৃণমূল সুপ্রিমো। টুইটে লিখেছেন, ‘প্রথমত, কৃষকদের আস্থার উপর ভর করে এই আইনগুলো তৈরি করা হয়নি। তারপরপ্রায় দু’মাস ধরে দিল্লি সীমানা ও দেশজুড়ে কৃষকদের বিক্ষোভ চললেও আন্দোলন প্রসমণে কেন্দ্রের তরফে তেমন উদ্যোগ দেখা যায়নি। কেন্দ্র অবশ্যেই কৃষকদের সঙ্গে কথা বলুক, কালা আইন বাতিল করুক।’

রজাতন্ত্র দিবসে দিল্লিতে ধুন্ধুমার। কৃষকদের ট্র্যাক্টর র‍্যালি ঘিরে রক্তাক্ত রাজধানীর রাজপথ। নিহত হয়েছেন এক কৃষক। মঙ্গলবার ট্র্যাক্টর র‍্যালির আগে দিল্লির সিংঘু সীমানায় পুলিশের ব্যারিকেড ভাঙার অভিযোগ ওঠে বিক্ষোভরত কৃষকদের বিরুদ্ধে। পালটা লাঠিচার্জ করে পুলিশ। পরিস্থিতি সামলাতে কাঁদানে গ্যাসের শেলও ফাটায় পুলিশ। সেন্ট্রাল দিল্লির আইটিও-তে পুলিশের বাস ভাঙচুরেরও অভিযোগ উঠেছে আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে। এদিন প্রতিবাদের সুর চড়ান কৃষকরা। পুলিশি বাধা পেরিয়ে লালকেল্লায় ঢুকে পড়েন বিক্ষোভকারীরা। লালকেল্লার মাথায় পতাকা লাগিয়ে দেন আন্দোলনরত কৃষকরা।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Web Title: Centre s insensitive attitude towards our farmer has to be blamed for this delhi situation mamata banerjee

Next Story
‘এই সংঘর্ষে আমরা ছিলাম না’, উল্টো সুর কিষাণ মোর্চার, কৃষক আন্দোলনে ফাটল?
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com