বড় খবর

ভারতের শক্তির কাছে পেরে উঠবে না চিন: বায়ুসেনাপ্রধান ভাদুরিয়া

‘যে কোনও ধরনের সম্ভাব্য আক্রমণ রোখার জন্য পুরোপুরি তৈরি ভারতীয় বায়ুসেনা।’

বায়ুসেনাপ্রধান আর কে এস ভাদুরিয়া

যে কোনও ধরনের সম্ভাব্য আক্রমণ রোখার জন্য পুরোপুরি তৈরি ভারতীয় বায়ুসেনা। দাবি, বায়ুসেনাপ্রধান আর কে এস ভাদুরিয়ার। বায়ুসেনাপ্রধানের কথায়, ‘চিনের থেকে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় ভারতের শক্তি অনেক বেশি। ভারতীয় বাহিনী সামরিক কৌশলেও এগিয়ে রয়েছে। চিনের সেনা কিছুতেই ভারতের শক্তির কাছে পেরে উঠবে না।’ তাহলে কি যুদ্ধ আসন্ন? ভাদুরিয়ার জবাব, ‘আমরা যেকোনও পরিস্থিতির জন্য তৈরি।’

৮ অক্টোবর ‘এয়ার ফোর্স ডে’। তার আগে সাংবাদিক বৈঠক করেন বায়ুসেনাপ্রধান আর কে এস ভাদুরিয়া। তাঁর কথায়, ‘ সবকটি সীমান্তবর্তী এলাকায় শক্তি বাড়িয়ে রেখেছে বায়ুসেনা। স্পর্শকাতর এলাকাগুলিতে প্রস্তুতি আরও পোক্ত। তার মধ্যে লাদাখ ছোট্ট একটা অংশ।’ বায়ুসেনা প্রদানের দাবি অনুসারে, নর্দার্ন ও ওয়েস্টার্ন, দুই ফ্রন্টেই শক্তি বাড়ানো হয়েছে। শত্রুপক্ষের যে কোনও কৌশলগত চ্যালেঞ্জ ও আগ্রাসনের মোকাবিলা করতে তৈরি বায়ুসেনা। অরুণাচল, সিকিম ও উত্তরাখণ্ডে চিন সীমান্তেও যুদ্ধবিমান মোতায়েন করে রেখেছে বায়ুসেনা।

আরও পড়ুন- সংঘাতের আবহেই এই প্রথমবার মুখোমুখি হচ্ছেন মোদী-জিনপিং

জুন মাসে হট স্প্রিংয়ের কাছে দুই দেশের বাহিনী মুখোমুখি সংঘাতের পরেই চূড়ান্ত সতর্কবার্তা পাঠানো হয় বায়ুসেনাকে। আকাশযুদ্ধের পরিস্থিতি তৈরি হলে তার জন্য সবরকমভাবে তৈরি থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়। পাশাপাশি, ফরওয়ার্ড বায়ুসেনাঘাঁটিগুলিতেও যুদ্ধবিমান মোতায়েন করে প্রস্তুত থাকতে বলা হয়। কমব্যাট ফাইটার জেটগুলিকে তৈরি থাকতে বলা হয়। ভাদুরিয়া বলেছেন, ‘সীমান্তের সুরক্ষা নিয়ে ভারতের সশস্ত্র বাহিনী সব সময় প্রস্তুত ও সজাগ থাকে। সামরিক পর্যায়ের আলোচনায় চুক্তিবদ্ধ হওয়ার পরেও চিনা সেনার অন্যায় আগ্রাসন কোনওভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। ভারতের পথে পা বাড়ালে লাল সেনাকে যোগ্য জবাব দেওয়ার মতো প্রস্তুতি আছে বায়ুসেনা বাহিনীর।’

সীমান্ত উত্তেজনা প্রশমণে ভারত-চিন সেনা প্রর্যায়ে আলোচনা চলছে। আপাতত সেই দিকেই বেশি গুরুত্ব দেওয়া উচিত বলে জানিয়েছে বায়ুসেনাপ্রধান। শীতে আরও উচ্চতায় সীমান্তে নজরদারির জন্য সেনা সরঞ্জাম মজুত করছে বাহিনী। তবে বায়ু সেনার ক্ষেত্রে এরকম কোনও উদ্যোগ হয়নি বলে জানিয়েছেন ভাদোরিয়া। চিনের পক্ষেও এরকম উদ্যোগ নজরে আসেনি বলে দাবি তাঁর।।

সীমান্ত সুরক্ষায় আকাশ পথও পোক্ত রাখতে মরিয়া ভারত। প্যাঙ্গং রেঞ্জে রয়েছে সুখোই-৩০এমকেআই, মিগ-২৯ যুদ্ধবিমান। সীমান্ত পাহারা দিচ্ছে শক্তিশালী অ্যাটাক হেলিকপ্টার অ্যাপাচে এএইচ-৬৪ই, সিএইচ-৪৭ এফ চিনুক মাল্টি-মিশন হেলিকপ্টার।

Read in English

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Web Title: China can t get the better of usayes iaf chief rks bhadauria

Next Story
সংঘাতের আবহেই এই প্রথমবার মুখোমুখি হচ্ছেন মোদী-জিনপিংarendr modi xi meet, নরেন্দ্র মোদী, শি জিনপিং
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com