scorecardresearch

বড় খবর

জাপানে আটক জাহাজে দ্রুত ছড়াচ্ছে করোনা, আক্রান্ত তৃতীয় ভারতীয়

ভারত সরকারের সূত্রের খবর, বুধবার ওই জাহাজে আরও দুজন ভারতীয় নাগরিকের দেহে মিলেছিল করোনাভাইরাস। করোনায় শুধুমাত্র চিনেই প্রাণ হারিয়েছেন ১,৩০০ মানুষের কিছু বেশি। 

coronavirus india
জাপানে কোয়ারান্টিন করা হয়েছে 'ডায়মন্ড প্রিন্সেস' জাহাজকে। ছবি: টুইটার থেকে

জাপানের উপকূলে কোয়ারান্টিন করা প্রমোদ তরী (ক্রুজ শিপ) ‘ডায়মন্ড প্রিন্সেস’-এ মারাত্মক নভেল করোনাভাইরাসের (COVID-19) কবলে পড়লেন আরও এক ভারতীয়। শুক্রবার এই খবর জানিয়েছে জাপানের ভারতীয় দূতাবাস। এই নিয়ে ওই জাহাজে তিনজন ভারতীয় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেন। ইতিমধ্যে এই ভাইরাসের হানায় শুধুমাত্র চিনেই প্রাণ হারিয়েছেন ১,৩০০ মানুষের কিছু বেশি।

ভারত সরকারের সূত্রের খবর, বুধবার ওই জাহাজে আরও দুজন ভারতীয় নাগরিকের দেহে মিলেছিল করোনাভাইরাস। বর্তমানে জাপানের ইয়োকোহামা শহরের উপকূলে আটক ওই জাহাজে রয়েছেন ৩,৭১১ জন যাত্রী, যাঁদের মধ্যে ১৩২ জন হলেন জাহাজের কর্মী। যাত্রীদের মধ্যে ছ’জন ভারতীয় নাগরিক।

আরও পড়ুন: মেলেনি করোনা জীবাণু, চিনা জাহাজকে কলকাতা বন্দরে প্রবেশের ছাড়পত্র

একটি টুইট মারফৎ জাপানের ভারতীয় দূতাবাস জানিয়েছে, তিনজন আক্রান্তেরই শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল এবং উন্নতির পথে।

জাহাজে অবশিষ্ট ভারতীয় যাত্রীদের স্বাস্থ্য সম্পর্কে এক বিবৃতিতে দূতাবাসের তরফে বলা হয়েছে যে ওই তিনজন বাদে এখনও আর কোনও ভারতীয়ের দেহে মেলে নি করোনাভাইরাসের উপসর্গ। বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে যে জাপানের রাজধানী টোকিয়োতে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয়েছে তিনজন আক্রান্তের সঙ্গে।

আরও পড়ুন: করোনা আতঙ্ক: বিশাল জাহাজের ছোট্ট কেবিনে আটক দুই প্রত্যক্ষদর্শীর বিবরণ

প্রসঙ্গত, ওই জাহাজ থেকে গত ২৫ জানুয়ারি হংকংয়ে অবতরণ করেন এক যাত্রী, যাঁর শরীরে করোনাভাইরাস পাওয়া যায় ১ ফেব্রুয়ারি। এই খবর প্রকাশ পাওয়ার পরেই জাহাজটিকে কোয়ারান্টাইন করার সিদ্ধান্ত নেয় জাপান। যেহেতু করোনাভাইরাসের জীবাণু শরীরে প্রবেশ করার পর থেকে রোগের লক্ষণ প্রকাশ পেতে ১৪ দিন পর্যন্ত সময় লাগতে পারে, সেহেতু ইয়োকোহামায় ১৪ দিন জাহাজটিকে আটক করার সিদ্ধান্ত নেয় জাপান। কোয়ারান্টাইন (সঙ্গরোধ) শুরু হয় ৫ ফেব্রুয়ারি, চলবে ১৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

ইতিমধ্যে শুক্রবার সিঙ্গাপুর থেকে আরও ন’জনের সংক্রমণের খবর পাওয়া গিয়েছে। সেদেশে এই মুহূর্তে মোট করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা ৬৭। সংবাদ সংস্থা রয়টার্স জানাচ্ছে, শুক্রবার করোনাভাইরাসের ফলে চিনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১,৩৫৫, এবং স্রেফ একদিনে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৪,৮৪০ জন, যা কিনা এখন পর্যন্ত রেকর্ড। এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪৮,২০৬।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Coronavirus india china wuhan diamond princess japanese cruise yokohama