scorecardresearch

বড় খবর

প্যারোল পেলেও ‘মুক্ত’ হতে নারাজ, Covid কালে পরিবারের গলগ্রহ হতে চায় না বন্দিরা

গত মাসে রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে স্থির হয়েছে করোনা-কালে জেলের বোঝা কমাতে যোগ্যদের প্যারোল ছাড়তে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কিন্তু বাধ সাধে বম্বে হাইকোর্ট।

প্যারোল পেলেও ‘মুক্ত’ হতে নারাজ, Covid কালে পরিবারের গলগ্রহ হতে চায় না বন্দিরা
মহারাষ্ট্রের প্রায় ২৬ জন বন্দি অনিচ্ছুক জেল থেকে বেরোতে।

প্যারোল যোগ্য হয়েও আবেদন করতে নারাজ সাজাপ্রাপ্ত আসামীরা। এমনটাই নজির মহারাষ্ট্রের জেলগুলোয়। গত মাসে রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে স্থির হয়েছে করোনা-কালে জেলের বোঝা কমাতে যোগ্যদের প্যারোল ছাড়তে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কিন্তু বাধ সাধে বম্বে হাইকোর্ট। এক রায়ে আদালত বলে, ‘যোগ্য কিন্তু অনিচ্ছুক এমন কাউকে প্যারোল দেওয়া যাবে না।‘

তাই প্যারোলে ছাড়ার প্রক্রিয়া শুরু করেও ধাক্কা খায় মহারাষ্ট্র কারা দফতর। জানা গিয়েছে গোটা রাজ্যে প্রায় ২৬ জন সাজাপ্রাপ্ত আসামি সাময়িকভাবে জেল থেকে বেরোতে নারাজ। তাঁদের বেশিরভাগই পরিবারের গলগ্রহ হয়ে থাকতে চায় না। একটা অংশ প্যারোলে ছাড়া পেয়েও এই লকডাউন আবহে জীবিকা নির্বাহে কী পথ বাছবে? সেই আতঙ্কেও জেল ছাড়তে নারাজ।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে মহারাষ্ট্রের এক জেল সুপার বলেছেন, প্যারোল যোগ্য বেশিরভাগ আসামীর একটাই উদ্বেগ বেরিয়ে কী করবেন তারা? কে তাদের কাজ দেবে?’ ওড়িশার এক যুবক গত ৫ বছর মুম্বাইয়ের এক জেলে বন্দি তার উদাহরণ টেনে আনেন ওই সুপার। তিনি বলেছেন, ‘সেই আসামী বলেছেন তিনি আর পরিবারের গলগ্রহ হতে চায় না। বরং জেলে থেকেই সশ্রম কারাদণ্ডে বেশি স্বছন্দ সেই যুবক।‘

.

এদিকে, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার পর গত ৫৪ দিনে সর্বনিম্ন দৈনিক সংক্রমণ ভারতে। এক ধাক্কায় অনেকটাই কমল দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। কমল মৃত্যুও। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে সংক্রমিত ১ লক্ষ ২৭ হাজার ৫১০ জন। মৃত্যু হয়েছে ২,৭৯৫ জনের। যা রীতিমতো স্বস্তির খবর।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের বুলেটিন অনুযায়ী, দৈনিক সংক্রমণ কমার ফলে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা এখন ২ কোটি ৮১ লক্ষ ৭৫ হাজার ৪৪। মোট মৃত্যু হয়েছে ৩ লক্ষ ৩১ হাজার ৮৯৫। দেশে এই মূহূর্তে সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা কমে দাঁড়িয়েছে ১৮ লক্ষ ৯৫ হাজার ৫২০। সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ৬০ লক্ষ মানুষ। দেশে সুস্থতার হার বেড়ে হয়েছে ৯২.০৯ শতাংশ।

বুলেটিন অনুযায়ী, দৈনিক সংক্রমণের হার কমে হয়েছে ৬.৬২ শতাংশ। এখনও পর্যন্ত দেশে ২১.৬০ লক্ষ মানুষকে টিকা দেওয়া হয়েছে। এদিকে, আজ থেকেই উত্তরপ্রদেশ সরকার টিকাকরণের জন্য মিশন জুনের সূচনা করছে। আগামী ৩০ দিনে এক কোটি মানুষকে টিকাকরণের সংকল্প নিয়েছে যোগী প্রশাসন।

অন্যদিকে, কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন দেশের ১১ জন অবিজেপি সরকারের মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি লিখে একজোট হওয়ার বার্তা দিয়ে জানিয়েছেন, কেন্দ্রের কাছে প্রত্যেক রাজ্যকে বিনামূল্যে টিকার জন্য সরব হওয়ার জন্য। ইতিমধ্যেই ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি লিখে রাজ্যের জন্য বিনামূল্যে টিকার আবেদন করেছেন।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Dont want to be familys burden many inmates in maharashtras jail refused parole national