বড় খবর

‘অক্সিজেনের পর এবার চিকিৎসক-নার্সদের প্রবল ঘাটতি দেখবে দেশ’, সতর্কবার্তা ডা: দেবী শেঠির

আগামী দিনে এর থেকেও বড় সমস্যা আসতে চলেছে। জীবনদায়ী গ্যাসের ঘাটতির পর এবার ‘জীবনদাতাদের’ ঘাটতিও আসতে চলেছে

বর্তমানে সারা দেশে কোভিড রোগীরা অক্সিজেন সঙ্কটের মুখোমুখি হয়েছে। কিন্তু আগামী দিনে এর থেকেও বড় সমস্যা আসতে চলেছে। জীবনদায়ী গ্যাসের ঘাটতির পর এবার ‘জীবনদাতাদের’ ঘাটতিও আসতে চলেছে, এমনটাই জানালেন প্রখ্যাত চিকিৎসক ডা: দেবী শেঠি।

সিমবায়োসিস ইন্টারন্যাশনাল আয়োজিত একটি ভার্চুয়াল সম্মেলনে বক্তব্যে ডা: শেঠি বলেন, “একবার অক্সিজেন সমস্যা সমাধান হয়ে গেলে পরের কয়েক সপ্তাহের মধ্যে পরবর্তী সমস্যাটি আইসিইউতে রোগীদের মৃত্যুর কারণ হবে। কারণ তাদের যত্ন নেওয়ার জন্য কোনও নার্স এবং চিকিৎসক নেই। এমনটাই ঘটতে যাচ্ছে। এ নিয়ে আমার কোনও সন্দেহ নেই। ”

আরও পড়ুন, ‘স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরতে হলে কয়েক সপ্তাহ শাটডাউন দরকার’

প্রখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ বলেন, “মে মাস থেকেই সমস্যা বাড়তে থাকবে। প্রত্যেক ডাক্তার কিংবা নার্সদের কোভিড আইসিইউতে চার থেকে পাঁচ ঘন্টা কাজ করতে অসুবিধে হয়। কোভিডের প্রথম পর্যায় থেকে চিকিৎসকরা কাজ করছেন, তারা মানসিকভাবে ক্লান্ত হয়ে পড়ছেন, অনেকেই সংক্রমিত হয়েছেন এই রোগে।”

আরও পড়ুন, ‘ভেঙে পড়ছে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা, করোনা দাপটে আরও বাড়বে মৃত্যু’

চিকিৎসকের কথায়, অতিমারীর এই সঙ্কটে অবিলম্বে দেশে ২ লক্ষ নার্স নিয়োগ করা উচিত। তিনি বলেন, “আইসিইউতে ভর্তি কোভিড রোগীরা মূলত নার্সদের উপর নির্ভরশীল। আমাদের ২ লক্ষ নার্স এবং দেড় লক্ষ ডাক্তার তৈরি করতে হবে যা পরবর্তী এক বছরের জন্য কোভিড পরিচালনা করবেন। সারাদেশে বিভিন্ন নার্সিং স্কুল ও কলেজগুলিতে প্রায় ২.২০ লক্ষ নার্স তিন বছরের জিএনএম বা চার বছরের বিএসসি কোর্সের প্রশিক্ষণ শেষ করেছেন তবে তাদের চূড়ান্ত পরীক্ষা নেওয়া হয়নি। এই প্রশিক্ষিত নার্সদের এক বছরের জন্য কোভিড আইসিইউতে কাজ করানো হলে তাঁরা কাজের সুযোগও পাবে। শেখারও।”

Get the latest Bengali news and General news here. You can also read all the General news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Dr devi shetty after oxygen shortage is tackled the next big crisis will be lack of doctors nurses

Next Story
“যথেষ্ট হয়েছে, যেভাবেই হোক দিল্লিকে অক্সিজেন দিন”, কেন্দ্রকে তীব্র ভর্ৎসনা হাইকোর্টেরOxygen parlour in Kolkata, SSKM, Lions Club, KMC, Safe House, Corona India
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com