বড় খবর

বেকারত্বে শীর্ষে বিহার, বাংলায় কমেছে চাকরিহারাদের সংখ্যা

বর্তমানে দেশের পাঁচ রাজ্যে বেকারত্ব বৃদ্ধি পেয়েছে অনেকটাই। বেকারত্বের হারের দিক দিয়ে, বিহার শীর্ষ পাঁচ রাজ্যের মধ্যে প্রথম স্থানে রয়েছে।

সোমবার বাজেট পেশ হতে চলেছে সংসদে। তার আগেই দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা ও কাঠামো নিয়ে বিশদ সমীক্ষা প্রকাশিত হল। যেখানে দেখা গিয়েছে বর্তমানে দেশের পাঁচ রাজ্যে বেকারত্ব বৃদ্ধি পেয়েছে অনেকটাই। বেকারত্বের হারের দিক দিয়ে, বিহার শীর্ষ পাঁচ রাজ্যের মধ্যে প্রথম স্থানে রয়েছে। বিহার (৯.৮%), হরিয়ানা (৯.৩%), কেরল (৯%), এবং উত্তরাখণ্ড (৮.৯%) এবং পাঞ্জাব (৭.৪)।

এই তালিকায় অবশ্য শেষের দিকে রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ-সহ আরও বেশ কয়েকটি রাজ্য। তবে এই বেকারত্ব বৃদ্ধি হওয়া রাজ্যে জল, আবাসন, স্যানিটেশন, বিদ্যুৎ, রান্নার জ্বালানি ইত্যাদি উন্নয়নমূলক বিষয়গুলি বাকি রাজ্যের থেকে অনেকটাই ভাল। পাঞ্জাব এই তালিকায় নাম তোলায় অবাক হয়েছে অনেকেই। কারণ মজার বিষয় হচ্ছে, ২০১৭ সালের বিধানসভা নির্বাচনের আগে পাঞ্জাব সরকার রাজ্যের ‘ঘরে ঘরে চাকরি’ প্রকল্পের আওতায় প্রতিটি বাড়িতে একটি করে চাকরীর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। লক্ষ লক্ষ যুবক চাকরি পাওয়ার জন্য এই প্রকল্পের আওতায় নিজেদের রেজিস্টারও করেছে।

সমীক্ষায় প্রকাশিত হয়েছে ২০১২ থেকে ২০১৮ সালে বেশ কয়েকটি রাজ্যে প্রয়োজনীয় পণ্য-দ্রব্যাদি অ্যাক্সেস করার সুবিধা বৃদ্ধি পেয়েছে। কেরালা, পাঞ্জাব, হরিয়ানা এবং গুজরাতের মতো রাজ্য শীর্ষে রয়েছে এবং ওড়িশা, ঝাড়খণ্ড, পশ্চিমবঙ্গ এবং ত্রিপুরা নীচের অংশের মধ্যে রয়েছে।

অন্যদিকে, সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান, দেশের নিরিখে বাংলায় বেকারত্বের সংখ্যা কমেছে। আন্তর্জাতিক যুব দিবসে ট্যুইটে তিনি লেখেন, ‘গোটা দেশে যখন বেকারত্ব কমার হার ২৪ শতাংশ, সেখানে আমাদের বাংলায় সেই হার ৪০ শতাংশ। এর অর্থই হল, পশ্চিমবঙ্গে বেকারত্ব দ্রুত কমছে। অনেক আগে থেকেই বাংলার যুবক–যুবতীরা গোটা দেশকে পথ দেখিয়েছে। সেই কাজ ভবিষ্যতেও তাঁরা করে যাবে বলেই আমার বিশ্বাস।’

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Web Title: Economic survey 2021 punjab among top 5 states with worst unemployment

Next Story
জোড়া বিতর্কিত রায়ের গেরো, ‘স্থায়ী’ হলেন না বম্বে হাইকোর্টের সেই মহিলা বিচারপতি
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com