বড় খবর

অক্সিজেনের অভাবে চারদিনে ৭৫ করোনা রোগীর মৃত্যু, হাসপাতালে চরম আতঙ্ক

“অক্সিজেনের অভাবেই এতজন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। বিজেপি সরকার সেটা ধামাচাপা দিতে চাইছে। দায়িত্বজ্ঞানহীন, অসংবেদনশীল এবং অপদার্থ মুখ্যমন্ত্রী রাজ্য চালাচ্ছেন।”

Oxygen, Second Wave. Parliament
এই ধরণের ছবি দ্বিতীয় ঢেউয়ের সময় ভাইরাল হয়েছিল। ফাইল ছবি

চারদিনে ৭৫ জন করোনা রোগীর মৃত্যু। প্রশ্নের রাজ্যের বৃহত্তম কোভিড হাসপাতাল। গোয়া মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে গত চারদিনে অন্তত ৭৫ জন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে অক্সিজেনের অভাবে। শুক্রবারই অন্তত ১৩ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। তার আগের দিন ১৫, বুধবার ২১ এবং গত মঙ্গলবার ২৬ জন প্রাণ গিয়েছে। হাসপাতাল এখন আতঙ্কের জায়গা হয়ে গিয়েছে রোগী ও পরিজনদের জন্য।

তবে এখনও রাজ্য সরকার এতগুলি মৃত্যুর স্পষ্ট কারণ জানায়নি। কিন্তু বম্বে হাইকোর্টের গোয়া বেঞ্চে সরকার জানিয়েছে, মেডিক্যাল অক্সিজেন সরবরাহের জন্য পরিবহণ ব্যবস্থা যথাযথ নেই। বৃহস্পতিবারই রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল হাইকোর্টে জানিয়েছেন, অক্সিজেন সিলিন্ডার বহণকারী ট্রাক্টরগুলিতে সমস্যার কারণে অক্সিজেন হাসপাতালে সময়মতো পাঠানো সম্ভব হয়নি।

এদিকে, রাজ্যের বৃহত্তম কোভিড হাসপাতালে এতগুলি মৃত্যুর কারণে গোয়া কংগ্রেস মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সাওয়ান্ত এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রী বিশ্বজিৎ রাণের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়ের করার হুঁশিয়ারি দিয়েছে। প্রদেশ সভাপতি গিরিশ চোড়ানকর বলেছেন, “অক্সিজেনের অভাবেই এতজন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। বিজেপি সরকার সেটা ধামাচাপা দিতে চাইছে। দায়িত্বজ্ঞানহীন, অসংবেদনশীল এবং অপদার্থ মুখ্যমন্ত্রী রাজ্য চালাচ্ছেন।”

প্রদেশ কংগ্রেস দুজনের বিরুদ্ধে খুনের মামলা দায়ের করবে বলে জানিয়েছে। একে গণহত্যা বলে দাবি করেছে কংগ্রেস। তাদের প্রশ্ন, “স্বাস্থ্যমন্ত্রী সংবাদমাধ্যমের কাছে স্বীকার করুন, যদি রাত ২টো থেকে ভোর ছটার মধ্যে রোগীদের মৃত্যু হয় প্রতিদিন, তাহলে এই চারদিনে অন্তত ২০০-৩০০ জনের মৃত্যু হয়েছে।”

Get the latest Bengali news and General news here. You can also read all the General news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Goa hospital horror continues as 13 more covid patients die at gmch toll touches 75 in four days

Next Story
‘টিকা না থাকলে ব্যবধান বাড়ানো ছাড়া উপায় কী’! সরব মার্কিন স্বাস্থ্য উপদেষ্টা
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com