বড় খবর

রোগের সংক্রমণ রুখতে নয়া দাওয়াই ভাল কাজ করেছে, মত সরকারের

তিনি এও জানান, “তাপ সম্পর্কিত রোগ এবং কলেরার মতো রোগের সম্ভাবনা সম্পর্কে পূর্বাভাস দিতে পারি। এ জাতীয় ব্যবস্থা স্থাপন করা হলে স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে প্রস্তুত করার জন্য পর্যাপ্ত সময় দিতে পারে।

প্রযুক্তি যত এগোচ্ছে, বিজ্ঞান যত উন্নত হচ্ছে, ততই মানব সভ্যতা এগিয়ে চলেছে উন্নয়নের দিকে। এবার আগাম স্বাস্থ্য ও মহামারী বিষয়ক সতর্কতা জানাবে নতুন সিস্টেম। দেশে রোগের প্রকোপ হওয়ার সম্ভাবনা পূর্বাভাস করবে এই সিস্টেম (Early Health Warning System)। আবহাওয়ার পরিবর্তনের সঙ্গে ভেক্টরজনিত রোগের প্রাদুর্ভাব, বিশেষত ম্যালেরিয়া এবং ডায়রিয়ার পূর্বাভাস পাওয়া যাবে।

অস-সংক্রামক রোগের উপর নজরদারি করারও সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানান হএয়ছে।

এমওইএসের সচিব এম রাজীবন দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে বলেছেন, “কিছু কিছু রোগ রয়েছে যেখানে আবহাওয়ার নিদর্শনগুলি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। যেমন ম্যালেরিয়া, যার জন্য নির্দিষ্ট তাপমাত্রা এবং বৃষ্টিপাতের নিদর্শনগুলি অনুমান করতে পারে যে কোনও অঞ্চলে মোটামুটি যুক্তিসঙ্গত নির্ভুলতার সঙ্গে প্রাদুর্ভাবের সম্ভাবনা রয়েছে। আমরা যা দেখছি তা হ’ল প্রায় দুই সপ্তাহের আগাম সতর্কতা। বৃষ্টিপাত এবং তাপমাত্রার ধরণগুলির পরিবর্তনগুলি সম্ভবত ভৌগলিক অবস্থানগুলি জুড়ে এই রোগগুলির বর্ধমান প্রকৃতির ক্ষেত্রে প্রধান ভূমিকা পালন করে।”

তিনি এও জানান, “তাপ সম্পর্কিত রোগ এবং কলেরার মতো রোগের সম্ভাবনা সম্পর্কে পূর্বাভাস দিতে পারি। এ জাতীয় ব্যবস্থা স্থাপন করা হলে স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে প্রস্তুত করার জন্য পর্যাপ্ত সময় দিতে পারে। এই বছরের শুরুতে মহারাষ্ট্র, পুনে এবং নাগপুরের দুটি জেলাতে ম্যালেরিয়া এবং ডায়রিয়ার ক্ষেত্রে একটি বিশদ বিশ্লেষণ করা হয়েছিল। সমীক্ষায় দেখা গেছে যে উভয় জেলায় উভয়ই রোগের প্রকোপ রয়েছে, নাগপুরে ম্যালেরিয়া সংখ্যার বেশি সংখ্যার কথা জানা গেছে, পুনেতে ডায়রিয়ার ঘটনা বেশি।

Read the full story in English

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Web Title: Govt says weather based warning system for disease outbreaks

Next Story
ফের করোনার রূপবদল, WHO-এর সঙ্গে বৈঠক ভারতের
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com