scorecardresearch

বড় খবর

‘আফতাব আমাকে মেরে দেহ টুকরো টুকরো করে ফেলবে’! ২ বছর আগেই থানায় অভিযোগ জানান শ্রদ্ধা

আফতাবের বিরুদ্ধে ২ বছর আগেই থানায় অভিযোগ করেন তার বান্ধবী শ্রদ্ধা

‘আফতাব আমাকে মেরে দেহ টুকরো টুকরো করে ফেলবে’! ২ বছর আগেই থানায় অভিযোগ জানান শ্রদ্ধা
ভয়ঙ্কর অভিযোগ

শ্রদ্ধা ওয়াকার (২৭) হত্যা মামলায় অভিযুক্ত আফতাব আমিন পুনাওয়ালাকে (২৮) আরও চার দিন পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিল দিল্লির মেট্রোপলিটান ম্যাজিস্টেটের বিচারক অভিরাল শুক্লা। আফতাবের বিরুদ্ধে অভিযোগ ১৮ মে মেহরৌলির ফ্ল্যাটে লিভ-ইন পার্টনার শ্রদ্ধা ওয়াকারকে গলাটিপে শ্বাসরোধ করে খুনের পর দেহটি ৩৫ টুকরো করেছিল। সেই টুকরোগুলো ফ্রিজে রেখে পরের তিন মাস ধরে ছড়িয়ে দিয়েছিল ছত্তরপুর-সহ দিল্লির বিভিন্ন জায়গায়।

দিল্লির মেহরৌলির লিভ-ইন-পার্টনার শ্রদ্ধা ওয়াকারকে খুন করে তার মৃতদেহ টুকরো টুকরো করা অভিযুক্ত আফতাব পুনাওয়ালা সম্পর্কে বিস্ফোরক তথ্য সামনে এসেছে। শ্রদ্ধা ওয়াকারকে হত্যার আগেও আফতাব তার সামনে তার ঘৃণ্য পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিলেন। ২০২০ সালেই সঙ্গী আফতাবের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছিলেন শ্রদ্ধা। পুলিশের কাছে দায়ের করা অভিযোগে, শ্রদ্ধা জানিয়েছিলেন যে আফতাব তাকে টুকরো টুকরো করার হুমকি দিয়েছিল এবং তাকে প্রচুর মারধর করা হত।

কি অভিযোগ করেছিলেন শ্রদ্ধা

প্রকৃতপক্ষে, ২০২০ সালে, শ্রদ্ধা আফতাবের বিরুদ্ধে নালাসোপাড়ার তুলিঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছিলেন এবং মৃত্যুর আগে আফতাব তাকে হত্যা করার এবং তার টুকরো টুকরো করার পরিকল্পনা করেছিলেন। এই অভিযোগে আফতাবের বিরুদ্ধে মারধর, খুনের চেষ্টার মতো গুরুতর অভিযোগ তুলেছিলেন শ্রদ্ধা। এই অভিযোগপত্রে শ্রদ্ধা আরও বলেছিলেন যে আফতাব তাকে হত্যার হুমকিও দেয় এবং তাকে কেটে টুকরো টুকরো করার পরিকল্পনা করেছে আফতাব।

এই অভিযোগ পত্রটি ২৮ নভেম্বর ২০২০এর

শ্রদ্ধা আফতাবের বিরুদ্ধে তাকে ব্ল্যাকমেল করার অভিযোগও করেছেন। পুলিশের কাছে দায়ের করা অভিযোগে, শ্রদ্ধা আরও অভিযোগ করেছিলেন যে আফতাব তাকে ৬ মাস ধরে একটানা মারধর করত এবং তাকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছিল। ২৮ নভেম্বর ২০২০ এ থানায় এই মর্মে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল। শ্রদ্ধা পুলিশের কাছে এই অভিযোগপত্রটি ইংরেজিতে লিখেছিলেন, যাতে তিনি তার মোবাইল নম্বর থেকে তার পুরো যন্ত্রণার কথা তুলে ধরেছিলেন।

১৮ মে শ্রদ্ধাকে হত্যা করা হয়

আফতাব পুনাওয়ালা ১৮ মে দিল্লিতে একটি ভাড়া বাড়িতে শ্রদ্ধা ওয়াকারকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে এবং তারপরে তার দেহ ৩৫ টুকরো করে বিভিন্ন জায়গায় ফেলে দেয়। তবে তিনি প্রথমে মৃতদেহের টুকরোগুলিকে দীর্ঘক্ষণ ফ্রিজে পুরে রাখেন। তারজন্য নতুন একটি ৩০০ লিটারের ফ্রিজও কেনেন আফতাব। এই পুরো বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে যখন শ্রদ্ধার বাবা তার নিখোঁজ ডায়েরি দায়ের করেন এবং তার পরে আফতাবকে ১২ নভেম্বর পুলিশ গ্রেফতার করে।

এদিকে দিল্লি পুলিশ বলছে যে আফতাব তার অপরাধ স্বীকার করেছে, অন্যদিকে আফতাব আমিন পুনাওয়ালার আইনজীবী মঙ্গলবার দাবি করেছেন যে পুনাওয়াল্লা এখনও আদালতের সামনে তার ‘লিভ-ইন পার্টনার’ শ্রদ্ধা ওয়াকারকে হত্যার কথা স্বীকার করেননি। পুনাওয়ালার আইনজীবী অবিনাশ কুমার বলেন, ‘আজ আমি পুনাওয়ালার সঙ্গে পাঁচ-সাত মিনিট কথা বলেছি। সকালে যখন আমি তার সঙ্গে  কথা বলি, তখন তিনি স্বাচ্ছন্দ্য এবং খুব আত্মবিশ্বাসী ছিলেন।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: He will kill me cut me up in pieces shraddha walkar in complaint to police in 2020