scorecardresearch

বড় খবর

২৬ ফেব্রুয়ারি অযোধ্যা মামলার সুপ্রিম শুনানি

অযোধ্যার বিতর্কিত জমি মামলায় ২০১০ সালের ৩০ জানুয়ারি এলাহাবাদ হাইকোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে দায়ের হওয়া আবেদনের শুনানি হবে শীর্ষ আদালতে।

babri masjid
১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর বাবরি মসজিদ গুঁড়িয়ে দেয় করসেবকরা (এক্সপ্রেস আর্কাইভ)
সুপ্রিম কোর্টে অযোধ্যার বিতর্কিত জমি মামলার শুনানি শুরু হচ্ছে ২৬ ফেব্রুয়ারি। বিচারপতি এস এ ববড়ে ছুটি কাটিয়ে কাজে যোগ দেওয়ার পরই শুনানির দিন নির্ধারিত হল বুধবার। এর আগে ২৯ জানুয়ারি এই মামলার শুনানি শুরু হবে বলে ঠিক হলেও, বিচারপতি বাবড়েকে ‘পাওয়া যাবে না’ বলেই দিন পিছিয়ে গিয়েছিল। এবার অযোধ্যার বিতর্কিত জমি মামলায় ২০১০ সালের ৩০ জানুয়ারি এলাহাবাদ হাইকোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে দায়ের হওয়া আবেদনের শুনানি হবে শীর্ষ আদালতে।


অযোধ্যা মামলার শুনানির জন্য পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ তৈরি হয়েছে সুপ্রিম কোর্টে। এই বেঞ্চে রয়েছেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ, বিচারপতি এস এ ববড়ে, ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়, অশোক ভূষণ এবং এস আবদুল নাজির। এই মামলার জন্য গঠিত প্রাথমিক বেঞ্চের সদস্য ছিলেন বিচারপতি ইউ ললিত। কিন্তু, তিনি একদা উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কল্যাণ সিং-এর হয়ে এ সংক্রান্ত মামলায় ওকালতি করায় বর্তমানে বিচারপতি হিসাবে নিজেকে বেঞ্চ থেকে সরিয়ে নেন।

আরও পড়ুন- আদালত অবমাননায় দোষী সাব্যস্ত অনিল অম্বানি


প্রসঙ্গত, ২০১০ সালে এলাহাবাদ হাইকোর্টের রায়ে অযোধ্যার বিতর্কিত ২.৭৭ একর জমি তিন পক্ষের (নির্মোহি আখড়া, উত্তরপ্রদেশের সুন্নি সেন্ট্রাল ওয়াকফ বোর্ড এবং রামলালা বিরাজমান) মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হয়। এই রায়কে চ্যালেঞ্চ করেই সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে আবেদনকারীরা। এর পাশাপাশি, নিজেদের ‘ভগবান রামের ভক্ত’ বলে দাবি করা লখনৌর ৭ বাসিন্দার আবেদনও শুনবে শীর্ষ আদালত। ১৯৯৩ সালে যে আইনের মাধ্যমে কেন্দ্র অযোধ্যার ৬৭.৭০৩ একর জমি অধিগ্রহণ করেছিল, তাকে চ্যালেঞ্জ করেই আবেদন করেছেন এই সাত ব্যক্তি।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ২৯ জানুয়ারি অযোধ্যার ৬৭ একর জমি রাম জন্মভূমি ন্যাস-সহ প্রকৃত মালিকের হাতে ফিরিয়ে দিতে চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের অনুমতি চেয়েছিল মোদী সরকার।

Read the full story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Hearing of ram temple case at supreme court on february 26