বড় খবর

মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় মৃত্যু ১ সাংবাদিকের, হাসপাতালে আশঙ্কাজনক ময়ূখ রঞ্জন ঘোষ

ফেরার পথে রাত সাড়ে ৩টে থেকে ৪টে নাগাদ লর্ডসের মোড়ে বলরাম মিষ্টান্ন ভান্ডারের সামনে ঘটনাটি ঘটে।

mayukh

রাতের কলকাতা শহরে এক ভয়ংকর দুর্ঘটনা! বাইক দুর্ঘটনায় মৃত্যু এক সাংবাদিকের । অন্যজন গুরুতর জঘম অবস্থায় ভর্তি আইসিইউ-তে। বৃহস্পতিবার রাতের ঘটনা। দক্ষিণ কলকাতার লর্ডসের মোড়ে দুর্ঘটনাটি ঘটে। মৃত ওই সাংবাদিকের নাম সোহম মল্লিক। এবং আহত সাংবাদিক ময়ূখ রঞ্জন ঘোষ।

সূত্রের খবর, রাত সাড়ে ৩টে নাগাদ বাইক নিয়ে ফিরছিলেন ময়ূখ ও সোহম। তখনই দুর্ঘটনাটি ঘটে। পুলিশি সূত্রে জানা গিয়েছে, গাছের সঙ্গে ধাক্কা মারে তাঁদের বাইকটি। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পড়ে যান দু’জনেই। ঘটনাস্থলেই সুইগির কয়েকজন কর্মীর নজরে আসে বিষয়টি। তৎক্ষণাৎ তাঁরা ওই দুই সাংবাদিককে তুলে হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানেই সোহম মল্লিককে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। এবং ময়ূখ রঞ্জন ঘোষকে SSKM-এর সিসিইউতে রাখা হয়।

ময়ূখের অবস্থা অত্যন্ত আশঙ্কাজনক বলে জানা গিয়েছে। তাঁকে প্রথমে SSKM-এর আইসিইউতে রাখা হয় এবং পরে অবস্থা বেগতিক দেখে মল্লিকবাজারের নিউরো সায়েন্সে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। মাথায় গুরুতর চোট পেয়েছেন তিনি। শেষ পাওয়া খবর, তাঁর একটা চোখ নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন চিকিৎসকরা। সদ্য নতুন চাকরিতে যোগ দিয়েছিলেন দু-জনই। সাংবাদিক মহলে ময়ূখ রঞ্জন ঘোষ বেশ পরিচিত মুখ। সদ্য শহরে ফিরেছিলেন তিনি। সোহম মল্লিকও দীর্ঘদিন রয়েছেন এই পেশায়। দুর্ঘটনার খবরে স্বাভাবিকভাবেই শোকের ছায়া সাংবাদিকমহলে।

পরিবার সূত্রে খবর, গতকাল রাতে ময়ূখের বাড়িতে যান সোহম মল্লিক। রাতে সেখানেই থাকার কথা ছিল। এরপর রাত সাড়ে ১১টা নাগাদ ইমন কল্যাণ লাহিড়ি নামে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অধ্যাপকের বাড়িতে যান দুই সাংবাদিক বন্ধু। ফেরার পথে রাত সাড়ে ৩টে থেকে ৪টে নাগাদ বলরাম মিষ্টান্ন ভান্ডারের সামনে ঘটনাটি ঘটে। লেক থানার পুলিস জানিয়েছেন, ময়ূখের বয়ান অনুযায়ী, তাঁদের বাইকটা স্কিড করে একটা গাছে ধাক্কা মারে। তারপর আর কিছু মনে নেই ময়ূখের। বাইকটি সোহম চালাচ্ছিলেন। ইতিমধ্যেই ঘটনাটি খতিয়ে দেখছে বলে জানানো হয়েছে লেক থানার তরফে।

Web Title: Horrible accident mayukh ranjan ghosh in icu death of another journalist

Next Story
জীবনদায়ী ভ্যাকসিন কারখানায় জীবন দিলেন পরিযায়ী শ্রমিকরা
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com