রাজ্যপালকে হুঁশিয়ারি গেহলটের।। প্যাংগং-গোগরায় লাল ফৌজের দাপাদাপি।।বাবরি মামলায় আডবানির বয়ান রেকর্ড

আজ কী ঘটল দেশে? আপডেটেড থাকতে আপনাকে যে খবর জানতেই হবে, দিনের সব গুরুত্বপূর্ণ খবর এই প্রতিবেদনে।

By: New Delhi  Updated: July 25, 2020, 07:45:22 AM

রাজস্থান হাইকোর্টের এদিনের নির্দেশে আপাতত স্বস্তিতে কংগ্রেসের ‘বিদ্রোহী’ শচিন পাইলট শিবির। আদালতের রায়ের পর পরই এদিন রাজ্যপালের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট। এদিকে, লাদাখের দেপসাং সমতলভূমি, গোগরা এবং প্যাংগং লেক ও তার উত্তরে পাহাড়ি ফিঙ্গার এলাকাগুলিতে চিনা বাহিনীর তৎপরতা লক্ষ্য করা গেছে। ওই তিন এলাকায় ৪০ হাজার সেনা মোতায়েন করে রেখেছে চিন। অন্য়দিকে, সালের বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলায় সিবিআই-এর বিশেষ আদালতে বয়ান রেকর্ড করা হল এল কে আডবানির। দেশের এমনই সব খবর পড়ে নিন এক এক করে…

‘জনতা রাজভবন ঘেরাও করলে আমরা দায়ী নই’, রাজ্যপালকে হুঁশিয়ারি গেহলটের

অশোক গেহলট

রাজস্থান হাইকোর্টের এদিনের নির্দেশে আপাতত স্বস্তিতে কংগ্রেসের ‘বিদ্রোহী’ শচিন পাইলট শিবির। আদালতের রায়ের পর পরই এদিন রাজ্যপালের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট। শক্তি পরীক্ষার জন্য রাজ্যপালের কাছে বিধানসভার বিশেষ অধিবেশনের দাবি জানান তিনি। সাংবিধানিক পদে থেকেও কেন রাজ্যপাল বিশেষ অধিবেশন ডাকতে পারছেন না তা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন গেহলট। পরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেছেন, ‘এখনও পর্যন্ত শক্তি প্রদর্শেনের জন্য় এই ধরনের নক্কারজনক ঘটনা ঘটেনি। কিন্তু, রাজ্যস্থানে তাই ঘটছে। এরপর জনতা রাজভাবন ঘেরাও করলে আমরা দায়ী থাকবো না।’

*শুক্রবার সকালে রাজস্তান হাইকোর্ট জাননিয়ে দেয়, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ না মেলা পর্যন্ত শচিন পাইলট সহ কংগ্রেসের ‘বিদ্রোহী’ ১৯ বিধায়কের বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ করতে পারবেন না স্পিকার। এক্ষেত্রে ‘স্থিতাবস্থা’ জারি করেছে রাজস্থান হাইকোর্ট। হুইপ সত্ত্বেও দু’বার পরিষদীয় দলের বৈঠকে যোগ না দিয়ে শৃঙ্খলা ভেঙেছেন শচিন পাইলট ও তাঁর ১৮ অনুগামী। এই অভিযোগে তাঁদের বরখাস্তের নোটিস দিয়েছিলেন স্পিকার। সেই নোটিশকে চ্যালেঞ্জ করেই হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন ‘বিদ্রোহী’ বিধায়করা।

*এদিকে, রাজস্থানের স্পিকারের অধিকারে আদালতের হস্তক্ষেপ নিয়ে সি পি যোশীর দায়ের করা মামলায় সুপ্রিম কোর্টর রায়ে আপাতত স্বস্তিতে শচিন পাইলটরা। এই মামলার শুনানির পরবর্তী দিন ধার্য করা হয়েছে ২৭ জুলাই। শীর্ষ আদালতের তরফে জানান হয় রাজস্থান হাইকোর্টের যে নির্দেশ ছিল আপাতত তা বহাল থাকছে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

দেশের অন্য়ান্য় খবর পড়ুন নীচে

প্যাংগং-গোগরায় লাল ফৌজের দাপাদাপি, আগামী সপ্তাহেই আলোচনার সম্ভাবনা

ফাইল চিত্র

লাদাখের দেপসাং সমতলভূমি, গোগরা এবং প্যাংগং লেক ও তার উত্তরে পাহাড়ি ফিঙ্গার এলাকাগুলিতে চিনা বাহিনীর তৎপরতা লক্ষ্য করা গেছে। ওই তিন এলাকায় ৪০ হাজার সেনা মোতায়েন করে রেখেছে চিন। সেই সঙ্গে রয়েছে তাদের এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম, সাঁজোয়া গাড়ি, বুলডোজার, ট্রাক ও প্রচুর পরিমাণে অস্ত্রশস্ত্র। ফলে উত্তেজনা ফের চরমে উঠতে পারে। এই পরিস্থিতিতে নিয়ন্ত্রণরেখায় উভয় দেশের বিরোধ রয়েছে এমন সব পয়েন্ট থেকে চিনা সেনা সরানোর দাবি নিয়ে আগামী সপ্তাহে ভারত-চিন সেনা কমান্ড পর্যায়ে আলোচনা হতে পারে।

সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে, ‘বিশেষ করে প্যাংগং নিয়ে। দুই দেশের মধ্যে ফের আলোচনা প্রয়োজন। এই অংশে নিয়ন্ত্রণরেখার সীমানা নিয়ে দিল্লি-বেজিং বিরোধ রয়েছে।’ বৃহস্পতিবার বিদেশমন্ত্রক জানিয়েছে, ‘ভারত-চিন সীমান্ত নিয়ে আলোচনার জন্য শীর্ঘ্রই দুই’দেশের বৈঠক হবে। ভারত ১৯৯৩ সালে দুই দেশের মধ্যে হওয়া চুক্তি সবসময় মেনে চলে। অন্য দেশও তা মেনে চলবে।’ উল্লেখ্য দুই দেশের সেনা কমান্ডার পর্যায়ের শেষ বৈঠক হয় ১৪ জুলাই।

প্যাংগং রেঞ্জের উত্তরে ফিঙ্গার পয়েন্ট-৪ ও ফিঙ্গার পয়েন্ট-৫ এর মাঝামাঝি এলাকা থেকে চিনের সেনা কিছুটা পিছিয়েছে ঠিক, তবে এলাকা পুরোপুরি ফাঁকা হয়নি। ফিঙ্গার পয়েন্ট ৪-এ এখনও চিনা সেনা ঘাঁটি গেড়ে রয়েছে।

গত ১৫ জুন পেট্রোলিং পয়েন্ট ১৫ এর কাছে ভারত-চিন সেনা বাহিনীর রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়। পরে ৩০ জুন লাদাখের চুশুল সীমান্তে কোর কমান্ডারস্তরে বৈঠকের পরে মুখোমুখি অবস্থান থেকে সেনা পিছনো শুরু করে দুই দেশই। পূর্ব লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর তিন এলাকা থেকে সেনাবাহিনী সরানোর কথা ছিল চিনের। তার মধ্যে গালওয়ান উপত্যকা, গোগরা হট স্প্রিং ও প্যাংগং সো থেকে সেনাবাহিনী কয়েক কদম পিছিয়েছে মাত্র।

এর পরে ৫ জুলাই জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল ও চিনের বিদেশমন্ত্রী ওয়াং ই-র মধ্যে বৈঠকের পরে স্থির হয় দুই দেশই বাহিনী পিছোবে এবং মাঝে নিরপেক্ষ অঞ্চল বা বাফার জ়োন তৈরি হবে।

কিন্তু তার পরেও সেনা সরানোর কোনও আগ্রগতি চিনের তরফে দেখা যাচ্ছে না। বরং গোগরা ও হট স্প্রিং এলাকায় তাদের সামরিক পরিকাঠামো এখনও রয়েছে। Read in English

দেশের অন্য়ান্য় খবর পড়ুন নীচে

বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলায় আডবানির বয়ান রেকর্ড

এল কে আডবাণী

৯২ সালের বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলায় সিবিআই-এর বিশেষ আদালতে বয়ান রেকর্ড করা হল এল কে আদবাণীর। বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলায় অভিযুক্ত বিরানব্বই বছরের এই বিজেপি নেতা। ভিডিও লিঙ্কের মাধ্যমে আদিন বর্ষীয়ান নেতার বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩১৩ নম্বর ধারায় আডবাণীর বয়ান রেকর্ড করা হয়।

গত বৃহস্পতিবারই আদালতে বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে বাবরি ধ্বংস মামলায় আরেক অভিযুক্ত বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা মুরলী মনোহর যোশীর। এছাড়াও বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে রামচনন্দ্র কাঠারিয়া, শিবসেনার সাংসদ সতীশ প্রধানেরও।

এখনও পর্যন্ত বিশেষ আদালতে বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলায় ৩২ জন অভিযুক্তের বয়ান রেকর্ড প্রক্রিয়া চলছে। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ প্রায় প্রত্যেক দিনই অভিযুক্তদের বয়ান রেকর্ড করে এই মামলার নিষ্পত্তি করার দিকে এগোচ্ছে আদালত।

গত নভেম্বরে রামমন্দিরের রায়ের পর আডবাণী বলেছিলেন, ‘আমি ন্যায়বিচার পেয়ছি৷ নিজেকে অত্যন্ত আশীর্বাদধন্য মনে করছি, সুপ্রিম কোর্ট তার সর্বসম্মত রায় দিয়ে অযোধ্যার রাম জন্মভূমিতে ভগবান রামের জন্য একটি দুর্দান্ত মন্দির নির্মাণের পথ সুগম করেছে৷ আমি আজ অযোধ্যা মামলায় সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চের দেওয়া ঐতিহাসিক রায়কে আন্তরিকভাবে স্বাগত জানাচ্ছি৷ আমার সমস্ত দেশবাসীকে শুভেচ্ছা৷ এই রায় আমাদের জন্য উজ্জ্বল মুহূর্তের৷ কারণ, স্বাধীন ভারতের এটাই ছিল সর্বশক্তিমানের জন্য সব থেকে বড় গণআন্দোলন৷ সেই আন্দোলনে অবদান রাখার সুযোগ পাওয়ায় আমি আনন্দিত৷ আমি মনে করছি, সুপ্রিম কোর্ট তার সর্বসম্মত রায় অযোধ্যার রাম জন্মভূমিতে ভগবান রামের জন্য একটি দুর্দান্ত মন্দির নির্মাণের পথ সুগম করবে৷’ Read in English

দেশের অন্য়ান্য় খবর পড়ুন নীচে

নরসিমা রাওয়ের প্রশংসায় সোনিয়া

sonia এক্সপ্রেস আর্কাইভ।

দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী পি ভি নরসিমা রাওয়ের প্রশংসায় পঞ্চমুখ সোনিয়া গান্ধী। পি ভি নরসিমা রাওকে একজন নিষ্ঠাবান কংগ্রেস নেতা বলে সম্বোধন করেছেন সোনিয়া।

* প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তাঁর অবদানের জন্য় কংগ্রেস গর্বিত বলে মন্তব্য় করেছেন কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন সভাপতি।

* সোনিয়া বলেছেন, রাও যখন প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন, তখন গভীর অর্থনৈতিক সংকট ছিল। কিন্তু তাঁর বলিষ্ঠ নেতৃত্বে সেই পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে পেরেছিল দেশ। (Read in English)

দেশের অন্য়ান্য় খবর পড়ুন নীচে

সরকারের বেঁধে দেওয়া বিমান ভাড়া বহাল ২৪ নভেম্বর পর্যন্ত

international flights, আন্তর্জাতিক বিমান প্রতীকী ছবি।

ঘরোয়া উড়ান পরিষেবায় সরকারের বেঁধে দেওয়া বিমান ভাড়াই আপাতত বহাল রাখতে হবে। এই সময়সীমা আগামী ২৪ নভেম্বর পর্যন্ত বজায় থাকবে বলে জানাল অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রক। উল্লেখ্য়, করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউনের জেরে প্রায় ২ মাস ধরে দেশে বন্ধ ছিল বিমান পরিষেবা। এরপর গত ২৫ মে থেকে দেশে ঘরোয়া বিমান পরিষেবা শুরু করা হয়।

* এর আগে, অসামরিক বিমান পরিবহণমন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী জানিয়েছিলেন, দিল্লি ও মুম্বইয়ে ন্য়ূনতম ভাড়া হবে ৩ হাজার ৫০০ টাকা। সর্বোচ্চ ভাড়া হবে ১০ হাজার টাকা।

*অসামরিক বিমান পরিবহণ সচিব পি এস খারোলা জানিয়েছিলেন, পরিস্থিতি কেমন থাকে, তার উপর ভিত্তি করে ২৪ অগাস্টের পরও বিমানভাড়ার ঊর্ধ্ব ও নিম্ন সীমা বলবত থাকতে পারে। (Read in English)

দেশের অন্য়ান্য় খবর পড়ুন নীচে

‘অলাভজনক’, বাতিল হতে পারে রেলের ৬ হাজার স্টপেজ

ভারতীয় রেল

প্রায় ৬ হাজার ট্রেন স্টপেজকে বাতিলের পথে রেল। আগামীতে যাত্রী ও পণ্য বাহী ট্রেন চলাচলে ‘জিরো বেসড টাইম টেবিল’ বৈজ্ঞানিক নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতির প্রয়োগ করবে রেল। এতে রেলের গতি বাড়বে। ফলে অলাভজনক স্টেশনগুলিতে অযথা ট্রেন থামিয়ে সময় নষ্ট করতে রাজি নয় ভারতীয় রেল।

*লকডাউনের সময় আইআইটি মুম্বইয়ের সহায়তায় সময়সূচি তারির কাজ শেষ করেছে রেল। কোন স্টেশনে কেন ট্রেন থামবে তা বিশ্লেষণ করা হয়েছে। তবে মহামারীর কারণে নতুন ট্রেন চলাচল নিয়ন্ত্রণের পদ্ধতি প্রয়োগ থমকে রয়েছে।

*রেল সূত্রে দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানতে পেরেছে যে, যেসব স্টেশন থেকে দিনে ৫০ জনের কম যাত্রী ট্রেনে ওঠা-নামা করে সেগুলিইকেই প্রাথমিক ভাবে বাতিলের তালিকায় ফেলা হয়েছে। এই মানদণ্ডে প্রায় ৬ হাজার স্টপেজ বাদ পড়বে। ট্রনের গতি বৃদ্ধিই নতুন পদ্ধতি প্রয়োগের মূল কারণ।

দেশের অন্য়ান্য় খবর পড়ুন নীচে

লাল কেল্লায় স্বাধীনতা দিবস উদযাপন এবার স্কুল পড়ুয়াহীন, পুলিশ পরবে পিপিই

করোনা অতিমারীর আবহে বদলে যাচ্ছে লাল কেল্লায় চিরাচরিত স্বাধীনতা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠান। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা থেকে সংক্রমণ রুখতে বলবৎ নানান বিধি বজায় রাখতে স্বাধীনতা দিবসের সমারোহ অনেকটাই ছেঁটে ফেলতে হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।

*প্রত্যেকবারের মতো এবার আর স্কুলের পড়ুয়াদের স্বাধীনতা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠান দেখতে পাওয়া যাবে না। অতিথি-অভ্যাগত থেকে গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সংখ্যাও অন্যান্যবারের তুলনায় অনেকটাই কম হবে। নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশকে পিপিই কিট পরতে দেখা যাবে।

*আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার এক আধিকারিক দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে বলেছেন, ‘প্রতিবার লাল কেল্লায় স্বাধীনতা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিতের সংখ্যা থাকে ৯০০-১০০০ জন। এবার অতিমারীর কারণে সেই সংখ্যা কমে হবে আড়াইশ।’ তবে অভ্যাগতদের চূড়ান্ত তালিকা তৈরি করবে প্রতিরক্ষামন্ত্রক।

দেশের অন্য়ান্য় খবর পড়ুন নীচে

এই প্রথম ১৬৪ মহিলা সাব-ইন্সপেক্টরকে নিয়োগ দক্ষিণ পশ্চিম রেলে

rail
ছবি: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

দক্ষিণ পশ্চিম রেলে প্রথমবার ১৬৪ জন সাব-ইন্সপেক্টরকে আরপিএফে নিয়োগ করা হল। যাঁদের মধ্য়ে ৭ জন, যাঁরা হায়দরাবাদে মৌলা আলিতে আরপিএফ ট্রেনিং সেন্টার থেকে পাস করেছেন।

* মহিলা ও শিশুদের সুরক্ষার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে এই বাহিনীকে।

* দক্ষিণ পশ্চিম রেলের তরফে জানানো হয়েছে, হায়দরাবাদে ৯ মাসের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে ওই বাহিনীকে। (Read in English)

শের সব গুরুত্বপূর্ণ খবর পড়ুন এই প্রতিবেদনে

Get all the Latest Bengali News and West Bengal News at Indian Express Bangla. You can also catch all the General News in Bangla by following us on Twitter and Facebook

Web Title:

India top news national today latest news update 24 july 2020 india rajasthan gehlot pilot modi bjp congress india china

The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com.
Advertisement

ট্রেন্ডিং
মমতার পাশেই অভিজিৎ
X