বড় খবর

‘দাঁত ভাল নেই’ মহাকাশ অভিযানের আশা ছাড়তে হল বহু ভারতীয় পাইলটকে

মোট ৬০ জন বায়ুসেনার পাইলটকে পাঠানো হয় রাশিয়ায়। তাঁদের মধ্যে ১২ জনকে নির্বাচিত করা হয়েছে গগনযান অভিযানের জন্য। বর্তমানে নির্বাচিত গগনটরা রাশিয়ার স্টার সিটির ইয়ুরি গ্যাগারিন কসমোনট ট্রেনিং সেন্টারে গিয়ে ট্রেনিংরত রয়েছেন, এমনটাই জানানো হয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনার তরফে।

রাশিয়ায় ট্রেনিংরত সেনা। ছবি- ভারতীয় বায়ুসেনা সৌজন্যে

কথায় বলে, মানুষ দাঁত থাকতে দাঁতের মর্ম বোঝে না। কিন্তু, ভারতীয় বায়ুসেনার ৪৮ জওয়ান এখন বুঝছেন, দাঁত থাকলেও, ভাল দাঁত না থাকার মর্ম কী! হ্যাঁ, কেবল দাঁত ভাল নয় বলেই ভারতের প্রথম মানববাহী মহাকাশ প্রকল্প থেকে প্রাথমিক স্তরেই বাদ পড়লেন তাঁরা। ফলে, তিন মাসের প্রস্তুতির পর ভারতের গগনযান যাত্রায় মহাকাশযাত্রী নির্বাচন পর্বে ৬০ বায়ুসেনার মধ্যে নির্বাচিত হলেন মাত্র ১২ জন। প্রায় ৪৫ দিন ধরে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন ‘গগনযান অভিযানে’ অভিযাত্রী বা ‘গগনট’রা। এরপর ভারত থেকে মোট ৬০ জন বায়ুসেনার পাইলটের মধ্যে ১২ জনকে নির্বাচিত করা হয়েছে গগনযান অভিযানের জন্য।

বর্তমানে নির্বাচিত গগনটরা রাশিয়ার স্টার সিটির ইউরি গ্যাগরিন কসমোনট ট্রেনিং সেন্টারে প্রশিক্ষণরত, এমনটাই জানানো হয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনার তরফে।

তবে আশ্চর্যজনকভাবে দাঁতের সমস্যাজনিত কারণে ৪৮ জন বাদ পড়েছেন এই অভিযানের প্রথম ধাপে। জানা গিয়েছে, রাশিয়ায় ট্রেনিং শেষে দেশে পাঠানো হবে ২০২০ সালের গগনযান মিশনের শেষ ধাপের ট্রেনিংয়ের জন্য। ১২ জনের মধ্যে থেকে চূড়ান্ত পর্যায়ের জন্য বাছাই করা হবে তিন জনকে। জুলাই ও আগস্টে প্রথম স্তরের বাছাইপর্বের সময় বেশিরভাগ বায়ুসেনার প্রাথমিক সমস্যা ছিল দাঁতের, বার্ষিক সম্মেলনে এমনটাই জানিয়েছেন ইন্ডিয়ান সোসাইটি অফ এয়ারস্পেস মেডিসিন (আইএএম)-এর বিশেষজ্ঞরা।

আরও পড়ুন- গগনযান: মহাশূন্যে কীভাবে যাবেন ভারতীয় মহাকাশচারী

প্রায় তিন দশক ধরে মহাকাশে ভারতীয়দের পাঠানোর জন্য প্রার্থী বাছাইয়ের কাজ করে আসছে আইএএম। প্রসঙ্গত, ১৯৮৪ সালে রাশিয়ার সোয়েজ টি-১১ মিশনের জন্য ১৯৮২ সালে দুই কসমোনট রাকেশ শর্মা এবং রাভিশ মালহোত্রাকে নির্বাচিত করা হয়েছিল। প্রাথমিকভাবে ২৪ জন পাইলটের মধ্যে ১৬ জন পাইলটকে নির্বাচন করেছিল ভারত। পরবর্তীকালে পাইলটদের দাঁতের সমস্যার জন্য রাশিয়ার এয়ারোস্পেস মেডিসিন এক্সপার্টরা সেই সংখ্যা কমিয়ে আনেন।

ভারতীয় বায়ুসেনার তরফে অনুপম আগরওয়াল বলেন, “আমরা ভেবেছিলাম দাঁতের সমস্যা কোনও বড় সমস্যা নয়। কিন্তু রাশিয়ার বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, এই একটা সমস্যাই মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে মহাকাশে।” ইউরোপের ইএসএ-র পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, “মহাকাশচারীদের দাঁতের অবস্থা ভালো না হলে মহাকাশে ওই গতি এবং ভাইব্রেশনের সঙ্গে যুঝতে পারে সম্ভব নয়। এমনকি দাঁতে যদি ক্যাভিটিও থেকে থাকে, সেটাও অ্যাটমোস্ফেয়ারিক প্রেসারে মারাত্মক যন্ত্রণাদায়ক হতে পারে।”

আরও পড়ুন- সবুজ সংকেত পেল বাইশের গগনযান, মহাকাশে পাড়ি দেবেন তিন ভারতীয়

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর স্বপ্নের মানববাহী মহাকাশ অভিযানে সবুজ সংকেত দেয় কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। স্বাধীনতা দিবসের দিন লালকেল্লা থেকে ভারতীয়দের মহাকাশে পাঠানোর পরিকল্পনা ঘোষণা করেছিলেন নরেন্দ্র মোদী। পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ হলে ২০২২ সালে তিনজন সদস্যকে নিয়ে পৃথিবী ছেড়ে মহাকাশে উড়ে যাবে ভারতের বৃহত্তম ভারী রকেট GSLV Mk III। তিন মহাকাশচারী কমপক্ষে সাতদিন কাটাবেন মহাশূন্যে। প্রকল্পের জন্য খরচ হবে প্রায় ১০,০০০ কোটি টাকা। এই মিশন সফল হলে, পরবর্তী ধাপে ভারত থেকে মহাকাশে আরও মানুষ পাঠানো সম্ভব হবে বলে মনে করা হচ্ছে। মিশন সম্পূর্ণ হলে মহাকাশে মানুষ পাঠিয়েছে এমন দেশের তালিকায় চতুর্থ স্থানে নাম লেখাবে ভারত।

Read the full story in English

Get the latest Bengali news and General news here. You can also read all the General news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Indians in space 12 of 60 iaf test pilots in shortlist

Next Story
আসাম এনআরসিতে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের নিশানা করা হয়েছে: মার্কিন কমিশনnrc assam
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com