বড় খবর

ভারতে প্রবেশ করেছে কুখ্যাত জঙ্গি মাসুদ আজহারের আত্মীয়, উচ্চ সতর্কতা বার্তা জারি

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের হাতে আসা ইন্টেলিজেন্স সূত্রের খবর অনুযায়ী, আজহারের দাদা ইব্রাহিমের ছেলে মহম্মদ উমের মে মাসের শেষ দিকে কাশ্মীরে অনুপ্রবেশ করে।

স্বাধীনতা দিবস আগতপ্রায়। এই সময় দেশের চতুর্দিকে নিরাপত্তার বেষ্টনী এমনিতেই মজবুত করে তোলা হয় প্রতি বছরই। তার ওপর সম্প্রতি পাওয়া ইন্টেলিজেন্স সূত্রের একটি খবর দেশজুড়ে সমস্ত নিরাপত্তা সংস্থাকে চিন্তায় ফেলে দিয়েছে। খবরটা হলো, জায়েশ-এ-মহম্মদ (JeM) জঙ্গি গোষ্ঠীর নেতা কুখ্যাত মাসুদ আজহারের ভাইপো এবং ছোট ভাই, যে কিনা আবার আব্দুল রউফের প্রাক্তন দেহরক্ষী, ভারতে অনুপ্রবেশ করেছে এবং শ্রীনগর ও দিল্লিতে ‘টেরর মডিউল’ বসাচ্ছে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের হাতে আসা ইন্টেলিজেন্স সূত্রের খবর অনুযায়ী, আজহারের দাদা ইব্রাহিমের ছেলে মহম্মদ উমের মে মাসের শেষ দিকে কাশ্মীরে অনুপ্রবেশ করে। ওই মাসেই রউফের প্রাক্তন দেহরক্ষী মহম্মদ ইসমাইলও কাশ্মীরে প্রবেশ করে বলে জানা গিয়েছে। উল্লেখ্য, রউফ ১৯৯৯ সালের ফ্লাইট আইসি ৮১৪ হাইজ্যাক কাণ্ডে প্রধান অভিযুক্ত, যার জেরে ভারত সরকার বাধ্য হয় আজহারকে মুক্তি দিতে।

আরও পড়ুন: বিজেপির হোর্ডিং বলছে, আমরা বাংলাদেশী মুসলমানদের তাড়াব, বাঙালিদের নয়

চিন্তার বিষয় হলো, ইসমাইল সম্ভবত কাশ্মীরে প্রবেশ করার পর পরই দিল্লি আসে, এবং এখন কাশ্মীরে ফেরৎ গিয়ে মডিউল তৈরি করছে। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, “এই বছরের মে মাসে মহম্মদ ইসমাইলও জম্মু কাশ্মীরে ঢোকে। কিন্তু তারপর দিল্লির দিকে যায়, যেখানে তাকে কোনো বড়সড় কাণ্ড ঘটানোর উপযুক্ত মডিউল তৈরি করতে বলা হয়।”

তথ্যসূত্রে আরও বলা হয়েছে, “শেষ পাওয়া খবর অনুসারে, পাকিস্তানে অবস্থিত JeM-এর শীর্ষস্থানীয় নেতৃত্বের নির্দেশে মহম্মদ ইসমাইল পুলোয়ামা এবং শ্রীনগরের মাঝামাঝি এলাকায় রয়েছে।”

এদিকে জানা গিয়েছে, আজহারের ভাইপো উমের জম্মু কাশ্মীরে অল্পবয়সী ছেলেদের নিয়োগ এবং ট্রেনিংয়ে ব্যস্ত। উপত্যকায় সম্প্রতি জঙ্গি গোষ্ঠীতে যোগ দেওয়ার হিড়িক লেগেছে যুব সম্প্রদায়ের মধ্যে। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, “উমেরের ওপর দায়িত্ব পড়েছে ছমাস কাশ্মীরে থেকে সদ্য নিযুক্ত জঙ্গিদের ট্রেনিং এবং প্রক্রিয়াগত প্রস্তুতির ব্যবস্থা করার।”

আরও পড়ুন: সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে ভুয়ো সংঘর্ষ, অপহরণের অভিযোগ তুললেন সেনাকর্মী

ইন্টেলিজেন্সের তথ্য বলছে, ইতিমধ্যেই নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে একপ্রস্থ টক্কর হয়ে গিয়েছে উমেরের, যার পর সে পালিয়ে শ্রীনগরের পান্থ চৌক এলাকায় আশ্রয় নেয়। গত মাসে উমেরের সঙ্গে যুক্ত একটি গোষ্ঠী পুলিশের কাছ থেকে অস্ত্রশস্ত্র ছিনিয়ে নেয় বলেও খবর। এবং এই মুহুর্তের ইনপুট অনুযায়ী, উমেরের সঙ্গে যোগ দিয়েছে ইসমাইল, কাশ্মীরে JeM-এর প্ল্যান কার্যকরী করতে।

প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে সারা দেশের বিভিন্ন নিরাপত্তা বাহিনীকে অতিরিক্ত রকম সজাগ থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, বিশেষ করে জম্মু কাশ্মীর এবং দিল্লিতে। জম্মু কাশ্মীরে সমস্ত সেনা এবং কেন্দ্রীয় সশস্ত্র বাহিনীর ক্যাম্পের নিরাপত্তা বাড়ানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, এবং চূড়ান্ত সতর্কতা বজায় রাখতে বলা হয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের এক সূত্র জানাচ্ছে, কাশ্মীরে পিকেটের সংখ্যা বাড়ানো এবং বেশি সংখ্যক রাস্তা খোলার কথাও বলা হয়েছে।

দিল্লিতে পুলিশ এবং কেন্দ্রীয় সশস্ত্র বাহিনীকে উচ্চ সতর্কতায় রাখা হয়েছে। সারা শহরে দিল্লি পুলিশ নাকাবন্দি চালু করেছে, এবং সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্স সমস্ত মেট্রো স্টেশনে অতিরিক্ত চেকিং করছে।

Web Title: Intel input about jaish e mohammed chief masood azhars nephew in india agencies placed on high alert

Next Story
Tea Garden Workers Strike: ন্যূনতম মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে চা বাগান ধর্মঘট, সাড়া নিয়ে চাপান উতোর দু পক্ষের
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com