scorecardresearch

বড় খবর

‘বিচারক নিয়োগে অনেকপক্ষ জড়িয়ে’, বিচারব্যবস্থার পক্ষে মন্তব্য প্রধান বিচারপতির

CJI NV Ramanna: প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘বিচারব্যবস্থার সামনে এখন বড় প্রতিবন্ধকতা শূন্যপদে বিচারক নিয়োগ ঝুলে থাকা।‘  

Judicial infrastructure of courts always an afterthought CJI nv ramana raises concerns
দেশের প্রধান বিচারপতি এনভি রামানা

CJI NV Ramanna: বিচারক নিয়োগ করেন বিচারকরাই। বর্তমান সময়ে এই ধারণা মিথে পরিণত হয়েছে। রবিবার বিজয়ওয়ারার এক অনুষ্ঠানে এই মন্তব্য করেন দেশের প্রধান বিচারপতি। বিচারপতি এনভি রামান্না বলেন, ‘বিচারক নিয়োগে বিচারব্যবস্থা শুধু একজন শরিক। এই নিয়োগ প্রক্রিয়ায় একাধিক শরিক রয়েছে। আইন মন্ত্রক, রাজ্য সরকার, রাজ্যপাল, হাইকোর্ট কলেজিয়াম, গোয়েন্দা দফতর এবং উচ্চপদে আসীন আমলারা।‘ এঁরা প্রত্যেকেই অনেক প্রার্থীদের মধ্যে থেকে যোগ্যতমকে বেছে নেয়।‘

সম্প্রতি একাধিক শূন্যপদে বিচারপতি নিয়োগ করেছে মোদি সরকার। সেই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘বিচারব্যবস্থার সামনে এখন বড় প্রতিবন্ধকতা শূন্যপদে বিচারক নিয়োগ ঝুলে থাকা।‘

এদিকে, আইনের পেশা মানে শুধুই অর্থ উপার্জন নয়, সমাজসেবাও বটে। গত মাসে নয়াদিল্লি এক অনুষ্ঠানে এভাবেই আইনজীবীদের নীতিশিক্ষার পাঠ দিলেন দেশের প্রধান বিচারপতি। কেন্দ্রীয় আইন মন্ত্রী কিরেন রিজেজুর উপস্থিতিতে প্রধান বিচারপতি এনভি রামান্না বলেন, ‘আইনের পড়ুয়া এবং স্নাতকরা সমাজের প্রান্তিক এবং নির্যাতিত অংশের কণ্ঠ হওয়ার যোগ্য।‘ এদিন তিনি দেশের আইন ব্যবস্থায় বদল আনতে আইন মন্ত্রীর ব্যক্তিগত উদ্যোগকে কুর্নিশ জানান।

এদিকে, সম্প্রতি দেশের আইনি ব্যবস্থার সংস্কারের পক্ষে সওয়াল করেন প্রধান বিচারপতি। দেশের আইনি প্রক্রিয়া ‘ঔপনিবেশিক’, এর ‘ভারতীয়করণ’ হওয়া জরুরি, এটাই সময়ের ডাক। এমনটাই মনে করেন বিচারপতি এন ভি রামানা। ভারতের বিপুল জনসংখ্যার সঙ্গে আইনি ব্যবস্থা সামঞ্জস্যপূর্ণ নয় বলেও দাবি করেছেন তিনি।

কর্নাটকের বার অ্যাসোসিয়েশনের এক সভায় আদালতের বিচার প্রক্রিয়ার স্বচ্ছতা ও দায়বদ্ধতা নিয়ে সওয়াল করেন প্রধান বিচারপতি রামানা। তাঁর কথায়, ‘সাধারণ মানুষের বিচারক এবং আদালতকে ভয় পাওয়া উচিত। একই সঙ্গে আদালতেরও সান্ত্বনাদায়ক হওয়া উচিত। যে কোনও আইনি ব্যবস্থার কেন্দ্রবিন্দু হচ্ছেন মামলার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা। এ জন্য আদালতের স্বচ্ছ এবং দায়বদ্ধ হওয়া উচিত।’

ভারতের আইন প্রক্রিয়ার দীর্ঘসূত্রিতা নিয়ে সমালোচনা রয়েছে। সমস্যা সমাধানে এ দিন তাই বিকল্প আইনি ব্যবস্থার পক্ষেও সরব হন দেশের প্রধান বিচারপতি। দেশের গ্রাম ও শহরের মধ্যে বিচার ব্যবস্থার সুফল পেতে বৈষম্যের কথাও তুলে ধরেন বিচারপতি রামানা। তাঁর মতে, ‘গ্রামের অনেক মানুষ ইংরেজি ভাল করে বোঝেন না। ফলে বিচার প্রক্রিয়া থেকে দূরে চলে যান। হয়রানিক শিকার হন। দিনের শেষে বেশি অর্থও খরচ হয় তাঁদের। এই ব্যবস্থার বদল প্রয়োজন।’

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Judges are appointing judges is just a myth says cji in an event national