আইএস মডিউলের তদন্তে এনআইএ-র হাতে পাকড়াও আরও এক

এনআইএ সূত্রে জানা গিয়েছে, উত্তরপ্রদেশের গাজিয়াবাদ থেকে শুক্রবার রাতে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মহম্মদ আবসর নামে বছর চব্বিশের ওই যুবকের সঙ্গে আইএস যোগ রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

By: New Delhi  Published: Jan 13, 2019, 1:00:13 PM

এ দেশে আইএস কারবার রুখতে উঠেপড়ে লেগেছেন তদন্তকারীরা। কয়েকদিন আগেই আইএস জঙ্গিদের নতুন মডিউলের খোঁজে জোরদার তল্লাশি চালিয়েছিল এনআইএ। যে ঘটনায় বেশ কয়েকজনকে পাকড়াও করা হয়েছে। এবার একই ঘটনায় নতুন করে আরও একজনকে গ্রেফতার করল এনআইএ। উত্তরপ্রদেশের গাজিয়াবাদ থেকে নতুন করে এ ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা।

এনআইএ সূত্রে জানা গিয়েছে, উত্তরপ্রদেশের গাজিয়াবাদ থেকে শুক্রবার রাতে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মহম্মদ আবসর নামে বছর চব্বিশের ওই যুবকের সঙ্গে আইএস যোগ রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। উল্লেখ্য, আইএস কারবারীদের পাকড়াও করতে নতুন করে অভিযানে নামে এনআইএ। মিরাট, হাপুর, গাজিয়াবাদে নতুন করে তল্লাশি অভিযান চালায় কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা। সেই অভিযানেই আবসরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ১২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে খবর।

আরও পড়ুন, আইএস মডিউলের খোঁজে এনআইএ অভিযানে আটক ১০ সন্দেহভাজন

দেশে ধারাবাহিক বিস্ফোরণ, আত্মঘাতী বিস্ফোরণের ছক কষার অভিযোগ উঠেছে আইএস মদতপুষ্ট দলগুলির বিরুদ্ধে। শুধু তাই নয়, তাদের টার্গেটে রয়েছেন দেশের রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরাও। দিল্লি ও উত্তর ভারতের বিভিন্ন এলাকায় এমন হামলার ছক কষা হচ্ছে বলে অভিযোগ পেয়েছেন তদন্তকারীরা।

সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছে, জঙ্গি হামলার ষড়যন্ত্রে গত বছরের মে ও অগাস্ট মাসে জম্মু-কাশ্মীরের তিনটি জায়গায় যায় আবসর। তার সঙ্গে ছিল আরেক অভিযুক্ত ইফতেখার সাকিব।

এর আগে নয়া দিল্লি ও উত্তর প্রদেশের ১৬টি জায়গায় তল্লাশি অভিযান চালিয়েছিল এনআইএ। সেসময় তল্লাশিতে ১০ জন সন্দেহভাজনকে পাকড়াও করা হয়েছিল। এনআইএ সূত্রে জানা গিয়েছিল, আইএস জঙ্গিদের নতুন একটি মডিউল ‘হরকত উল হারব এ ইসলাম’-কে নিয়ে বেশ কিছু তথ্য পেয়েছেন গোয়েন্দারা।

Read the full story in English

Indian Express Bangla provides latest bangla news headlines from around the world. Get updates with today's latest General News in Bengali.


Title: ‘IS module’: আইএস মডিউলের তদন্তে এনআইএ-র হাতে পাকড়াও আরও এক

Advertisement