scorecardresearch

বড় খবর

সংরক্ষণ ইস্যুতে ব্যাকফুটে এমভিএ, জিততে মরিয়া বিজেপি

আদালত বলেছে যে প্রতি পাঁচ বছর পর পর স্থানীয় সংস্থাগুলির নির্বাচন করা রাজ্য সরকারের সাংবিধানিক দায়িত্ব।

আদালত স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে যে এই নির্বাচনগুলি ওবিসি সংরক্ষণ ছাড়াই অনুষ্ঠিত হবে।

সুপ্রিম কোর্ট বুধবার নির্দেশ দিয়েছে যে মহারাষ্ট্রের নাগরিক নির্বাচনের জন্য নির্বাচনের সময়সূচী দুই সপ্তাহের মধ্যে ঘোষণা করতে হবে। রাজ্য সরকার আগেই বলেছিল যে ওবিসিদের জন্য রাজনৈতিক কোটা অনুমোদিত হওয়ার পরে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ২৩টি পুর কর্পোরেশন, ২৫টিরও বেশি জেলা পরিষদ এবং তাদের আধীনে থাকা পঞ্চায়েত সমিতি এবং গ্রাম পঞ্চায়েতের নির্বাচন হওয়ার কথা।

নাগপুরে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলার সময়, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফাডনাভিস বলেছেন, বেশ কয়েকটি পৌর কর্পোরেশন তাদের পাঁচ বছরের মেয়াদ শেষ করেছে এবং পুর প্রশাসকের অধীনে কাজ করছে। “আজকের সুপ্রিম কোর্টের আদেশ রাজ্যের মহা বিকাশ আঘাদি (শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেস) সরকারের জন্য এক বড় ধাক্কা।

মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে, বৃহস্পতিবার ডেপুটি সিএম অজিত পাওয়ার এবং এনসিপি মন্ত্রী ছগান ভুজবল, সিনিয়র আমলা এবং অ্যাডভোকেট জেনারেল আশুতোষ কুম্ভকোনি সহ গুরুত্বপুর্ণ মন্ত্রীদের নিয়ে এক বৈঠক করেন। বৈঠকে আসন্ন পুর নির্বাচনের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সূত্রের খবর, অ্যাডভোকেট জেনারেল আশুতোষ কুম্ভকোনি বৈঠকে বলেছিলেন যে আদালত এই বছরের মার্চের শুরুতে মহারাষ্ট্র বিধানসভা দ্বারা পাস করা এমভিএ সরকারের সংশোধিত আইনকে স্থগিত করেছে কিনা সে বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের আদেশ “অস্পষ্ট”

আসন্ন পুর নির্বাচনে ওবিসি সংরক্ষণের বিষয়ে পিটিশনের শুনানির সময় সুপ্রিম কোর্ট এক রায়ে বলেন, ‘ ২ সপ্তাহের মধ্যে কমিশনকে পুর নির্বাচনের নির্ঘ্নট প্রকাশ করতে হবে’। যেহেতু বেশ কয়েকটি পৌর কর্পোরেশন তাদের পাঁচ বছরের মেয়াদ শেষ করেছে। আদালত নির্বাচন কমিশনকে জানায়, ‘দুই সপ্তাহের মধ্যে এই নির্ঘ্নট আদালতের সামনে পেশ করতে হবে’।

মহারাষ্ট্র সরকার সুপ্রিম কোর্টে যুক্তি দিয়েছিল যে রাজ্যে নতুন নীতি অনুসারে সীমানা নির্ধারণের কাজ চলছে। তাই একবার সীমানা নির্ধারণ হলেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তবে আদালত বলেছে যে প্রতি পাঁচ বছর পর পর স্থানীয় সংস্থাগুলির নির্বাচন করা রাজ্য সরকারের সাংবিধানিক দায়িত্ব। এতে কোনো ধরনের অবহেলা, বিলম্ব সমর্থনযোগ্য নয়। আদালত স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে যে এই নির্বাচনগুলি ওবিসি সংরক্ষণ ছাড়াই অনুষ্ঠিত হবে।

পুর নির্বাচনে ওবিসি সংরক্ষণ মহারাষ্ট্রে একটি প্রধান রাজনৈতিক সমস্যা হিসাবে উঠে এসেছে। প্রধান বিরোধী দল বিজেপি বিশ্বাস করে যে শীর্ষ আদালতের আদেশ শিবসেনা, এনসিপি এবং কংগ্রেসের সমন্বয়ে গঠিত এমভিএ জোট সরকারকে ধাক্কা দিয়েছে। যা তারা তার নির্বাচনী সুবিধার কাজে লাগানোর পরিকল্পনা করছে।

আরো পড়ুন: ‘সৌরভ রাজনীতিতে এলে ভালোই করবেন’, দাদার সেকেন্ড ইনিংসের ইঙ্গিত ডোনার

এদিকে বিজেপির মহারাষ্ট্র ইউনিট রাজ্যের ওবিসিদের কাছে তাদের বার্তা আরও ভালভাবে পৌঁছানোর জন্য ৭ মে মুম্বাইতে একটি অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণি (ওবিসি) সম্মেলনের আহ্বান করেছে। বিজেপি অভিযোগ করেছে, ‘সরকার অন্যান্য অনগ্রসর সম্প্রদায়ের সংরক্ষণ অস্বীকার করতে চায়’।

বিজেপি বিধায়ক আশিস শেলার অভিযোগ করেছেন, ‘ওবিসি সংরক্ষণ বাতিল করার জন্য এটি আঘাদি সরকারের ষড়যন্ত্র, এবং আমরা বারবার তা তুলে ধরেছি। গত আড়াই বছরের উন্নয়নের দিকে তাকালে বোঝা যায় এটা ছিল পূর্ব পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র। যে আবেদনকারী আদালতে গিয়েছিলেন তিনি একজন কংগ্রেস কর্মী,’। বুধবার সুপ্রিম কোর্ট রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে ওবিসি সংরক্ষণ ছাড়াই স্থানীয় সংস্থাগুলির নির্বাচন ঘোষণা করার নির্দেশ দিয়েছে। বিজেপির রাজ্য শাখার সভাপতি চন্দ্রকান্ত পাতিল বলেছেন, দুই বছর ধরে সরকার একটি অনগ্রসর কমিশন গঠন করতে পারেনি।

Read story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Obc quota maharashtra polls mva bjp