ঝেনহুয়ার নজরে ভারতের ছোট-বড় ৬ হাজারের বেশি আর্থিক অপরাধী-সন্ত্রাসবাদী-মাদক-বেটিং চক্র

দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের তদন্তমূলক প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে যে, বেজিংয়ের নজরে ১০ হাজার ভারতীয়।

By: Jay Mazoomdaar, Kaunain Sheriff M New Delhi  Updated: September 16, 2020, 04:02:00 PM

অগাস্টা ওয়েল্যান্ড কেলেঙ্কারি, অর্থনৈতিক অপরাধ, সংঘঠিত অপরাধ, সন্ত্রাসবাদী হামলা থেকে ভারতের সোনা সহ নানা সামগ্রীর পাচারকারী, মাদক চক্র, নাবালক মোবাইল চুরি চক্র ঝেনহুয়া তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থার নজরে রয়েছে। দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের তদন্তমূলক প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে। অপরাধ তালিকায় নাম থাকা প্রায় ৬ হাজার ব্যক্তি-সংস্থার তথ্য রয়েছে ওই চিনা সংস্থার তথ্যভাণ্ডারে।

নজরে রয়েছে সত্যম গ্রুপের চয়ারম্যান রামালিঙ্গম রাজুর পরিচিত বা আত্মীয়ের ১৯ সংস্থা। এদের বিরুদ্ধে আয়কর ফাঁকির অভিযোগ রয়েছে। এছাড়াও নজরদারিতে রয়েছে ঝাড়খণ্ড কোষাগার কেলেঙ্কারি, পশু খাদ্য কেলেঙ্কারি ও ভ্যাপম কেলেঙ্কারির মত ঘটনাও।

আরও পড়ুন- এক্সক্লুসিভ: চিনা নজরদারিতে রিজিজু-মুফতি সহ উত্তর-পূর্ব ও জম্মু-কাশ্মীরের একাধিক মুখ্যমন্ত্রী-আমলা

ঝেনহুয়ার তথ্যভাণ্ডের ধরা রয়েছে, সোনিয়া গান্ধীর জামাই রবার্ট বঢরার সংস্থা স্কাই লাইট হসপিটালিটি প্রাইভেট লিমিটেডের বিরুদ্ধে ইডির তদন্ত, ঝাড়কণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মধু কোড়ার বিরুদ্ধে আর্থিক তছরুপের মামলা, কর্নাটকের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামীর বিরুদ্ধে বেআইনিভাবে আত্মীয়কে জমি হস্তান্তর মামলা। আর্থিক অপরাধ পর্যবেক্ষণের বিষয়টি দুর্নীতি, ঘুষ এবং জালিয়াতির ক্ষেত্রে প্রসারিত। এছাড়াও সেবি ৫০০টির বেশি সংস্থাকে নজরবন্দি করেছে। এই সংস্থাগুলোও রয়েছে ঝেনহুয়ার নজরদারিতে।

আরও পড়ুন- ভারতের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের তথ্য পৌঁছল চিনের কাছে? ‘নয়া যুদ্ধের’ ইঙ্গিত

১০০টিরও বেশি সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপও চিনা সংস্থার পর্যবেক্ষণে ধরা রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে দাউদ ইব্রাহিম, টাইগার মেনন, জামাত উল মাজাহিদিন বাংলাদেশ সংগঠনের সদস্য ও কাজ, ২০১৪ সালের খাগড়গড় বিস্ফোরণ। ছত্তিশগড়ে ভারতের পিপলস লিবারেশন ফ্রন্টের বিরুদ্ধে অপহরণ-খুনের মত ২৮ মামলা, ২০১৫ সালের বরোল্যাণ্ড আন্দোলনের নানা তথ্য রয়েছে ঝেনহুয়ার ডাটাবেসে।

আরও পড়ুন- এক্সক্লুসিভ: চিনা নজরদারিতে মোদী-মমতা-সোনিয়া সহ বহু গণ্যমান্য

দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের তদন্তমূলক প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে যে, বেজিংয়ের নজরে ১০ হাজার ভারতীয়। চিনা সরকার ও চিনা কমিউনিস্ট পার্টির সঙ্গে সংযুক্ত শেনজেন ভিত্তিক তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা ঝেনহুয়া এই নজরদারির কাজ করছে। ‘হাইব্রিড ওয়ারফেয়ার’ এবং ‘চীনা জাতির মহান পুনর্জাগরণের’ লক্ষ্যেই এই কাজ করা হচ্ছে বলে দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের তদন্তমূলক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। নজরে রয়েছেন, ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী ও তাঁদের পরিবার। এমনকী তালিকায় নাম রয়েছে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়েরও। নজরে একাধিক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী, ন্যূনতম ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত ১৫ অফিসার, সিডিএ বিপিন রাওয়াত, দেশের প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদে সহ সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা। এছাড়াও লোকপালের বিচারপতি, ক্যাগ প্রধান জি সি মুর্মূ, শিল্পপতি রতন টাটা, গৌতম আদানি, বিনিয়োগকারী নিপুন মেহেরা, ভারত পে’র প্রতিষ্ঠাতা সহ ভারতের বিশিষ্ট শিল্পপতিরা।

Read in English

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Get all the Latest Bengali News and West Bengal News at Indian Express Bangla. You can also catch all the General News in Bangla by following us on Twitter and Facebook

Web Title:

Over 6000 accused of financial crime terrorism ipl betting narcotics smuggling big to small in chinese firm tracked

The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com.
Advertisement

ট্রেন্ডিং
করোনা আপডেট
X