scorecardresearch

বড় খবর

চরমে ওমিক্রন আতঙ্ক, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে দিল্লি হয়ে মুম্বইয়ে আসা যাত্রী পজিটিভ

নতুন আতঙ্ক ভাইরাসের নতুন প্রজাতি ‌বি.১.১৫২৯। নাম ওমিক্রন। দক্ষিণ আফ্রিকাতে দেখা মিলেছে এর।

চরমে ওমিক্রন আতঙ্ক, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে দিল্লি হয়ে মুম্বইয়ে আসা যাত্রী পজিটিভ
ওমিক্রন আতঙ্ক, নয়া নির্দেশিকা জারি কেন্দ্রের।

নতুন আতঙ্ক ভাইরাসের নতুন প্রজাতি ‌বি.১.১৫২৯। নাম ওমিক্রন। দক্ষিণ আফ্রিকাতে দেখা মিলেছে এর। সেই দেশ থেকে দিল্লি হয়ে মুম্বইয়ে আসা ভারতীয়র শরীরে সংক্রমণ পজিটিভ মিলেছে। তবে সেই ব্যক্তি ওমিক্রনে আক্রান্ত কিনা তা এখনও নিশ্চিত নয়।

মুম্বইয়ের ডোম্বিভলির ৩২ বছর বয়সী বাসিন্দা ২৪ নভেম্বর দক্ষিণ আফ্রিকার কেপ টাউন থেকে দিল্লি হয়ে, পৌঁছান। সেখানেই তাঁর করোনা পরীক্ষা হয়। এর পর কানেকটিং উড়ান ধরে মুম্বইয় আসেন। পরীক্ষায় ধরা পড়ে যে ওই ব্যক্তির শরীরে করোনা ভাইরাস রয়েছে। যদিও আক্রান্ত উপসর্গহীন। বাড়ি ফিরেই মুম্বইয়ে হোম কোয়ারেন্টিন ছিলেন ওই ব্যক্তি। পরে অবশ্য পুরসভার তরফে তাঁকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়। জানিয়েছেন কল্যাণ ডোম্বিভলি পুরসভার প্রধান মেডিক্যাল অফিসার প্রতিভা পানপাতিল।

ওই ব্যক্তির কোপ্যাসেঞ্জারদের খোঁজ চলছে। পুরো বিষয়টি এয়ারপোর্ট অথরিটিকেও জানানো হয়েছে বলে দাবি করেছেন কল্যাণ ডোম্বিভলি পুরসভার স্বাস্থ্য আধিকারিক। মহারাষ্ট্রের অতিরিক্ত সচিব (স্বাস্থ্য) ডাঃ প্রদীপ ব্যাস বলেছেন, ‘জেনোম সিকোয়েন্সের জন্য ওই ব্যক্তির নমুনা পাঠানো হয়েছে। ওই পরীক্ষাতেই বোঝা যাবে যে তিনি ওমিক্রনে আক্রান্ত কিনা।’

কোভিডের জেরে অতীতে বড়সড় বিপর্যয়ের মুখে পড়েছিল মুম্বই সহ গোটা মহারাষ্ট্র। তাই আগেভাগে সতর্ক হতে তৎপর তারা। মুম্বইয়ের মেয়র জানিয়ে দিলেন, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে শহরে কেউ এলে কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক। কোয়ারেন্টিনে থাকার সময় কোভিড ধরা পড়লে জেনোম সিকোয়েন্সিং করাতে হবে। অর্থাৎ করোনা ভাইরাসের প্রজাতি, জিনগত তথ্য নির্ণয়ের পরীক্ষা করাতেই হবে।

ক্রমেই উদ্বেগ বাড়াচ্ছে করোনার নতুন প্রজাতি ওমিক্রন। ফলে আর ঝুঁকি নিতে নারাজ কেন্দ্র। আগেইভাগেই জারি করা হয়েছে সতর্কতা। রাজ্য ও কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলগুলিকে নির্দেশিকায় বলা হয়েছে বিদেশ থেকে আসা যাত্রীদের আগের ১৪ দিনের ট্রাভেল হিস্ট্রি জমা করতে হবে। অর্থাৎ এদেশে আসার আগের ১৪ দিন কোথায় কোথায় গিয়েছেন, তা জানাতে হবে। পাশাপাশি আগের মতোই কোভিড নেগেটিভ রিপোর্টও বাধ্যতামূলক। নতুন গাইডলাইন অনুসারে, যেসব দেশে ওমিক্রন নিয়ে ‘‌ঝুঁকি’‌ রয়েছে, সেসব দেশ থেকে এলে শুধু কোভিড নেগেটিভ রিপোর্টেই হবে না। সাত দিনের কোয়ারেন্টিনও বাধ্যতমূলক। ১ ডিসেম্বর থেকে চালু হচ্ছে এই নতুন নিয়ম।

বিদেশ থেকে ভারতে আসা যাত্রীদের আরটিপিসিআর পরীক্ষার নেগেটিভ রিপোর্ট জমা করতে হবে। যাত্রার আগের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে করাতে হবে আরটিপিসিআর পরীক্ষা। রিপোর্ট ভুয়ো হলে ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে অপরাধের মামলা রুজু হবে।

১২টি দেশকে আপাতত ‘‌ঝুঁকিপূর্ণ’‌ বলে ধরা হয়েছে। সেগুলো হল দক্ষিণ আফ্রিকা, ব্রাজিল, বৎসোয়ানা, বাংলাদেশ, ব্রিটেন, চীন, মরিশাস, নিউজিল্যান্ড, জিম্বাবোয়ে, সিঙ্গাপুর, হংকং, ইজরায়েল। এই দেশগুলো থেকে যাঁরা আসবেন, তাঁদের এদেশের বিমানবন্দরে অবতরণের পর ফের পরীক্ষা করাতে হবে। সেই রিপোর্টের জন্য বিমানবন্দরে বসেই অপেক্ষা করতে হবে। রিপোর্ট নিয়ে তবেই বিমানবন্দর থেকে বেরোতে পারবেন, নয়তো কানেকটিং ফ্লাইট ধরা যাবে না।

Read in English

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Passenger from south africa lands in mumbai via delhi tests positive omicron panic