scorecardresearch

বড় খবর

পড়া না পারায় ক্লাসেই বেধড়ক মার, অজ্ঞান হয়ে হাসপাতালে ভর্তি দলিত পড়ুয়া

অভিযোগ অস্বীকার শিক্ষকের।

পড়া না পারায় ক্লাসেই বেধড়ক মার, অজ্ঞান হয়ে হাসপাতালে ভর্তি দলিত পড়ুয়া
প্রতীকী ছবি

ফের সংবাদ শিরোনামে রাজস্থান। আবারও দলিত শিশুকে মারধরের অভিযোগে তোলপাড় রাজ্য-রাজনীতি। বুধবার বারমেরে সপ্তম শ্রেণির এক দলিত ছাত্রকে প্রশ্নের উত্তর দিতে না পারার কারণে স্কুলের বেধড়ক মারধরের অভিযোগ। এই মর্মে একটি অভিযোগও দায়ের করা হয়েছে। তবে অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন শিক্ষক। তিনি জানিয়েছেন, ছাত্রকে মারধরের অভিযোগ ভিত্তিহীন।

ঘটনার খবর প্রকাশ্যে আসার পর একাধিক দলিত সংগঠন প্রতিবাদে সামিল হন। অভিযুক্ত শিক্ষককে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিও জানানো হয়েছে। পুলিশ অভিযুক্ত অশোক মালিকে আটক করেছে। পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে পড়ুয়ার পরিবারের সদস্যরা এখনও পর্যন্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ দায়ের করেনি।

পুলিশ আরও জানিয়েছে ঘটনাটি বারমেরের একটি সরকারি স্কুলে ঘটেছে, যেখানে শিক্ষক তাকে একটি প্রশ্ন  জিজ্ঞাসা করলে তার উত্তর দিতে না পারায় দলিত পড়ুয়াকে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। সূত্রের খবর মারধরের পরই ছাত্রটি অজ্ঞান হয়ে পড়ে, পরে তাকে চিকিৎসার জন্য স্থানীয় সরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

আরও পড়ুন: [ হাতে মাত্র কয়েকদিন, একনজরে এবারের দুর্গাপুজো ]

সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক ডাঃ দিলীপ চৌধুরী বলেন,  “শিশুটি পেটে ব্যথা এবং মাথাব্যথার কথা বারবার আমাদের জানিয়েছে। শিশুটির অবস্থা স্থিতিশীল। তবে, সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে শিশুটির সিটি স্ক্যান এবং আলট্রাসোনোগ্রাফি করা হয়েছে”। 

এর আগে, ইন্দ্র কুমার নামে বছর নয়েকের দলিত ছাত্র’র মৃত্যু ঘিরে উত্তাল হয় রাজস্থান।  পরিবারের অভিযোগ উচ্চশ্রেণীর মাটির পাত্রে জল খাওয়ার কারণে শিশুটিকে বেধড়ক মারধর করা হয়। গত ১৩ আগস্ট আহমেদাবাদের একটি হাসপাতালে চিকিৎসা চলাকালীন শিশুটির মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় আটক করা হয় অভিযুক্ত শিক্ষককে।  

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Rajasthan dalit boy faints after beating in school teacher detained