scorecardresearch

বড় খবর

শাঁখের করাত, নিষিদ্ধ রাশিয়া, মস্কো থেকে অস্ত্র নেবে না দিল্লি

বর্তমান পরিস্থিতিতে অস্ত্র কিনলেই ভারতকেও পড়তে হবে নিষেধাজ্ঞার কোপে।

arms

রাশিয়া থেকে অস্ত্র কেনার কথা থাকলেও, ভারত তা বাতিল করেছে। মার্কিন সেনেটকে এমনই জানিয়েছেন সেদেশের দক্ষিণ এবং মধ্য এশিয়া বিষয়ক অতিরিক্ত সচিব ডোনাল্ড লু। তিনি জানান, সম্প্রতি রাশিয়ার মিগ-২৯, হেলিকপ্টার, ট্যাংক বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্রের বরাত ভারত বাতিল করেছে।

রাশিয়ার বিরুদ্ধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র-সহ বিশ্বের বহু দেশই আর্থিক নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে রাষ্ট্রসংঘও। তার প্রেক্ষিতেই বরাতগুলো বাতিল করা হয়েছে। তবে লু-এর মন্তব্যের প্রেক্ষিতে পালটা মন্তব্য করতে রাজি হননি ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের মুখপাত্র।

প্রতিবছরই ভারতের বাজেটের এক বিরাট অংশ ব্যয় হয় প্রতিরক্ষা খাতে। যে দেশগুলো থেকে ভারত অস্ত্র কেনে, তার মধ্যে প্রধান দেশ হল রাশিয়া। এটা অবশ্য নতুন কোনও ব্যাপার না। ভারতের স্বাধীনতার পর থেকেই এমনটা চলছে। এর মধ্যেই বিশ্বরাজনীতির প্রেক্ষাপট বদলেছে। ক্ষমতার দিক থেকে রাশিয়া আর সোভিয়েত রাশিয়া যে এক না, সেটা এখন গোটা বিশ্বই বুঝে গিয়েছে।

তবে, সোভিয়েত রাশিয়ার সামরিক শক্তির বেশ কিছুটা ধরে রেখেছে বর্তমান রাশিয়া। একইসঙ্গে ধরে রেখেছে ভারতের সঙ্গে সুসম্পর্কও। সেই খাতিরে আজও ভারতের প্রধান অস্ত্রবিক্রেতা রাশিয়াই। এবারও তাই রাশিয়া থেকে অস্ত্র আমদানির অন্যথা হয়নি। বিপুল পরিমাণ অস্ত্রের বরাত রাশিয়াকে দিয়েছিল ভারত।

তার মধ্যে ছিল যুদ্ধবিমান, হেলিকপ্টার এবং বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র। কিন্তু, বিভিন্ন দেশ এবং রাষ্ট্রসংঘ রাশিয়ার ওপর আর্থিক নিষেধাজ্ঞা জারি করায় ভারত মুশকিলে পড়েছে। কারণ, রাশিয়ার থেকে এই পরিস্থিতিতে অস্ত্র কিনতে গেলে, নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়বে ভারতও।

শুধু তাই না, সোভিয়েত উত্তর জমানায় আমেরিকার সঙ্গে ভারতের সম্পর্কের ক্রমশ উন্নতি ঘটেছে। ভারত বর্তমানে প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম সহযোগী। বিশ্বের সামরিক মানচিত্রের অন্যতম ভরকেন্দ্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এই বন্ধুত্ব ভারত হারাতে চায় না।

সেই কারণে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং আন্তর্জাতিক দুনিয়াকে চটিয়ে রাশিয়া থেকে অস্ত্র আমদানি ভারতের পক্ষে সম্ভব নয়। বিশেষ করে যখন, রাশিয়ার ব্যাংকগুলোর লেনদেনই আন্তর্জাতিক দুনিয়া নিষিদ্ধ করে দিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে রাশিয়া থেকে অস্ত্র আমদানি বাতিল করা ছাড়া ভারতের কাছে বিকল্প ছিল না।

আরও পড়ুন- ডাক্তারি পড়তে হাজার হাজার পড়ুয়ার পাড়ি ইউক্রেনে, দায় কংগ্রেসের, সাফ দাবি মোদীর

তবে, আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে কূটনীতিতে রাশিয়ার বিরুদ্ধেও থাকতে চায় না ভারত। ভারসাম্যের নীতি বজায় রেখেই বিশ্বের আরও ৩৩টি দেশের মত রাশিয়ার বিরুদ্ধে ভারত রাষ্ট্রসংঘে ভোট দেয়নি। রাশিয়ার বিরুদ্ধে অতি সম্প্রতি যে সব প্রস্তাব রাষ্ট্রসংঘে এসেছে, সেই সবক্ষেত্রেই ভারত নিরপেক্ষ অবস্থান নিয়েছে। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় ভারতের প্রতিবেশী চিন, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশের মতোই ভোটদানে বিরত থেকেছে। সম্প্রতি বারবার এমনটা দেখেছে রাষ্ট্রসংঘ।

যাতে কিছুটা হলেও ভারত-মার্কিন সম্পর্কে বিশ্বাসের বাতাবরণ ধাক্কা খেয়েছে। সেই সূত্র ধরেই মার্কিন প্রশাসন কি ভারতের বিরুদ্ধে আর্থিক নিষেধাজ্ঞা জারি করার কথা ভাবছে? সেই ব্যাপারে তিনি কিছুই জানেন না-বলেই জানিয়েছেন লু। তাঁর কথায়, এই আগাম পূর্বাভাস দেওয়া সম্ভব না। ইউক্রেন পরিস্থিতির ওপর গোটা বিষয়টি নির্ভর করবে।

Read story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Russia ukraine war india weapons systems