scorecardresearch

বড় খবর

ধর্ম সংসদে বিদ্বেষ মন্তব্য: হলফনামায় অসন্তুষ্ট সুপ্রিম কোর্ট, দিল্লি পুলিশকে ভর্ৎসনা

“এটা কি দিল্লির ডেপুটি কমিশনার তৈরি করেছেন? উনি কি তদন্ত রিপোর্ট দেখেছেন না কি নিজের মনের কথা লিখেছেন?”

Hindu Mahapanchayat
ফের বিতর্কে যতি নরসিংহানন্দ।

ধর্ম সংসদে আদৌ কি উসকানি-বিদ্বেষমূলক বক্তৃতা দেওয়া হয়েছিল কি না তা খতিয়ে দেখতে সুপ্রিম কোর্টে জমা দেওয়া হলফনামা ফের খুঁটিয়ে দেখতে চায় দিল্লি পুলিশ। শুক্রবার একথা শীর্ষ আদালতে তারা জানিয়েছে। গত বছর ডিসেম্বরে হিন্দু যুবা বাহিনীর উদ্যোগে আয়োজিত ধর্ম সংসদে বিদ্বেষ মন্তব্য নিয়ে মামলায় প্রথমে হলফনামায় অভিযোগ অস্বীকার করে দিল্লি পুলিশ। যাতে তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করে শীর্ষ আদালত।

বিচারপতি এ এম খানউইলকর এবং অভয় এস ওকা পুলিশকে তীব্র ভর্ৎসনা করেন। দুই বিচারপতির বেঞ্চকে অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল কে এম নটরাজ জানান, বিষয়টি খতিয়ে দেখে ফের নতুন হলফনামা জমা দেওয়া হবে। কারণ বিচারপতিদের প্রশ্ন ছিল, তদন্ত রিপোর্টের ভিত্তিতে এই হলফনামা না কি অফিসার নিজের মনগড়া কথা লিখেছেন। আদালত জানতে চায়, ওখলা থানার কোনও শীর্ষ আধিকারিক হলফনামা খতিয়ে দেখেছেন কি না।

বিচারপতি খানউইলকর জানতে চান, “কোনও শীর্ষ আধিকারিক কি এই হলফনামা খতিয়ে দেখেছেন, কোনও হলফনামা আদালতে জমা দেওয়ার আগে এই ধরনের অবস্থান কি নেওয়া যায়! এটা কি দিল্লির ডেপুটি কমিশনার তৈরি করেছেন? উনি কি তদন্ত রিপোর্ট দেখেছেন না কি নিজের মনের কথা লিখেছেন। আমরা আশা করছি তিনি বিষয়টির গুরুত্ব বুঝবেন।”

আরও পড়ুন দেশের ঐক্যের জন্য সমজাতীয় সংস্কৃতি, ধর্মের প্রয়োজন নেই: ভাগবত

এদিন নটরাজ জানিয়েছেন, দিল্লি পুলিশ নতুন করে হলফনামা জমা দেবে খতিয়ে দেখে। উল্লেখ্য, আদালতে গত বছর হরিদ্বার এবং দিল্লিতে ধর্ম সংসদে বিদ্বেষ মন্তব্যের মামলায় তদন্তের আবেদনে শুনানি চলছে। আদালতের নোটিসের প্রেক্ষিতে দিল্লি পুলিশ জানায়, “দিল্লির ধর্ম সংসদে কোনও সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ মন্তব্য করা হয়নি। বরং বক্তব্যে একটি সম্প্রদায়কে শক্তিশালী করার জন্য এবং কোনও অশুভ শক্তি থেকে নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষার ডাক দেওয়া হয়। এতে কোনও একটি সম্প্রদায়ের গণহত্যার ডাক দেওয়া হয়নি।”

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Sc dissatisfied with delhi polices affidavit on hate speech at dharam sansad