scorecardresearch

বড় খবর
এক ফ্রেমে কেন্দ্রীয় কয়লামন্ত্রী ও কয়লা মাফিয়া, বিজেপিকে বিঁধলেন অভিষেক

পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য হোটেলে থাকার ব্যবস্থার আর্জি খারিজ সুপ্রিম কোর্টে

অতিমারী করোনার জেরে পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য় যে থাকার ব্য়বস্থা করা হয়েছে, সেখানে স্বাস্থ্য় পরিকাঠামো পর্যাপ্ত না থাকার অভিযোগ উঠেছে।

পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য হোটেলে থাকার ব্যবস্থার আর্জি খারিজ সুপ্রিম কোর্টে
ছবি- ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

করোনা পরিস্থিতিতে পরিযায়ী শ্রমিকদের থাকার ব্য়বস্থা রিসর্ট ও হোটেলে করার আর্জি খারিজ করে দিল সুপ্রিম কোর্ট। অতিমারী করোনার জেরে পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য় যে থাকার ব্য়বস্থা করা হয়েছে, সেখানে স্বাস্থ্য় পরিকাঠামো পর্যাপ্ত না থাকার অভিযোগ উঠেছে।এই প্রেক্ষিতে পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য় রিসর্ট ও হোটেলে থাকার ব্য়বস্থার আর্জি জানানো হয়েছিল।

বিচারপতি এল নাগেশ্বর রাও ও বিচারপতি দীপক গুপ্তার বেঞ্চ ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্য়মে এদিনের শুনানি করে। কেন্দ্রের হয়ে সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা এদিন আদালতে জানান, স্কুল-সহ অন্য়ান্য় জায়গায় পরিয়ায়ী শ্রমিকদের জন্য় থাকার ব্য়বস্থা করেছে রাজ্য়গুলো।

আরও পড়ুন: করোনায় বাংলা যা করে দেখিয়েছে, তা একটা মডেল: মমতা

পরিযায়ী শ্রমিকদের যাতে আশ্রয়, খাবার, স্বাস্থ্য পরিষেবা ঠিকমতো প্রদান করা হয়, সে ব্য়াপারে এর আগে কেন্দ্রকে নির্দেশ দিয়েছিলেন প্রধান বিচারপতি এসএ বোবদে। প্রধান বিচারপতি বলেছিলেন, যাঁদের করোনা আক্রান্ত হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে এবং কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে, তাঁদের সম্পর্কে যেন খোঁজখবর রাখে সরকার।

পরিযায়ী শ্রমিকদের উপর যাতে কোনওভাবেই জোর খাটানো না হয়, সে ব্য়াপারেও কেন্দ্রকে নির্দেশ দেন প্রধান বিচারপতি। তিনি বলেন, ”পরিযায়ী শ্রমিকদের থাকার জায়গা পুলিশ নয়, স্বেচ্ছাসেবকরা সামলাক”। ‘ভাইরাসের থেকে আতঙ্কে বহু জীবন বিপন্ন হতে পারে’, পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে মামলার শুনানিতে এমন মন্তব্য়ই করেছিল সুপ্রিম কোর্ট। করোনা পরিস্থিতিতে পরিযায়ী শ্রমিকদের কাউন্সেলিং করতে কেন্দ্রকে নির্দেশ দিয়েছিল দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Read the full story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest General news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Sc rejects plea for using hotels as shelters for migrant workers coronavirus