জঙ্গি উপদ্রুত এলাকায় হোয়াটস অ্যাপ ব্লক করার ভাবনা সরকারের

জঙ্গি উপদ্রুত এলাকায় হোয়াটস অ্যাপ, ফেসবুকে ম্যালিসিয়াস কনটেন্ট ব্লক করা যায় কিনা সে ব্যাপারে খতিয়ে দেখার কথা ভাবছে কেন্দ্রীয় সরকার।

By : IE Bangla Web Desk | New Delhi Updated: Jun 12, 2018, 16:12:03 PM

জম্মু-কাশ্মীরে জঙ্গিদের দমন করতে এবার সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মে বিশেষ করে নজর দিচ্ছে কেন্দ্র। হোয়াটস অ্যাপ, ফেসবুকে ম্যালিশিয়াস কনটেন্ট ব্লক করা যায় কিনা সে ব্যাপারে খতিয়ে দেখার কথা ভাবছে কেন্দ্রীয় সরকার। বিশেষ করে জঙ্গি উপদ্রুত এলাকায় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের দিকে বিশেষভাবে চোখ দিতে মরিয়া সরকার। ফেসবুক, হোয়াটস অ্যাপের মতো সোশ্যাল সাইটকে কাজে লাগিয়ে নিজেদের হ্যান্ডলারদের সঙ্গে জঙ্গিরা নিয়মিত যোগাযোগ রাখছে বলে খবর। আর সেকারণেই জম্মু-কাশ্মীরের মতো এলাকায় সোশ্যাল সাইট নিয়ে কড়া পদক্ষেপ করার পথে এগোতে চাইছে সরকার পক্ষ।

গত সোমবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব রাজীব গৌবার নেতৃত্বে এক বৈঠকে এ নিয়ে আলোচনা হয়। ইলেকট্রনিক্স ও তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রক, টেলিকমিউনিকেশনসের শীর্ষ কর্তারা ছিলেন ওই বৈঠকে। এছাড়াও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিবের নেতৃত্বাধীন বৈঠকে ছিল নিরাপত্তা সংস্থা ও জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ। বিভিন্ন সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট থেকে ম্যালিশিয়াস কনটেন্ট সরানো নিয়েই মূলত আলোচনা হয়েছে ওই বৈঠকে।

আরও পড়ুন, WhatsApp Payments: লেনদেনের গোপনীয়তা রক্ষার ওপর কড়া নজর

২০১৬ সালে নাগরোটা সেনা ক্যাম্পে জঙ্গি হামলার ঘটনাও আলোচিত হয়েছে ওই বৈঠকে। এই হামলায় সম্প্রতি গ্রেফতার করা হয়েছে কয়েকজনকে। ধৃত জঙ্গিরা জইশ-এ-মহম্মদের সঙ্গে যুক্ত বলে জানা গিয়েছে। শুধু তাই নয়,  জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ জানতে পেরেছে ওই জঙ্গিরা হোয়াটস অ্যাপ কলের মাধ্যমে সীমান্তের দিকনির্দেশিকা জেনেছিল। ওই হামলায় নিহত হয়েছিলেন সাত সেনা জওয়ান। জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা এনআইএ সম্প্রতি তিনজনকে নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে। জঙ্গিদের সাহায্য করার অভিযোগে রাজ্য পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছিলেন ওই তিন ব্যক্তি।

ইন্টারনেট কলে এন্ড টু এন্ড এনক্রিপশন এই কলগুলিকে চিহ্নিত করা সার্ভিস প্রোভাইডারদের পক্ষেও কার্যত অসম্ভব। আর এতেই চিন্তায় পড়েছে নিরাপত্তা সংস্থাগুলো।